মুখের টিউমার আলসার ও ক্যান্সার

আগের সংবাদ

হাতের স্পর্শেই আনলক হবে গাড়ি

পরের সংবাদ

পুরনো গাড়ি কেনার ক্ষেত্রে পাঁচটি তথ্য

প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ২৭, ২০১৯ , ৩:৫১ অপরাহ্ণ | আপডেট: আগস্ট ২৭, ২০১৯, ৩:৫১ অপরাহ্ণ

Avatar

অনেকেই পুরনো গাড়ি কিনেন। সেক্ষেত্রে কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় খেয়াল করা উচিত। আর তা না করলে লাভের চেয়ে লোকসানই বেশি হবে। যারা স্বল্প বাজেটের মধ্যে একটি সেকেন্ড হ্যান্ড কার কিনতে চান এবং সেক্ষেত্রে যাতে ভাল গাড়িটিই কিনতে পারেন, তাদের জন্যই মূলত আজকের ফিচার।

গাড়ির ফিটনেস ঠিক আছে কিনা
যে গাড়িটি কিনবেন বলে ঠিক করেছেন, সেটার ফিটনেস ঠিক আছে কিনা তা ভালভাবে পরখ করা দরকার। ভালভাবে গাড়ি পর্যবেক্ষণ করার সঙ্গে সঙ্গে তা খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে দেখুন এবং পারলে মালিকের কাছ থেকে ফিটনেস সার্টিফিকেট চেয়ে দেখে নিন। গাড়ির আকার চেক করতে গাড়িটির গ্রাউন্ডে অবস্থান ভালভাবে লক্ষ্য করে দেখুন। গাড়ির পেইন্ট ভালোভাবে পরীক্ষা করুন। দেখুন কোথাও কোন ধুলা-ময়লা, মরিচা অথবা দাগ আছে কিনা। এ ছাড়াও গাড়ির ট্রাঙ্ক ভাল অবস্থায় আছে কিনা তা পরীক্ষা করে দেখা উচিত। এতে কোন ধরনের ছিদ্র কিংবা মরিচা থাকলে তা দিয়ে পানি পড়তে পারে।

গাড়ির টায়ার চেক করুন
গাড়ির টায়ার ভালভাবে পরীক্ষা করে দেখুন যে, কোন সমস্যা আছে কিনা। টায়ারগুলো সব একই রকমভাবে ব্যবহার হওয়ার কথা। ব্যাড এলাইনমেন্ট কিংবা কোন রকম ড্যামেজ হয়ে আছে কিনা তা দেখা দরকার। এ ছাড়াও টাইমিং বেল্ট চেক করাটা জরুরি। এটা ইঞ্জিনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বেল্ট এবং এটা পরিবর্তন করতে গেলে অনেক বেশি খরচ হয়। সুতরাং সবদিক ভেবে মনোযোগের সঙ্গে এই দিকগুলো খেয়াল করা উচিত।

ফ্রেম ড্যামেজ আছে কিনা পরীক্ষা করুন
কখনোই কোন ফ্রেম ড্যামেজ কার কিনবেন না। গাড়ির নিচ দিকটা পরীক্ষা করে দেখুন কোথাও কোন মরিচা ধরেছে কিনা। কোন ছিদ্র আছে কিনা তাও খেয়াল করুন। এ ছাড়াও গাড়ির নিষ্কাশন ব্যবস্থা পরীক্ষা করা উচিত। এক্ষেত্রে গাড়ি চালিয়ে দেখুন সাদা বাষ্প বের হয় কিনা। শীতকাল বাদে এই বাষ্প বের হলে তা খারাপ লক্ষণ হিসেবে ধরা হয়। আর এর ফলে গাড়ি ত্রু টিপূর্ণ হওয়ার সম্ভাবনাটাও কিন্তু বেড়ে যায়!

গাড়ির হুডের নিচে পরীক্ষা করে দেখুন
যে সেকেন্ড হ্যান্ড গাড়িটি কিনতে যাচ্ছেন সেটার সবকিছু পর্যবেক্ষণ করেই কেনা উচিত। সেক্ষেত্রে কারের হুডের নিচে সতর্কতার সঙ্গে চেক করুন। ভাল করে দেখুন সেখানে কোনকিছু নষ্ট হয়ে কিংবা জং ধরে পড়ে আছে কিনা। এ ছাড়াও পাইপ এবং বেল্টগুলো চেক করে দেখা দরকার। এগুলোতে স্ক্র্যাক থাকা মানে সেগুলো ত্রুটিপূর্ণ। আর রেডিয়েটর হোস কোনভাবেই নরম হওয়া উচিত নয়। মূলত এগুলো দেখেই বোঝা যাবে, গাড়িটি সঠিকভাবে পরিচর্যা করা হয়েছিল কিনা।

মিরর, হেডলাইট, উইপার ঠিকঠাক আছে কিনা
মিরর, হেডলাইট, উইপার ইত্যাদি ঠিকঠাক আছে কিনা তা দেখা দরকার। অস্বচ্ছ মিরর, ভাঙ্গা হেডলাইট, অকেজো উইপার কোন কাজে আসবে না। কার কেনার সময় এগুলো ভালভাবে দেখে নেয়া প্রয়োজন। অন্য বিষয়গুলো যেগুলো গাড়ি স্থির অবস্থায় ব্যবহার করা হয় তাও পরীক্ষা করুন। যেমন সেন্সরস যেগুলো গাড়ি পার্কিংয়ে ব্যবহার করা হয়। এ ছাড়াও ব্যাক পার্কিং ক্যামেরা, সিডি, রেডিও ইত্যাদিও পরীক্ষা করে দেখুন।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা