২ হাজার কোটি টাকার বাজার মূলধন ফেরত

আগের সংবাদ

বিশ্বের প্রথম ৫জি প্রযুক্তির ভ্রাম্যমাণ হোটেল

পরের সংবাদ

৫ লাখ টাকার মুনাফায় উৎসে কর কাটা হচ্ছে ১০ শতাংশ

কাগজ প্রতিবেদক :

প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ২৫, ২০১৯ , ১২:১৪ অপরাহ্ণ

সিদ্ধান্ত কার্যকর না হওয়ায় এখনো ৫ লাখ টাকার সঞ্চয়পত্রে ১০ শতাংশ উৎসে কর কাটা হচ্ছে। আদেশ জারি না হওয়ায় ৫ শতাংশ করহার এখনো কার্যকর হয়নি। এ ছাড়া বর্ধিত হারে কেটে নেয়া করের টাকাও ফেরত দেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন এনবিআর চেয়ারম্যান।
বাজেটে সঞ্চয়পত্রের মুনাফায় উৎসে কর ৫ থেকে বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করা হয়। সমালোচনার মুখে ২৯ জুলাই ৫ লাখ টাকার সঞ্চয়পত্রে উৎসে কর ৫ শতাংশ করার ঘোষণা দেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। কিন্তু এখনো ১০ শতাংশ উৎসে করই কাটা হচ্ছে। বিনিয়োগকারীরা বলছেন, আগে ১ লাখ টাকায় ২৭৯৩ টাকা পাওয়া গেলেও এখন তা কমে হয়েছে ২৬৪৬ টাকা। তার মানে সেই ১ লাখ টাকা থেকেও ১০ শতাংশ কেটে নেয়া হয়েছে।
এ ব্যাপারে জাতীয় সঞ্চয় অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সামছুন্নাহার বেগম বলেন, ৫ শতাংশ করের বিষয়ে এখনো আদেশ জারি না হওয়ায় তা কার্যকর হয়নি। এনবিআর এবং রাষ্ট্রপতির আদেশ প্রয়োজন। যার কারণে সংশোধিত সিদ্ধান্ত হয়নি।
তবে খুব শিগগিরই আদেশ জারি হবে উল্লেখ করে এনবিআর চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া সম্প্রতি বলেন, অর্থনীতির বিষয়টি পুনরায় পরিবর্তন করা হয় এসআরও জারির মাধ্যমে। এর আগে থেকে যদি কার্যকর করতে হয় তাহলে আবারো আরেকটি এসআরও জারি করতে হবে। তবে যাদের কাছ থেকে বাড়তি কর এরই মধ্যে কেটে নেয়া হয়েছে তা ফেরত দেয়া হবে না। এর আগে ২৯ জুলাই সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সব ধরনের সঞ্চয়পত্রে পাঁচ লাখ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগে উৎসে করের হার ১০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৫ শতাংশ নির্ধারণ করা হয়েছে বলে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জানান। নতুন করহার চলতি বছরের ১ জুলাই থেকেই কার্যকর হবে বলেও জানান অর্থমন্ত্রী।
অর্থমন্ত্রী বলেন, সঞ্চয়পত্র যাদের জন্য তারা না পেয়ে ধনীরা এ সুবিধা পাচ্ছে। এ জন্য শিগগরিই সঞ্চয়পত্র নিয়ে আলাদা প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে। সেখানে ৫ লাখের ওপরে যাদের বিনিয়োগ তারা ১০ শতাংশ উৎসে কর দিবে। এর নিচে বা ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী ও পেনশনভোগীরা ৫ শতাংশ উৎসে কর দিবে। ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগে উৎসে করের হার ৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১০ শতাংশ নির্ধারণ করা হয়। পরে পেনশনভোগীদের জন্য সঞ্চয়পত্রে পাঁচ লাখ টাকা পর্যন্ত করহার কমিয়ে ৫ শতাংশ বহাল রাখা হয়।
মুস্তফা কামাল বলেন, বাজেট পাসের পর সঞ্চয়পত্র নিয়ে অনেক বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে। তাই সঞ্চয়পত্রে যাদের ৫ লাখ টাকা আছে, তাদের ক্ষেত্রে ৫ শতাংশ কর আর এর বেশি যারা রাখবেন তাদের ১০ শতাংশ উৎসে কর দিতে হবে। সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগ করে গরিব বা স্বল্প আয়ের মানুষ। তাই এখাতে স্বচ্ছতার সঙ্গে কাজ করতে চাই। এ সুযোগ যাদের জন্য দেয়া হচ্ছে তাদের জন্য এটা চলবে। ৫ লাখ টাকা যথেষ্ট না হলে পরবর্তী সময় চিন্তা-ভাবনা করা হবে।

বিষয়: