আপনি কি বাইক কেনার কথা ভাবছেন

আগের সংবাদ

গাড়ি চালানোর সময়...

পরের সংবাদ

মোটরসাইকেলের সতর্কতা

প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ২০, ২০১৯ , ৪:১১ অপরাহ্ণ | আপডেট: আগস্ট ২০, ২০১৯, ৪:১১ অপরাহ্ণ

Avatar

অনেকেই পেশাগত প্রয়োজনে, আবার কেউ শখ করে মোটরসাইকেল চালান। কারো কারো সারাদিনই দীর্ঘ সময় ধরে মোটরসাইকেল চালাতে হয়। কিন্তু অবৈজ্ঞানিক উপায়ে মোটরসাইকেল চালালে শরীরের বিভিন্ন জয়েন্টে ব্যথা ও মেরুদণ্ড সমস্যা হতে পারে, এমনকি কর্মক্ষমতাও হারিয়ে ফেলতে পারেন। কাজেই কিছু বিষয়ে সতর্ক থাকা প্রয়োজন।

হতে হবে সামঞ্জস্যপূর্ণ : মোটরসাইকেল কেনার সময় নিশ্চিত হয়ে নিন, এর সবকিছু আপনার শরীরের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ। বসার আসন, হ্যান্ডেলবার, পাদানি শরীরের সঙ্গে মানানসই। আপনার উচ্চতা ও শারীরিক গড়ন বিবেচনায় নিয়ে মোটরসাইকেলটি মানানসই ও আরামদায়ক কি না, দেখে নিন।

বসার আদর্শ অবস্থান : মোটরসাইকেল চালানোর সময় অবশ্যই চালককে পিঠ সোজা রেখে বসতে হবে। কাঁধ দুটো পেছনের দিকে কিছুটা বাঁকানো এবং কোমরের সঙ্গে সামঞ্জস্য থাকতে হবে।
ঘাড় এবং কাঁধ সামনে কুঁজো হয়ে থাকলে অস্বস্তি ও ব্যথা হয়।

পায়ের অবস্থান : গোড়ালি কোমর বরাবর অবস্থান করবে। অর্থাৎ দুই পা ফাঁক এবং ভাঁজ অবস্থায় সামনের দিকে থাকবে। পায়ের পাতার জন্য আলাদাভাবে সামনে-পেছনে কয়েকটি পাদানি থাকবে, যাতে ভ্রমণের সময় প্রয়োজনমতো পায়ের অবস্থান পরিবর্তন করা যায়। এ অবস্থান শরীরকে স্থির রাখতে সহায়তা করবে।

সঠিকভাবে মোটরসাইকেল চালান : সঠিক দেহভঙ্গি আপনার ভ্রমণকে নিরাপদ এবং আনন্দদায়ক করবে। তাই ধীরেসুস্থে মোটরসাইকেল চালাবেন। অবশ্যই হেলমেট ব্যবহার করবেন।

পিঠের অবস্থান : কোমরে বেল্ট ব্যবহার করুন এবং পিঠের ওপরের অংশ পেছনের দিকে একটু বাঁকা রাখুন।

সঠিক দেহভঙ্গির অনুশীলন : বাইকে বসা অবস্থায় বা তার পাশে হাঁটা অবস্থায় সঠিক দেহভঙ্গির অনুশীলন করে নিন। লক্ষ করুন, কুঁজো হয়ে বসছেন কি না, কোমরের অংশে চাপ অনুভূত হচ্ছে কি না।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা