দেওয়ানগঞ্জে বজ্রপাতে দুই ভাইয়ের মৃত্যু

আগের সংবাদ

নাম প্রকাশের অপেক্ষায় বিসিবি

পরের সংবাদ

বৃষ্টি থাকবে আরো দুই-তিন দিন, মাস শেষে স্বল্পস্থায়ী বন্যা

প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ১৬, ২০১৯ , ৩:৪৬ অপরাহ্ণ | আপডেট: আগস্ট ১৬, ২০১৯, ৩:৪৬ অপরাহ্ণ

Avatar

সোমবার থেকে শুরু হওয়া বৃষ্টি পুরোপুরি থামেনি। ইতোমধ্যে গত বুধবার থেকে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপের কারণে বৃষ্টি আরো বেড়েছে। এর প্রভাবে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত হচ্ছে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে। আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, আগামী দুই-তিন দিন দেশের বেশিরভাগ স্থানে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সঙ্গে কোথাও কোথাও ভারি থেকে অতি ভারি বৃষ্টি হতে পারে।
অধিদপ্তর জানিয়েছে, বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপের কারণে আকাশে সঞ্চরণশীল মেঘমালা তৈরি হয়েছে। এতে দেশের উপকূলীয় এলাকা দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এ কারণে চট্টগ্রাম, পায়রা ও মোংলা বন্দর এবং কক্সবাজার উপক‚লকে ৩ নম্বর সতর্কসংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌযানকে উপক‚লের কাছাকাছি এসে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নিরাপদ স্থানে অবস্থান করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আবহাওয়াবিদ শাহিনুল ইসলাম জানান, বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপটি গত বুধবার বাংলাদেশ থেকে আস্তে আস্তে ভারতের দিকে সরে যাচ্ছে। এ লঘুচাপের কারণে বাংলাদেশের বেশ কিছু স্থানে ভারি বৃষ্টিপাত হতে পারে। তবে আগামী ২-১ দিনের মধ্যে সেটি দুর্বল হয়ে যাবে।
এদিকে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশের উজানে ভারতীয় অংশে ব্যাপক বৃষ্টি শুরু হয়েছে। এর প্রভাবে বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে নদীর পানি বাড়তে পারে। এর ফলে সেখানকার নিম্নাঞ্চলে স্বল্পস্থায়ী বন্যার আশঙ্কা রয়েছে। এ ছাড়া গঙ্গা ও ব্রহ্মপুত্র অববাহিকার পানিও বাড়ছে। আগামী সপ্তাহের শুরু থেকে পানি আরো বেড়ে চলতি মাসের শেষের দিকে দেশের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলে আবারো দুই থেকে তিন দিনের একটি বন্যা হতে পারে।
বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আরিফুজ্জামান ভূইয়া বলেন, বাংলাদেশের উজানে বৃষ্টিপাত বাড়তে থাকায় চলতি মাসের শেষের দিকে দেশের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলে আরেক দফা স্বল্পস্থায়ী বন্যা হতে পারে।