বৃষ্টি থাকবে আরো দুই-তিন দিন, মাস শেষে স্বল্পস্থায়ী বন্যা

আগের সংবাদ

এবার মাঠে ফিরছেন সাকিব আল হাসান

পরের সংবাদ

নাম প্রকাশের অপেক্ষায় বিসিবি

প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ১৬, ২০১৯ , ৪:০৭ অপরাহ্ণ | আপডেট: আগস্ট ১৬, ২০১৯, ৪:০৭ অপরাহ্ণ

Avatar

দ্বাদশ বিশ্বকাপ আসরে ব্যর্থ মিশন শেষে বেশ কয়েকটি দল নতুন করে কোচিং স্টাফ সাজাতে ব্যস্ত। নামি-দামি কোচদের নিয়ে এখন টানাটানি চলছে। তাই টাইগারদের জন্য কোচ পেতে দেরি হচ্ছে। স্টিভ রোডস চলে যাওয়ার পর একমাস প্রধান কোচের জায়গাটা শূন্য। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) চাইছে দ্রুতই শূন্যস্থান পূরণ করতে। তাই ঈদের ছুটি শেষ না হতেই বিসিবি কোমর বেঁধে প্রধান কোচ নিয়োগের জন্য কাজ করছে। তামিম-সাকিবদের কোচ কে হবে এমন প্রশ্নের জবাব খুঁজছেন সবাই। তবে টাইগার ভক্তদের জন্য খুশির খবর জানিয়েছে বিসিবি পরিচালক ও দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জালাল ইউনুস। তিনি বলেছেন, খুব তাড়াতাড়ি হেড কোচের নাম প্রকাশ করা হবে। এর আগে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছিলেন, এবার আমরা নাম দেখে কোচ নির্বাচন করব না। নতুন কাউকে নেবার আগে অবশ্যই পরখ করে নেব। তাই কে হবেন টাইগারদের কোচ তার নাম জানাতে রাজ্যের অনীহা বোর্ড কর্মকর্তাদের। বিসিবি বোর্ডের দুই অন্যতম শীর্ষ কর্মকর্তা মাহবুব আনাম এবং জালাল ইউনুস জানিয়েছেন বিষয়টি অতিগোপনীয়। বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান পাপনসহ অন্য কর্মকর্তারাও যথেষ্ট সতর্ক এবং সাবধানি।
মাহবুব আনাম সবাইকে ধৈর্য ধরে অপেক্ষায় থাকার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, কোচ নিয়োগ প্রক্রিয়ার সঙ্গে শুধু বিসিবি আর সম্ভাব্য বিদেশি কোচরাই নন, আরো কেউ কেউ জড়িত আছেন। তাদের প্রায় সবার একাধিক অফার আছে। আরো টেস্ট খেলুড়ে দেশের বোর্ডও সম্পৃক্ত। তারা জেনে গেলে কথা বলার সুযোগ যায় কমে। আর কথাবার্তা চ‚ড়ান্ত না হলে আরেক সমস্যা। ধরা যাক, একজনের সঙ্গে কথা হলো কিন্তু রফা হলো না বা সবকিছু চ‚ড়ান্ত হলো না। এ কারণেই সম্ভাব্য কোচের তালিকায় যারা আছেন, তাদের নাম প্রকাশে আমরা এতটাই গোপনীয়তা অবলম্বন করছি।
একই কথা বলেছেন জালাল ইউনুসও। তিনি বলেছেন, আমরা যাদের সঙ্গে কথা বলেছি, তারা কেউই ফ্রি নন। তাদের অফার আছে। হয়তো কেউ অন্যত্র কাজও করছেন। এখন আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ আর কথাবার্তা বলার বিষয়টি জানাজানি হয়ে গেলে ওই কোচরা বিব্রতকর অবস্থায় পড়ে যান। তাদের ডিমান্ড কমে যায়। আর কথাবার্তা চ‚ড়ান্ত না হওয়ার আগে মিডিয়ায় এ খবর প্রকাশিত হলে তাদের নিজ নিজ কর্মক্ষেত্রেও খানিক সমস্যা হয়। কোচ চ‚ড়ান্ত করার আগে অনেক বিষয় আছে। কেউ যদি বলি ১০০ দিন কাজ করব, সেটায় আমরা রাজি নই। এসব বিষয় চ‚ড়ান্ত করতে যা একটু দেরি হচ্ছে। আশা করি, কয়েক দিনের মধ্যে হয়ে যাবে।