জাতির পিতা হারানোর শোককে শক্তিতে রূপান্তর করতে হবে: রাষ্ট্রপতি

আগের সংবাদ

বৃষ্টি আরও দুদিন থাকতে পারে

পরের সংবাদ

দেশে ফিরলেন ভারতে পাচার হওয়া ৭ তরুণী

প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ১৪, ২০১৯ , ৯:৪৫ অপরাহ্ণ | আপডেট: আগস্ট ১৪, ২০১৯, ৯:৪৫ অপরাহ্ণ

কাগজ প্রতিবেদক

ভালো কাজের প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন সময়ে অবৈধ পথে ভারতে পাচার হওয়া সাত বাংলাদেশি তরুণীকে ভারত সরকারের দেয়া বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে ফেরত দিয়েছে দেশটির পুলিশ। বুধবার সন্ধ্যায় ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ ওই সাত তরুণীকে বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন পুলিশের হাতে তুলে দেয়। এ সময় ভারতীয় বিএসএফ ও বাংলাদেশের বিজিবির প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ার নামের একটি এনজিও সংস্থা ওই তরুণীদের পরিবারের কাছে পৌঁছে দেয়ার জন্য নিজেদের জিম্মায় নিয়েছে। ফেরত আসা তরুণীরা হলেন খুলনার রোজা খাতুন (২১), ময়না খাতুন (১৯), পিরোজপুরের মরিয়ম (১৮), শান্তি খাতুন (১৬), রিনা মুন্নি (১৯), ঝিনাইদহের বিলকিস (২২) ও সিমা আক্তার (২১)।

জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ারের যশোর শাখার তথ্য ও অনুসন্ধান কর্মকর্তা এ বি এম মুহিত হোসেন জানান, সংসারে অভাব-অনটনের কারণে তিন বছর আগে এসব বাংলাদেশি তরুণী দালালের খপ্পরে পড়ে অবৈধ পথে ভারতে যান। এ সময় অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগে ভারতীয় পুলিশ তাদের আটক করে আদালতে পাঠায়। ভারতের একটি এনজিও সংস্থা আদালত থেকে তাদের ছাড়িয়ে নিয়ে নিজেদের একটি শেল্টার হোম রাখে। পরে দু’দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যোগাযোগের মাধ্যমে বিশেষ ট্রাভেল পারমিট আইনে তাদের দেশে ফেরার ব্যবস্থা করা হয়।

বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের ওসি (তদন্ত) মাসুম বিল্লাহ জানান, কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাদেরকে পোর্ট থানা পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে।

বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আলমগীর হোসেন জানান, ফেরত আসা সাত তরুণীকে তাদের পরিবারের কাছে পৌঁছে দেয়ার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ারের কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ারের কর্মকর্তা এ বি এম মুহিত হোসেন জানান, ওই তরুণীদের যশোরে তাদের নিজস্ব শেল্টার হোমে রাখা হবে। পরে তাদের অভিভাবকদের কাছে পৌঁছে দেয়া হবে।