টেকনাফ সীমান্ত দিয়ে আসছে কুরবানির পশু

আগের সংবাদ

কোনো মামলা না থাকলেও মাদকের গডফাদার তিনি

পরের সংবাদ

শিল্পকলার মাসব্যাপী কর্মসূচি

টুঙ্গিপাড়ায় ‘শিল্পযাত্রা’

প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ২, ২০১৯ , ১:০৮ অপরাহ্ণ | আপডেট: আগস্ট ২, ২০১৯, ২:১৮ অপরাহ্ণ

Avatar

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস ২০১৯ উপলক্ষে ‘শিল্পের আলোয় বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক ১ থেকে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত মাসব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি।
গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে সব জেলা সংস্কৃতি কর্মকর্তাদের অংশগ্রহণে ঢাকা থেকে টুঙ্গিপাড়ার উদ্দেশে মাসব্যাপী শিল্পযাত্রা শীর্ষক আয়োজনের সূচনা হয়। দুপুর ১২টায় টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধি সৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি আয়োজিত মাসব্যাপী কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক ঋত্বিক নাট্যপ্রাণ লিয়াকত আলী লাকী, সচিব বদরুল আনম ভূঁইয়া, উপসচিব আফজাল হোসেন, উপপরিচালক ‘অর্থ’ শহিদুল ইসলাম, উপপরিচালক (চারুকলা) এ এম মোস্তাক আহমেদসহ সব জেলা শিল্পকলা একাডেমির কর্মকর্তারা।
দুপুর ১টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি গোপালগঞ্জ প্রাঙ্গণে জাতির পিতাকে উৎসর্গীকৃত ১০০ শিশুর অংশগ্রহণে পুষ্পকানন নির্মাণ করা হয়। যেখানে ১০০ জন শিশু প্রত্যেকে একটি করে ফুল গাছের চারা রোপণ করেন। এ ছাড়াও একই দিনে শিল্পকলা একাডেমি ঢাকার জাতীয় চিত্রশালার ১নং গ্যালারিতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি ও চিত্রকর্মের মাসব্যাপী প্রদর্শনী শুরু হয়েছে। প্রদর্শনী প্রতিদিন বেলা ১১টা থেকে রাত ৮টা এবং শুক্রবার বেলা ৩টা থেকে রাত ৮টা দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।
‘শিল্পযাত্রা’ শিরোনামের ওই আয়োজনে অংশগ্রহণকারী প্রায় ৭০ জন কর্মকর্তার গোপালগঞ্জের শেখ ফজলুল হক মণি মিলনায়তনের সেমিনার কক্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বছরব্যাপী জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের লক্ষ্যে নির্মিতব্য সব শিল্পের নির্মাণভাবনা ও কর্মপরিকল্পনা বিষয়ক কর্মশালার আয়োজন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী। কর্মশালা শেষে সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিবিজড়িত মধুমতি নদীর তীরে শিল্প ভ্রমণ করা হয়।
এ ছাড়াও শিল্পকলা একাডেমির মাসব্যাপী আয়োজনের মধ্যে রয়েছে জাতীয় চিত্রশালায় পাহাড়ের বর্ণিল সংস্কৃতি শীর্ষক চিত্রকর্ম প্রদর্শনী, বঙ্গবন্ধুর ওপর রচিত ১০০টি গ্রন্থের পাঠ পর্যালোচনা, আলোচনা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, মুজিব মানে মুক্তি নাটকের প্রদর্শনী, ‘বঙ্গবন্ধু স্মারক বক্তৃতামালা’ উদ্বোধন, ২১ আগস্ট ভয়াবহ গ্রেনেড হামলার ওপর স্থাপনাশিল্প প্রদর্শনী, বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী ও কারাগারের রোজনামচা পাঠ ও চিত্রকর্ম নির্মাণ এবং সব জেলা ও উপজেলা শিল্পকলায় শিশু চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, বঙ্গবন্ধুর কর্মময় জীবনের ওপর তথ্যচিত্র প্রদর্শনী এবং বরেণ্য চিত্রশিল্পীদের অংশগ্রহণে ‘শিল্পের আলোয় বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক আর্ট ক্যাম্প।