সুগন্ধি ব্র্যান্ড ‘লায়লা ব্লাঙ্ক’ এবার বাংলাদেশে

আগের সংবাদ

রামপুরায় যান চলাচল স্বাভাবিক

পরের সংবাদ

নব দম্পতির হেঁসেলঘর

প্রকাশিত হয়েছে: জুলাই ২৫, ২০১৯ , ৬:১৪ অপরাহ্ণ | আপডেট: জুলাই ২৫, ২০১৯, ৬:১৪ অপরাহ্ণ

Avatar

পেটপূজার সহজ সমাধান মেলে হেঁসেল বা রান্না ঘরে। তাই খাবার তৈরির অনুসঙ্গ হিসাবে কারো বাসায় রান্নঘরের টুকিটাকি জিনিসপত্রগুলো দেখেশুনে কেনা উচিত। আর যদি হয় নতুন সংসার তাহলে তো কথাই নেই। সম্প্রতি এমনই একটি নব দম্পতির সঙ্গে কথা হয় রান্নাঘরের টুকিটাকি নিয়ে।

নতুন সংসার শুরু করেছে। নতুন জীবন, তাই সবকিছুতেই চাই তাদের নতুনত্ব। ঘরের অন্দরসজ্জা থেকে রান্নাঘর সবকিছুই তাঁরা ঢেলে সাজাতে চায়। একজন কাজ করছেন একটি বেসরকারি টেলিভিশনে আর অন্যজন কাজ করছেন একটি আন্তর্জাতিক এনজিওতে। দু’জনই সকালে বাসা থেকে বেরিয়ে ফেরেন রাতে। ব্যস্ততার জীবন। এই ব্যস্ততার ফাঁকে যতটুকু ফুরসত মেলে, সেই সময়টুকু তাঁরা ব্যয় করেন দৈনন্দিন কাজে। আর এই কাজগুলোর মধ্যে রয়েছে রান্নাবান্না। কিন্তু তাদের চাই ঝটপট রান্না। বিভিন্ন ধরনের বৈদ্যুতিক এবং ইলেক্ট্রনিক্স যন্ত্রের কল্যাণে রান্না এখন তাদের কাছে সময়ের ব্যাপারমাত্র।

চলুন আমরা এসব কিচেন অ্যাপলায়েন্স সম্পর্কে কিছু তথ্য জেনে নেই:

রাইস কুকার: স্বল্প সময়ে ভাত রান্নার জন্য এই নবদম্পতির রয়েছে রাইস কুকার। এছাড়াও এতে তারা খিচুড়ি, পোলাও, বিরিয়ানি এবং তেহারিও রান্না করে। রাইস কুকারে পরিমাণমতো উপকরণ দিয়ে সুইচ টিপে দিয়ে তাঁরা অন্যান্য কাজে ব্যস্ত হয়ে যায়। নির্দিষ্ট সময় শেষে স্বংয়ক্রিয়ভাবে তাদের রান্না শেষ হয়ে যায়। রাইস কুকারে রান্না তাদের জন্য ঝামেলাবিহীন এবং এতে খাবার পুড়ে যাওয়ার সম্ভবনা একদমই নেই। এই রাইসকুকারটি তাদের জীবনকে করেছে সহজ। বাজারে সিঙ্গারের বিভিন্ন ধরনের রাইস কুকার পাওয়া যাচ্ছে ১ হাজার ৮০০ থেকে ২ হাজার ৫০০ টাকার মধ্যে।

প্রেশার কুকার: বাসায় অতিথির আগমন। খুব দ্রুতই শেষ করতে হবে রান্নার আয়োজন। এই আয়োজন শেষ করতে এই দম্পতির রয়েছে প্রেশার কুকার। যা অতিরিক্ত তাপ ও চাপ প্রয়োগ করে দ্রুত রান্না করে দেয়। অ্যালুমিনিয়ামের এই আধুনিক হাঁড়িতে সাধারণত গরু কিংবা খাসির মাংস রান্না করা হয়। সিঙ্গারের ৪.৫ লিটার থেকে ৬.৫ লিটার ধারণ ক্ষমতার প্রেশার কুকার বাজারে পাওয়া যাচ্ছে ১ হাজার ৫০০ টাকা থেকে ১ হাজার ৯০০ টাকার মধ্যে।

ব্লেন্ডার: এই গরমে আরাম দেয় ফলের রস। অফিস থেকে বাসায় ফিরে প্রশান্তির জন্য জুস পান করেন দুজনই। কারণ সময় বাঁচিয়ে সহজে এক গ্লাস ফলের রস পান করতে ব্লেন্ডারাই সেরা। এছাড়াও তাদের মসলা বাটার ঝামেলা মিটিয়ে দিয়েছে ব্লেন্ডার। এতে সহজে তাঁরা যেকোনো মসলা ব্লেন্ড করে নিতে পারে। সিঙ্গার ব্র্যান্ডের ব্লেন্ডারের দাম ৪ হাজার ৪০০ থেকে ৬ হাজার ৬০০ টাকা পর্যন্ত।

মাইক্রোওয়েভ ওভেন: আজকাল মাইক্রোওয়েভ ওভেন ছাড়াও রান্নাঘর ভাবাই যায় না৷ চটজলদি খাবার গরম থেকে শুরু করে কিছু রান্নাও তাতে করা চলে। এতে সময় এবং শ্রম দুটোই বাঁচে। অতি ব্যস্ত জীবনে সময় বাঁচাতে তাঁরা ঘরে নিয়ে এসেছে মাইক্রোওয়েভ ওভেন। ৭ হাজার ৩০০ টাকা থেকে ১৬ হাজার ৮০০ টাকার মধ্যে বাজারে সিঙ্গারের মাইক্রোওয়েভ ওভেন পাওয়া যাচ্ছে।

স্যান্ডউইচ মেকার ও টোস্টার: অল্প সময়ে সহজ উপায়ে বিভিন্ন রেসিপি অনুসরণ করে নাস্তা তৈরি করার জন্য স্যান্ডউইচ মেকার ও টোস্টারের জুড়ি মেলা ভার। অফিসে যাওয়ার আগে খুব সহজেই তারা এই সামগ্রীগুলো দিয়ে নাস্তা বানিয়ে খেয়ে যেতে পারে। এদের মতো নতুন দম্পতি যাঁরা রয়েছেন তাঁরা খুব সহজেই এসব কিচেন অ্যাপলায়েন্স ব্যবহারের মাধ্যমে পেতে পারেন ঝটপট রান্নার সহজ সমাধান। পাশাপাশি রান্নাঘরকে সাজিয়ে নিতে পারেন সিঙ্গারের পছন্দের সব কিচেন অ্যাপ্লায়েন্স দিয়ে।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা