প্রথম আয় নিজের পিছনেই খরচ করেছিলাম-রাশেদ মামুন অপু

আগের সংবাদ

চরিত্র নিয়ে খুব একটা ভাবি না-দিলারা জামান

পরের সংবাদ

আপস্টেজের প্রথম নাটক – শাহনাজ জাহান

প্রকাশিত হয়েছে: জুলাই ২০, ২০১৯ , ৪:১৫ অপরাহ্ণ | আপডেট: জুলাই ২০, ২০১৯, ৪:১৫ অপরাহ্ণ

Avatar

বুদ্ধদেব বসুর আলোচিত-সমালোচিত উপন্যাস ‘রাত ভরে বৃষ্টি’। ১৯৬৭ সালে এটি প্রকাশের পর সমাজবিরোধী আখ্যায় আদালত কর্তৃক নিষিদ্ধ হয়েছিল। এমনকি পাণ্ডুলিপি পর্যন্ত ধ্বংসের নির্দেশ দেয়া হয়েছিল। ১৯৬৯-৭৩ পর্যন্ত মামলা চালিয়ে উচ্চ আদালতে গিয়ে খারিজ হয় অভিযোগ। সেই উপন্যাসটিই এবার ঢাকার মঞ্চে অভিনীত হলো। আপস্টেজ মঞ্চে নিয়ে এসেছে নতুন নাটক ‘রাত ভরে বৃষ্টি’। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর নাটক সরণির (বেইলি রোড) মহিলা সমিতির নীলিমা ইব্রাহিম মিলনায়তনে নাটকটির প্রথম মঞ্চায়ন অনুষ্ঠিত হয়।
নাটকের গল্পে দেখা যায়, বিয়ে ও সংসার নামক যৌথ প্রতিষ্ঠানের জটিল পাকচক্রে আবদ্ধ তিন নর-নারীর মনোদৈহিক টানাপড়েনের গল্প ‘রাত ভরে বৃষ্টি’। মধ্যবিত্ত সমাজজীবনে স্বামী-স্ত্রী বা বিবাহিত নারী-পুরুষের দাম্পত্য সম্পর্কেও নানা সূক্ষাতিসূক্ষ্ন জটিলতা, বিশ্বাস-অবিশ্বাসের সংশয়ী প্রকাশও বটে। মণিমালা, অংশু ও তাদের বন্ধু জয়- এখানে শুধুই তিনটি চরিত্র নয় বরং প্রচলিত যৌন নৈতিকতার প্রথাগত মূল্যবোধের সঙ্গে ক্রমাগত লড়ে চলা মানুষও তারা।
নির্দেশক সাইফ সুমন বলেন, ‘কোনোকালেই মানুষ প্রচলিত ধারণার বাইরের কিছুকে সহজভাবে নিতে পারেনি। এখনো কতটুকুইবা পারে? প্রায়োগিক সৌন্দর্য নয়, থিয়েটারের মূল সৌন্দর্য অভিনয়। আর সেটাকেই প্রাধান্য দেয়ার চেষ্টা করেছি এই প্রযোজনায়। পাশাপাশি আছে বুদ্ধদেব বসুর ভাষার সৌন্দর্য। ভালোবাসতে পারাটাই সুখের। বেঁচে থাকাটাই সুখের।’
‘রাত ভরে বৃষ্টি’ নাটকটি নির্দেশনা দিয়েছেন সাইফ সুমন। নাটকটিতে অংশু চরিত্রে অভিনয় করেছেন প্রশান্ত হালদার, জয় চরিত্রে রঞ্জন দে সাথী এবং মণিমালা চরিত্রে অভিনয় করেছেন কাজী রোকসানা রুমা (বটতলা)। নাটকের সঙ্গীত পরিকল্পনা করছেন অসিত কুমার (ঐকিক থিয়েটার), আলোক পরিকল্পনা করছেন অম্লান বিশ্বাস (নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়), পোশাক পরিকল্পনা রুনা কাঞ্চন (তাড়–য়া), মঞ্চ পরিকল্পনা, দলের লোগো, পোস্টার ও প্রকাশনা সাকিল সিদ্ধার্থ।
এই নাটকের মাধ্যমেই ঢাকার নাট্যাঙ্গনে ভিন্ন কিছু করার স্বপ্ন নিয়ে পথচলা শুরু করল থিয়েটারের নতুন প্লাটফর্ম ‘আপস্টেজ’। দলটির প্রধান সমন্বয়ক হিসেবে আছেন প্রশান্ত হালদার। তিনি বলেন, ‘আপস্টেজ একটি নাটকের দল বা প্লাটফর্ম বটে, তবে রেপাটরিও নয়, গ্রæপ থিয়েটার ভিত্তিক দলও নয়- এটি একটি বিকল্প প্রয়াস। এই প্রয়াসের আকাক্সক্ষা নাট্যকর্মীদের মধ্যে দিন দিন বাড়তে থাকবেই। এমনি বিকল্প থিয়েটার বা অল্টারনেটিভ থিয়েটারই হয়তো ভবিষ্যতের কোনো এককালে মূল স্রোত হয়ে দাঁড়াবে। এই বিকল্প পথ খোঁজা, খুঁজে পাওয়া, সেই পথে হাঁটা, পথচলা অব্যাহত রাখা হয়তো একেবারেই সহজসাধ্য নয়, কঠিনই। আমরা ছয়জন মিলে এই দলটির যাত্রা শুরু করেছি। প্রশান্ত হালদার (প্রধান সম্পাদক), সাইফ সুমন (মুখ্য সম্পাদক), সাথী রঞ্জন দে (সম্পাদক-অর্থ), সাকিল সিদ্ধার্থ (সম্পাদক-দপ্তর, প্রচার ও প্রকাশনা), সুমন মজুমদার (সদস্য) ও সরকার জামান (সদস্য)। বিভিন্ন দলের যারা থিয়েটারকে প্রাধান্য দিচ্ছে তাদেরই প্রাধান্য দিয়ে এক বিন্দুতে একত্রিত হয়ে আমরা আমাদের একেকটি প্রযোজনা মঞ্চে আনতে চাই, দর্শকসম্মুখে উপস্থিত করতে চাই প্রযোজনার রকমফের। সামাজিক ও রাজনৈতিক দায় আমাদের বোধে। তারপরও বলতে চাই নির্দিষ্ট নির্ধারিত কোনো বিষয়ে-প্রকরণে-ধরনে আমরা আবদ্ধ নই। আমাদের আবেগে-যুক্তিতে-অনুভবে যা টানবে তাই-ই গ্রহণ করব আমরা। গোটা পৃথিবীটাই আমার। আমাদের। সমাজ-দেশ-পৃথিবীর যে কোনো কিছুই আমাদের নাটকের বিষয় হতে পারে। এ ক্ষেত্রে আমরা উন্মুক্ত থাকতে চাই। তবে মৌলিক, অনুবাদ, রূপান্তরিত নাটক সঙ্গে রেখেও বাংলা কথাসাহিত্যের প্রতি আমাদের বিশেষ দৃষ্টি ও পক্ষপাত আছে। সে পরিপ্রেক্ষিতেই আমাদের প্রথম প্রযোজনা বুদ্ধদেব বসুর উপন্যাস থেকে ‘রাত ভরে বৃষ্টি’।