এনআইডি যাচাই করার গেটওয়ে ‘পরিচয়’ চালু

আগের সংবাদ

দিনাজপুরে ফেল করায় ট্রেনের নিচে আত্মহত্যা

পরের সংবাদ

রোহিঙ্গা নিপীড়নের অভিযোগ

মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় মিয়ানমারের ৪ শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তা

প্রকাশিত হয়েছে: জুলাই ১৭, ২০১৯ , ৫:৪৩ অপরাহ্ণ | আপডেট: জুলাই ১৭, ২০১৯, ৫:৪৩ অপরাহ্ণ

কাগজ প্রতিবেদক

মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গা মুসলমানদের নিপীড়ন, নির্বিচারে হত্যা এবং মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে দেশটির সামরিক বাহিনীর কমান্ডার ইন চিফ মিন আং লাইংসহ চার শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

নিষেধাজ্ঞার অংশ হিসেবে এসব সামরিক কর্মকর্তা, এমনকি তাদের পরিবারের সব সদস্য যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করতে পারবেন না। একইসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের কোনো প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে লেনদেনও করতে পারবেন না। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে তাদের কোনো সম্পত্তি থাকলে, তাও বাজেয়াপ্ত হয়ে যাবে।

সামরিক বাহিনীর প্রধান এবং সেনাপ্রধান সিনিয়র জেনারেল মিন আং লাইং ছাড়া বাকি যে তিনজন এই নিষেধাজ্ঞায় পড়েছেন, তারা হলেন- দেশটির সেনাবাহিনীর উপ প্রধান জেনারেল সো উইন, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল থান ও এবং ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আং আং।

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) নিষেধাজ্ঞা আরোপের পর যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বিবৃতিতে বলেন, রোহিঙ্গা নিপীড়ন, হত্যা ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের জন্য যারা অভিযুক্ত, তাদের বিচারের আওতায় আনেনি মিয়ানমার। এমনকি কোনো উদ্যোগই নেয়নি দেশটি। এটা উদ্বিগ্নের বিষয়। এছাড়া মিয়ানমারের সেনাবাহিনী সারাদেশেই মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে বলে আমাদের কাছে তথ্য আছে। তাই আমরা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছি। আমরাই প্রথম কোনো দেশ যে, মিয়ানমার সামরিক কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছি।

নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণায় যুক্তরাষ্ট্র মিয়ানমারের আগের নাম, যে নামে এখনও দেশটি বেশি পরিচিত, সেটি- ‘বার্মা’ ব্যবহার করে।