সাকিব-মুস্তাফিজ ও নোবেলরা জাতিকে পথ দেখাচ্ছে

আগের সংবাদ

কক্সবাজারে সৈকতের সুগন্ধা পয়েন্ট থেকে ছয়জনের মরদেহ উদ্ধার

পরের সংবাদ

বৃষ্টি বাগড়ায় রিজার্ভ ডে’তে গড়াল ভারত- কিইউ ম্যাচ

খেলা প্রতিবেদক :

প্রকাশিত হয়েছে: জুলাই ১০, ২০১৯ , ১২:১০ পূর্বাহ্ণ

ভারত-নিউজিল্যান্ড ম্যাচ মানেই যেন বৃষ্টি বাগড়া। দুদলের মধ্যকার লিগ পর্বের ম্যাচটিও বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়েছিল। গতকাল ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে এ দু দলের সেমিফাইনাল ম্যাচ বৃষ্টির বাগড়ার রিজার্ভ ডে’তে গড়িয়েছে ম্যাচ। আজ বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৩টায় ফের মাঠে নামছে বিরাট কোহলি ও কেন উইলিয়ামসন বাহিনী। গতকাল নিউজিল্যান্ডের ব্যাটিংয়ের ৪৭তম ওভারে নেমে আসে বৃষ্টি। ফলে স্টাম্প থেকে বেল নামিয়ে খেলা সাময়িকভাবে স্থগিত ঘোষণা করে তড়িঘড়ি করে মাঠ ছাড়েন আম্পায়াররা। আর ক্রিকেটাররা ফেরেন প্যাভিলিয়নে। ৪৬.১ ওভার শেষে কেন উইলিয়ামসনের দলের সংগ্রহ তখন ৫ উইকেটে ২১১ রান। সে সময় রস টেইলর ৬৭ ও টম লাথাম ৩ রানে ব্যাট করছিলেন। দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করার পর গতকাল বৃষ্টি না থামায় স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টা ৩০ মিনিট বাংলাদেশ সময় রাত ১১টা ৩০ মিনিটে ম্যাচটি স্থগিতের ঘোষণা আসে। ফলে মঙ্গলবারের ম্যাচ গড়াচ্ছে বুধবারে। মোদ্দা কথা দুই দলের ফাইনাল ভাগ্য আজ নিধার্রিত হবে। এক দল বিদায় নেবে। অন্য দল যাবে ফাইনালে। কিউইরা আজ অবশিষ্ট ২৩ বল খেলতে নামবে। তার পর তাদের ছুড়ে দেয়া চ্যালেঞ্জের জবাবে ব্যাট করবে রবিশাস্ত্রীর শিষ্যরা। নতুন দিনে ম্যাচ শুরু হওয়ায় ভারতের জন্যে কল্যাণকরই হয়েছে। গতকাল বৃষ্টি থেমে ম্যাচ শুরু হলে খেলার দৈর্ঘ্য কমে যেত। সেক্ষেত্রে কোহলিদের জন্য রান তাড়ার ব্যাপারটা একটু বড় হতে পারত। এখন কিউইদের মামুলি টার্গেটের জবাবে দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের হেসেখেলে ফাইনালের টিকেট পাওয়ার সম্ভাবনা উজ্জ্বল হয়েছে।
এবারের বিশ^কাপে লিগ পর্বের চারটি ম্যাচ বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়েছে, যা আগের আসরগুলোর তুলনায় সর্বোচ্চ। অবশ্য বৃষ্টি বাগড়ার বিষয়টি বিবেচনায় রেখে সেমিফাইনাল ও ফাইনাল ম্যাচে রিজার্ভ ডে রেখেছে আইসিসি। সে হিসেবে ভারত-নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার সেমিফাইনালের ম্যাচটি বৃষ্টিতে ভেস্তে যাওয়ার সম্ভাবনা ছিল না। আর যদি কোনো কারণে ম্যাচ না হয় সেক্ষেত্রে লিগ পর্ব শেষে পয়েন্ট টেবিলে এগিয়ে থাকায় ফাইনালের টিকেট পাবে বিরাট কোহলির দল।
ভারতকে হারিয়ে ২০১৫ সালের পর টানা দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলার লক্ষ্য নিয়ে গতকাল সেমিতে খেলতে নামে নিউজিল্যান্ড। ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্র্যাফোর্ড স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন কিউই দলপতি কেন উইলিয়ামসন। ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের অতীত ইতিহাস ঘাটলে দেখা যায় এখানে আগে ব্যাটিং করে ম্যাচ জেতার সংখ্যা বেশি। সেমিফাইনালের আগ পর্যন্ত এই বিশ্বকাপেরই পাঁচটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে এই মাঠে। আর সবগুলোতেই আগে ব্যাটিং করা দল জয়লাভ করেছে। এই মাঠে নিউজিল্যান্ড লিগ পর্বের ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েছে। আর ভারত হারিয়েছে পাকিস্তান ও ওয়েস্ট উইন্ডিজকে। তাই উইলিয়ামসনও টসে জিতে কোনো প্রকার চিন্তা-ভাবনা না করেই আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন।
পুরো বিশ্বকাপজুড়ে ব্যাটিংয়ে ধুঁকতে থাকা ওপেনার মার্টিন গাপটিলকে গতকালও একাদশে রাখা হয় এবং আগের দিনগুলোর মতো তিনি আবার ব্যর্থ হন। নিজের নামের সঙ্গে লেগে থাকা হার্ডহিটার তকমার কোনো সুবিচার তিনি করতে পারেননি। তবে গাপটিলকে ব্যাটিং ব্যর্থতার জন্য পুরোপুরি দোষারোপ করা যায় না। কারণ অন্যদিনগুলোতে এই মাঠে ভালো রান উঠলেও গতকালের উইকেট ছিল বেশ স্লো। রান তুলতে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছিলেন কিউই ব্যাটসম্যানরা। প্রথম ১০ ওভারে আসে মাত্র ২৭ রান। ভারতীয় পেসারদের বলেও ছিল গতির অভাব। তবে মাত্র এক রানে প্রথম উইকেট হারিয়ে ব্ল্যাকক্যাপসরা চাপে পড়লেও তা কাটিয়ে উঠতে হাল ধরেন ঠাণ্ডা মাথার ক্রিকেটার কেন উইলিয়ামসন। তাকে কিছুক্ষণ সঙ্গ দেন ওপেনার হেনরি নিকোলস। ব্যক্তিগত ২৮ রানে সাজঘরে ফেরার আগে নিকোলস ৬৮ রানের জুটি গড়েন উইলিয়ামসনের সঙ্গে। অন্যপ্রান্ত আগলে রেখে খেলে যেতে থাকেন উইলিয়ামসন। কিন্তু কোনোভাবেই রানের গতি আর বাড়াতে পারছিলেন না। একটা সময় গতি বাড়ানোর চেষ্টা করলেও ভারতীয় স্পিনার যুবেন্দ্র চাহালের স্লোয়ার বলে ক্যাচ হয়ে সাজঘরে ফেরেন কিউই দলপতি। তিনি আউট হলেও বর্তমানে দলের সবচেয়ে সিনিয়র ও অভিজ্ঞ খেলোয়াড় রস টেইলর দায়িত্বশীলতার সঙ্গেই ব্যাট করতে থাকেন। তবে নিউজিল্যান্ডের ইনিংস শেষ হতে যখন আর ৩.৫ ওভার বল বাকি তখন বৃষ্টি এসে বাগড়া দেয়।
ভারতের পক্ষে ভুবনেশ্বর কুমার, জাসপ্রিত বুমরাহ, যুবেন্দ্র চাহাল, হার্দিক পান্ডিয়া ও রবীন্দ্র জাদেজা প্রত্যেকেই ১টি করে উইকেট নেন।