শিল্প-কারখানা ধ্বংস হয়ে যাবে : শফিউল ইসলাম

আগের সংবাদ

জম্মু-কাশ্মীরের যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে নিহত ৩৩

পরের সংবাদ

বিতরণে দুর্নীতির বোঝা জনগণের কাঁধে : গোলাম রহমান

প্রকাশিত হয়েছে: জুলাই ১, ২০১৯ , ১১:২৬ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: জুলাই ১, ২০১৯, ১১:২৬ পূর্বাহ্ণ

Avatar

পেট্রোবাংলা ও তিতাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দুর্নীতির কারণে গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রয়োজনীয়তা দেখা দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন কনজুমার এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) সভাপতি গোলাম রহমান। গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রতিক্রিয়ায় গতকাল রবিবার ভোরের কাগজকে তিনি এ কথা বলেন। এ সময় তিনি বলেন, গ্যাসের দাম বাড়ানোর কারণে এর নেতিবাচক প্রভাব সবখানেই পড়বে। সব ধরনের পণ্যের দাম বাড়বে। গণপরিবহনের ভাড়া বাড়বে। জনজীবনে নাভিশ্বাস উঠবে।
দাম বৃদ্ধি নিয়ে উচ্চ আদালতের পর্যবেক্ষণের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, উচ্চমূল্যে এলএনজি আমদানির কারণে গ্যাসের দাম বাড়বে এটা আমাদের প্রত্যাশা ছিল। তবে অতিরিক্ত বাড়ানো হয়েছে। গ্যাসের দাম বাড়ানোর বিষয়ে একটি রিট ছিল সেখানে আদালতের কিছু পর্যবেক্ষণ ছিল। কিন্তু দাম বাড়ানোর আগে তার কোনো কিছুই বিবেচনায় নেয়া হয়নি। প্রসঙ্গত, এ বছরের ৩১ মার্চ ক্যাবের এক রিটের শুনানিতে গ্যাসের দাম বাড়ানোর বিষয়ে উচ্চ আদালত পর্যবেক্ষণে বলেন, পেট্রোবাংলা ও তিতাসের দুর্নীতির ৫০ ভাগও যদি কমানো যায় তাহলে গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রয়োজন পড়বে না। আদালত এই দুই প্রতিষ্ঠানের দুর্নীতির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেয়ায় দুর্নীতি দমন কমিশনেরও (দুদক) সমালোচনা করেন।
গোলাম রহমান আদালতের পর্যবেক্ষণের কথা উল্লেখ করে বলেন, পেট্রোবাংলাসহ গ্যাস বিতরণ কোম্পানিগুলো অযোগ্যতা, অনিয়ম আর দুর্নীতির বোঝা সাধারণ জনগণের ঘাড়ে পড়ল। এটা কোনোভাবেই কাম্য নয়। গোলাম রহমান আরো বলেন, ২০১০ সালের আইনে গ্যাসের বিতরণ ও সঞ্চালন সংক্রান্ত প্রবিধান মালায় গ্যাসের দাম বৃদ্ধির ক্ষেত্রে কতগুলো সুনির্দিষ্ট প্রক্রিয়া অনুসরণের কথা বলা আছে। কিন্তু এসব প্রক্রিয়া অনুসরণ না করেই অযৌক্তিকভাবে গ্যাসের দাম বাড়ানো হয়েছে। কোনো একটি বিশেষ মহলকে সুবিধা দেয়ার জন্য এ দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে। ভোক্তা বা সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করা হয়নি।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা