খানিক লম্বা চুলে...

আগের সংবাদ

বিদেশে চাকরি করার আগে

পরের সংবাদ

বায়োডাটার সঠিক টেমপ্লেট নির্বাচন করবেন যেভাবে

প্রকাশিত হয়েছে: জুন ২৩, ২০১৯ , ৩:৪২ অপরাহ্ণ | আপডেট: জুন ২৩, ২০১৯, ৩:৪২ অপরাহ্ণ

Avatar

চাকরি খোঁজাও এক ধরনের চাকরি। এমনকি বলা যায়, এই চাকরি নিয়োগপত্র পাওয়া চাকরির চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ। কেননা এই চাকরির সাফল্যের উপর নির্ভর করে সত্যিই কোনো চাকরির নিয়োগপত্র পাবেন কিনা। এই চাকরি খোঁজা প্রক্রিয়ার প্রথম ধাপ হলো নিজের জীবনবৃত্তান্ত তৈরি করা। আবার চাকরি প্রাপ্তির ক্ষেত্রেও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হলো আপনার জীবনবৃত্তান্ত। কেননা নিয়োগকারীরা সর্বপ্রথম আপনার জীবনবৃত্তান্ত হাতে পায়।
সুতরাং আপনার জীবনবৃত্তান্ত প্রথম দর্শনেই যদি নিয়োগকর্তার মনে দাগ কাটতে না পারে, তবে আপনার আবেদনটি বাতিল হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আবেদন বাতিল হয়ে গেলে আপনার যাবতীয় দক্ষতা ও যোগ্যতা মূল্যহীন হয়ে পড়ে। সুতরাং কাক্সিক্ষত চাকরি প্রাপ্তির জন্য আকর্ষণীয় বায়োডাটা তৈরি করা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। বায়োডাটা তৈরির ক্ষেত্রেও নানা দিকে খেয়াল রাখতে হয়। তবে সর্বপ্রথম কাজ হলো একটি উপযুক্ত টেমপ্লেট নির্বাচন করা। এই কাজ সহজ করতে আজকের ফিচারে বায়োডাটার বিভিন্ন টেমপ্লেট নিয়ে থাকছে আলোচনা।

বিবেচ্য বিষয়াবলী : বায়োডাটার জন্য সঠিক টেমপ্লেট নির্বাচনের সময় নানান বিষয় বিবেচনা করতে হয়। তবে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, আপনার এই বায়োডাটার পাঠক বা পর্যবেক্ষক কে হবে তা বিবেচনা করা। অর্থাৎ আপনার নিয়োগকারী কে? এ ছাড়াও, বিবেচনা করতে হবে, টেমপ্লেটটি আপনার সব দক্ষতা ও যোগ্যতা উপস্থাপন করে কিনা? আপনি যে চাকরির জন্য আবেদন করছেন সেই চাকরির উপযুক্ত তথ্যগুলো এই টেমপ্লেট ধারণ করতে পারে কিনা?
আপনি নিজেকে যেভাবে উপস্থাপন করতে চান, এই টেমপ্লেট তা পারে কিনা? এই টেমপ্লেট আপনার ব্যক্তিত্ব উপস্থাপন করে কিনা? এই টেমপ্লেট আপনার নিয়োগকারীর প্রত্যাশা এবং আপনার ব্যক্তিত্বের সমন্বয় করে কিনা? তবে সবচেয়ে বুদ্ধিমানের কাজ হলো ভিন্ন ভিন্ন চাকরির আবেদনের জন্য ভিন্ন ভিন্ন টেমপ্লেট ব্যবহার করা। কেননা একই টেমপ্লেট সব চাকরি আবেদনের মেজাজ ধারণ করে না। যেমন আপনি যদি ঐতিহ্যবাহী এবং বড় কোনো কর্পোরেট হাউসে চাকরির জন্য আবেদন করেন, তবে আপনার বায়োডাটা খুব বেশি ঝলমলে না হয়ে সাধারণ হওয়াই ভাল। আবার যদি আপনি কোনো কর্পোরেট হাউসে আবেদন না করে কোনো সৃজনশীল ক্ষেত্রে আবেদন করেন তাহলে আপনার বায়োডাটার টেম্পলেটটি ওই প্রতিষ্ঠানের মেজাজের অনুরূপে সাজানোই উত্তম। এ ছাড়াও, টেমপ্লেটের রং, ডিজাইন এবং মেজাজ পরিবর্তন করার জন্য গ্রাফিক্স ডিজাইনের ভূমিকা আছে।

টেমপ্লেটের প্রকারভেদ : আপনি যদি বায়োডাটার টেমপ্লেট নির্বাচনের জন্য ইন্টারনেটে সার্চ করেন, তাহলে বিভিন্ন ধরনের টেমপ্লেট পাবেন। কিন্তু মনে রাখবেন, টেমপ্লেট মূলত চার প্রকার।
এক. ঐতিহ্যগত টেমপ্লেট : আপনি যদি ঐতিহ্যগত বা কোনো বড় কর্পোরেট হাউসে চাকরির জন্য আবেদন করেন তবে আপনার আবেদনের টেমপ্লেটটি খুবই সাধারণ রাখুন। ঝকঝকে এবং পরিষ্কারভাবে তথ্যগুলো উপস্থাপন করুন। ঐতিহ্যগত টেমপ্লেটে কোনো বিশেষ রং বা ডিজাইন থাকে না। এক কথায় পেশাদারভাবে আপনার দক্ষতা ও যোগ্যতা টেমপ্লেটে উপস্থাপন করুন।

দুই. আধুনিক টেমপ্লেট : বায়োডাটার আধুনিক টেমপ্লেট অনেকটা ঐতিহ্যগত টেমপ্লেটের মতো। তবে ঐতিহ্যগত টেমপ্লেটে কোনো বিশেষ রং এবং ডিজাইন না থাকলেও আধুনিক টেমপ্লেটে বিশেষ রং এবং ডিজাইন থাকে। এই রং এবং ডিজাইন খুব সামান্য পরিমাণে। ঐতিহ্যগত টেমপ্লেটের মতো এই টেমপ্লেটও দেখতে পেশাদার এবং স্মার্ট। আধুনিক টেমপ্লেটও আপনার ব্যক্তিত্ব ফুটিয়ে তোলে কিন্তু সঙ্গে কিছুটা সৃজনশীলতার প্রকাশ ঘটায়। বলার অপেক্ষা রাখে না, বর্তমান চাকরির বাজারে এগিয়ে থাকতে হলে আপনাকে যেমন যোগ্যতা ও ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন হতে হবে, তেমনি হতে হবে সৃজনশীল।
সুতরাং বর্তমান সময়ে যে কোনো চাকরির আবেদনে ব্যবহার উপযোগী আদর্শ টেমপ্লেট হলো আধুনিক টেমপ্লেট। আপনি চাইলে আপওয়ার্ক কালেকশন থেকেও আধুনিক টেমপ্লেটের নমুনা দেখে নিতে পারেন।

তিন. সৃজনশীল টেমপ্লেট : আপনি যদি বায়োডাটায় নিজের সৃজনশীলতা প্রদর্শন করতে চান, তাহলে আপনাকে অবশ্যই সৃজনশীল টেম্পলেট বেছে নিতে হবে। সাধারণত সৃজনশীল কোনো ক্ষেত্রে চাকরির জন্য এই টেমপ্লেট ব্যবহার করা উত্তম। যেমন গ্রাফিক্স ডিজাইন। কোনো প্রতিষ্ঠানে গ্রাফিক্স ডিজাইনার হিসেবে যোগ দেয়ার জন্য বায়োডাটা পাঠালে অবশ্যই আপনার বায়োডাটা গ্রাফিক্স ডিজাইনের মাধ্যমে সৃজনশীল করে তুলুন। তবে সৃজনশীল ডিজাইন করতে গিয়ে বায়োডাটার মূল বিষয়বস্তু, আপনার বিস্তারিত ব্যক্তিগত তথ্য উপস্থাপন করতে ভুলে যাবেন না।
তাছাড়া এ জাতীয় টেমপ্লেট ব্যবহারের পূর্বে আপনার নিয়োগকর্তাদের ব্যাপারে ভালোভাবে নিশ্চিত হয়ে নিন। আপনার নিয়োগকর্তারা যদি সৃজনশীল ক্ষেত্রের মানুষ না হয়ে থাকেন তাহলে এই জাতীয় টেমপ্লেট পাঠানো বুদ্ধিমানের কাজ হবে না।

চার. শ্রী হীন টেমপ্লেট : আপনি হয়তো অভিনব কিছু করতে চাইছেন। গতানুগতিক সব নিয়ম নীতি ভেঙ্গে অভিনব উপায়ে নিজের বায়োডাটা তৈরি করতে চাইছেন। যদি মজা করার জন্য বা বাচ্চাদের কোনো কার্যক্রমে যুক্ত হওয়ার জন্য বায়োডাটা তৈরি করে থাকেন তাহলে আপনি যেমন খুশি বায়োডাটা তৈরি করতে পারেন।
আপনার এই যেমন খুশি তৈরি করা বায়োডাটার টেমপ্লেটকে শ্রীহীন টেমপ্লেট বলা হয়। আসলে বেশিরভাগ মানুষ নিজের অজান্তেই বায়োডাটা তৈরির জন্য শ্রীহীন টেমপ্লেট বেছে নেয়। অধিকাংশ মানুষের বায়োডাটার টেমপ্লেটে থাকে না কোনো তথ্যের সমন্বয়, থাকে না সঠিক রঙের সমন্বয়। এমনকি লেখার ফরমেটও ঠিক থাকে না।
এই জাতীয় অদ্ভুত টেমপ্লেট নির্বাচন করার আগে মাথায় রাখুন, আপনার এই বায়োডাটা দেখেই নিয়োগকর্তা আপনাকে প্রাথমিকভাবে নির্বাচন করবে। সুতরাং ভেবে দেখুন উপরে আলোচিত ফরমেটগুলোর মধ্যে থেকে ঠিক কোন টেমপ্লেটটি আপনার বেছে নেয়া উচিত।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা