সংস্কারের প্রতিশ্রুতি ও রাজনৈতিক বাস্তবতা

আগের সংবাদ

তামিমের হাফসেঞ্চুরি

পরের সংবাদ

এবার সাজঘরে সাকিব

প্রকাশিত হয়েছে: জুন ২০, ২০১৯ , ৯:৪৮ অপরাহ্ণ | আপডেট: জুন ২০, ২০১৯, ৯:৫১ অপরাহ্ণ

Avatar

বিশাল লক্ষ্যে ব্যাটিং নেমে শুরুতেই ধাক্কা বাংলাদেশের। ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউটে প্যাভিলিয়নে ফিরে গেছেন সৌম্য সরকার। আগের ওভারে মিচেল স্টার্ককে টানা দুই চার মেরেছিলেন সৌম্য সরকার। পরের ওভারে রান আউট হয়ে ফিরলেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। ৮ বলে ২ চারে সৌম্য করেন ১০ রান।

সৌম্য ফেরার পর সাকিব-তামিম জুটিতে অনেকখানি এগিয়েছে বাংলাদেশ। দুজনের জুটিতে এসেছে ৭৯ রান। দলীয় ১০২ রানে স্টোনিসের বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ম্যক্সওয়েলের তালুবন্দী হন সাকিব। ফেরার আগে ৪১ বলে ৪ চারে ৫১ রান তুলেন সাকিব।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ১৯.২ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২ উইকেটে ১১১ রান। ক্রিজে আছেন তামিম ও মুশফিক।

বিশ্বকাপের সেমি ফাইনালের স্বপ্নে এগিয়ে চলা টাইগারদের প্রতিপক্ষ আজ অস্ট্রেলিয়া। টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন অজি দলপতি অ্যারন ফিঞ্চ। ওয়ার্নারের সেঞ্চুরি ও খাজা-ফিঞ্চের ঝড়ো অর্ধশতকে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ৩৮১ রান। জিততে হলে এই পাহাড়সম রান টপকাতে হবে টাইগারদের। বাংলাদেশের টার্গেট ৩৮২ রান।

শুরু থেকে সাবধানী খেললেও সময়ের সাথে সাথে খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসে ওয়ার্নার-স্মিথ। শতরানের উদ্বোধনী জুটিতে অস্ট্রেলিয়াকে দারুণ সূচনা এনে দিয়েছেন তারা। ৯৯ বলে ছুঁয়েছে জুটির সেঞ্চুরি।

নতুন বলে বোলিং শুরু করেছিলেন মাশরাফি বিন মর্তুজা ও মোস্তাফিজুর রহমান। পরে রুবেল হোসেন, সাকিব আল হাসান, মেহেদী হাসান মিরাজকে আক্রমণে এনেও জুটি ভাঙতে পারেনি বাংলাদেশ। অবশেষে ২১ তম ওভারে সৌম্যকে বোলিংয়ে আনেন অধিনায়ক মাশরাফি। নিজের ওভারের শেষ বলে সৌম্যের শর্ট বলে রুবেলের ক্যাচ হয়ে ফিরেছেন ফিঞ্চ। এতে জুটি ভেঙেছে ১২১ রানের। ৫১ বলে ৫ চার ও ২ ছক্কায় ফিঞ্চের ব্যাট থেকে আসে ৫৩ রান।

ব্যক্তিগত ১০ রানে জীবন পেয়েছিলেন ওয়ার্নার। সেই ওয়ার্নার ১১০ বলে তুলে নিলেন তার ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ১৬তম শতক। চলতি বিশ্বকাপে ওয়ার্নারের টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরি এটি। এই সেঞ্চুরিতে ওয়ার্নার স্পর্শ করলেন ইংল্যান্ডের জো রুট, নিউজিল্যান্ডের মার্টিন গাপটিল, নাথান অ্যাস্টল এবং অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডাম গিলক্রিস্টকে। ওয়ার্নারের পর নিজের ১১তম ফিফটি তুলে নিয়েছেন উসমান খাজা। ৫০ বলে এসেছে তার এই ফিফটি।

দুর্দান্ত সেঞ্চুরির পরও ব্যাট হাতে বাংলাদেশের বোলারদের কচুকাটা করছিলেন অজি ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার। তবে ব্যক্তিগত ১৬৬ রানের মাথায় সৌম্য সরকারের বলে রুবেল হোসেনের হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নিয়েছেন।

ক্রিজে এসেই হাত খুলে মারতে থাকেন অজি অলরাউন্ডার ম্যাক্সওয়েল। রুবেল হোসেনকে মেরেছিলেন দুটি চার, দুটি ছক্কা। পরের ওভারে সৌম্য সরকারের প্রথম বলেই ছক্কা। এর পরের বলেই ফেরেন রান আউট হয়ে। মাত্র ১০ বলে ২ চার ও ৩ ছক্কায় ৩২ রান করেন ম্যাক্সওয়েল।

ম্যাক্সওয়েলের বিদায়ের পর একই ওভারে ফেরেন উসমান খাজা। উইকেটের পেছনে মুশফিকের গ্লাভসবন্দি হওয়ার আগে ৭২ বলে ১০টি বাউন্ডারিতে করেন ৮৯ রান। পরের ওভারে মোস্তাফিজের বলে এলবির ফাঁদে পড়েন স্টিভ স্মিথ। রিভিউ নিয়ে বাঁচতে পারেননি ১ রান করা সাবেক এই অজি দলপতি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দারুণ জয় পেলেও নিজেদের পরবর্তী ম্যাচে উইনিং কম্বিনেশন ভাঙতে হলো বাংলাদেশকে। কেননা ইনজুরির কারণে দলের দুই অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈতক ছিটকে গেছেন। তাদের পরিবর্তে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ফিরেছেন পেসার রুবেল হোসেন ও হার্ডহিটার ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমান।

এদিকে অজিদের দলে এসেছে তিনটি পরিবর্তন। শন মার্শ, কেন রিচার্ডসন, জেসন বেহরনডর্ফ এর পরিবর্তে দলে সুযোগ পেয়েছেন মার্কাস স্টোইনিস, নাথান কোল্টার-নাইল ও অ্যাডাম জাম্পা।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা