ভেনিজুয়েলার পশ্চিমে বাস দুর্ঘটনায় অন্তত ১৮ জন নিহত

আগের সংবাদ

প্রায় পাঁচ হাজার অ্যাকাউন্ট সরালো টুইটার

পরের সংবাদ

ভার্মিনটাইড ২

প্রকাশিত হয়েছে: জুন ১৭, ২০১৯ , ১:৫৮ অপরাহ্ণ | আপডেট: জুন ১৭, ২০১৯, ১:৫৮ অপরাহ্ণ

Avatar

পিসি গেমারদের মধ্যে ‘লেফট ফর ডেড’ অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি সিরিজ। নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ভালভের অবশ্য এ সিরিজে নতুন কোনো গেম তৈরির সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। তবে সে ভক্তদের কথা চিন্তা করেই আরেক গেম নির্মাতা ফ্যাটশার্ক তৈরি করছে ‘ভার্মিনটাইড’ সিরিজের গেমগুলো। একসঙ্গে চার বন্ধু মিলে খেলা যায় কো-অপ সার্ভাইভাল ঘরানার গেমটি। কাহিনি, চরিত্র ও গেমের সেটিং নেয়া হয়েছে জনপ্রিয় গেম সিরিজ ওয়ারহ্যামার থেকে।

খেলতে যা যা প্রয়োজন

৬৪ বিট উইন্ডোজ ৭ অপারেটিং সিস্টেম
ইন্টেল কোর আই৫ বা এএমডি এফএক্স ৪০০০ সিরিজ প্রসেসর
৬ গিগাবাইট র‌্যাম
এনভিডিয়া জিটিএক্স ৪৬০ বা এএমডি রেডিওন এইচডি ৫৮৭০ জিপিউ
ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট
অন্তত ৬৫ গিগাবাইট জায়গা

বয়স
গেমটি প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য।

‘ভার্মিনটাইড ২’ এর শুরুতে দেখা যাবে, প্রথম গেমের হিরোরা চেষ্টা করছে প্রায় ধ্বংস হয়ে যাওয়া দুনিয়ায় টিকে থাকতে। মূলত হিরোদের একটি নিরাপদ আশ্রয় খুঁজে পাওয়ার চেষ্টাই গেমটির মূল কাহিনী। এতে আছে ১৩টি মিশন, পরে যোগ হয়েছে আরো দুটি ডিএলসি মিশন। শুধু তাই নয়, এ বছর প্রকাশ পেতে পারে আরো কিছু মিশন। গেমের মূল শত্রæ স্কাগেন, যাদের ইঁদুর-মানব বলা যেতে পারে। স্কাগেনদের সাহায্য করতে হাজির হয়েছে রটবøাডস। এদের আচরণ অনেকটা লেফট ফর ডেডের জোম্বিদের মতোই। গেমের এলাকাগুলো ওয়ারহ্যামার দুনিয়ার হওয়ায় অনেক গথিক বিল্ডিং, অন্ধকার ভূতুড়ে অলিগলি এবং জাদুবিদ্যা আছে এ গেমে। খেলার জন্য বেছে নেয়া যাবে পাঁচ ধরনের হিরো।
প্রতিটি হিরোর ক্লাসের মধ্যে আছে ১৫টি করে ক্যারিয়ার, প্রতিটি ক্যারিয়ারের জন্য আছে আলাদা করে স্কিল বা দক্ষতা ও অস্ত্র। মিশনগুলোর মধ্যে খুঁজে পাওয়া যাবে বেশ কিছু নতুন স্কিল। একই মিশন বারবার খেলেও পাওয়া যাবে নতুন কিছু জিনিসপত্র। প্রতিবার খেলার সময় একই ম্যাপে ম্যাচ হতে পারে ভিন্ন রকম, যেমনটা লেফট ফর ডেড গেমে দেখা গেছে। একা খেলার উপায় থাকলেও ‘ভার্মিনটাইড ২’-এর মূল মজা বন্ধুদের সঙ্গে দলবদ্ধভাবে খেলা। একে অপরকে সাহায্য না করে কোনোভাবেই গেমটি শেষ করা সম্ভব নয়। স্কাগেনদের মধ্যে একা এগিয়ে গেলে মৃত্যু অবধারিত। তবে একজন আরেকজনকে বাঁচিয়ে মিশনে এগোনো যাবে। কোনো ইন-অ্যাপ পারচেস না থাকায় টাকা-পয়সা খরচ করে গেমটি জেতার কোনো উপায় নেই। গ্রাফিকসে গেমটি বেশ এগিয়ে আছে।
এক গাদা শত্রু একত্রে হামলা করলে তাদের বিরুদ্ধে লড়াই করার উত্তেজনা ভোলার নয়। গেমটির প্রতিটি চরিত্রকে ১৫টি করে ক্যারিয়ার শেষ করতে হবে। আর এটা করতে বেশ সময় লাগবে, ফলে গেমটি পুরনো বা চট করে শেষ হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। সেদিক থেকে কিছু মোবাইল গেমের সঙ্গে এর মিল আছে। আরেকটি নজরে পড়ার মতো বিষয়, চরিত্রগুলোর মধ্যকার কথোপকথন। বেশির ভাগ সময় তারা একে অপরের সঙ্গে কৌতুক করা বা সাবধান করায় ব্যস্ত থাকে। ফলে এই গেমে দলবদ্ধভাবে খেলার আবহ পাওয়া যাবে ‘লেফট ফর ডেডে’র চেয়েও বেশি।
শুধু আগ্নেয়াস্ত্র নয়, তলোয়ার, কুড়াল এবং তীর-ধনুকও গেমটিতে দেয়া হয়েছে। সব অস্ত্রে অভ্যস্ত হওয়াটাও বেশ কঠিন। সব মিলিয়ে গেমটি গত বছর সেরা কো-অপারেটিভ শুটার গেমের পুরস্কারখানা বাগিয়ে নিয়েছে। এটি পিসি ছাড়াও প্লেস্টেশন ৪ এবং এক্সবক্স ওয়ানেও খেলা যাবে।