বাজেটকে বাজেট হিসেবে দেখা দরকার

আগের সংবাদ

যেভাবে গ্রেপ্তার হলেন ওসি মোয়াজ্জেম

পরের সংবাদ

পাকিস্তানকে ৩৩৭ রানের টার্গেট ভারতের

প্রকাশিত হয়েছে: জুন ১৬, ২০১৯ , ৮:৫৭ অপরাহ্ণ | আপডেট: জুন ১৬, ২০১৯, ৮:৫৮ অপরাহ্ণ

অনলাইন প্রতিবেদক

ভারত চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের বিপক্ষে ৫০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩৩৬ রান সংগ্রহ করেছে। বিশ্বকাপের ২২তম ম্যাচে রবিবার (১৬ জুন) ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ড ক্রিকেট গ্রাউন্ডে টস জিতে ভারতকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ।

শুরু থেকে পাকিস্তানি বোলারদের ওপর চওড়া হয়ে খেলতে থাকেন দুই ওপেনার রোহিত শর্মা এবং লোকেশ রাহুল। ৩৪ বলে ফিফটি স্পর্শ করেন রোহিত। অন্য পাশে সুযোগ পেয়ে বিশ্বকাপের প্রথম হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন রাহুল। দু’জনে করেছেন ১৩৬ রানের জুটি। যা বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে যে কোনো উইকেটে জুটিতে সর্বেোচ্চ রানের রেকর্ড।

রোহিত-রাহুলের জুটি ভাঙেন ওহাব রিয়াজ। ৫৭ রানে বাবর আজমের হাতে বন্দী হয়ে সাজঘরে ফেরেন রাহুল। তবে রানের চাকা সচল রাখেন রোহিত। ৪৩তম ফিফটিকে ক্যারিয়ারের ২৪তম সেঞ্চুরি বানান তিনি। ৮৫ বলে পৌঁছান ১০০ রানের ঘরে। ২০১৯ বিশ্বকাপে রোহিতের এটি দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১২২ রানে অপরাজিত ছিলেন রোহিত।

রোহিতকে সঙ্গ দেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। দলীয় ২৩৪ রানে বিচ্ছিন্ন হওয়ার আগে দু’জনে করেন ৯৮ রানের জুটি। ১১৩ বলে ১৪০ রান করা রোহিতকে সাজঘরে ফেরান হাসান আলী। তার ইনিংসটি সাজানো ছিল ১৪ চার ও ছক্কায়।

হার্দিক পাণ্ডিয়াকে নিয়ে ভারতকে বড় সংগ্রহের পথে নিয়ে যান কোহলি। দলীয় ২৮৫ রানের মাথায় মোহাম্মদ আমিরের বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে ২৬ রানে পাণ্ডিয়া তালু বন্দী হোন বাবরের হাতে। এর পরপরই মহেন্দ্র সিং ধোনিকে (১) ফেরান আমির।

প্রথম দিকে না পারলেও শেষ দিকে বল হাতে জ্বলে ওঠার চেষ্টা করে পাকিস্তান। কিন্তু ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে গেছে। ভারত পেরিয়ে যায় ৩০০ রান। তবে ৪৬.৪ ওভারের সময় বৃষ্টি আসায় সাময়িক বন্ধ ছিল ম্যাচ। পরে পুনরায় ব্যাটিংয়ে নামা কোহলিকে নিজের তৃতীয় শিকার বানান আমির। ভারত অধিনায়ক ৭ চারে ৬৫ বলে করেছেন ৭৭ রান। শেষদিকে অপরাজিত ছিলেন বিজয় শঙ্কর (১৫) ও কেদার যাদব (৯)

সাজঘের ফেরার আগে কোহলি ভেঙে দিয়েছেন কিংবদন্তি ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকারের একটি রেকর্ড। ওয়ানডেতে দ্রুততম সময়ে ১১ হাজার রানের মালিক এখন তিনি। পাকিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে এই মাইলফলক থেকে ৫৭ রান দূরে ছিলেন কোহলি। ওয়ানডেতে ৫১তম হাফসেঞ্চুরি করে পরে রেকর্ডটি গড়েন কোহলি।

কোহলির এই রেকর্ড গড়তে লেগেছে ২২৩ ইনিংস ও ২৩০ ম্যাচ। শচীনের লেগেছিল ২৭৬ ইনিংস। সেটিই ছিল এতদিন পর্যন্ত রেকর্ড। দারুণ ছন্দে থাকা কোহলির সামনে স্বদেশী সৌরভ গাঙ্গুলীর ওয়ানডে রেকর্ড ১১ হাজার ৩৬৩ রান পেছনে ফেলার সুযোগও রয়েছে এই বিশ্বকাপেই।