অমিতাভের টুইটার হ্যাক

আগের সংবাদ

ফকিরহাটে বাস-ট্রাকের সংঘর্ষ, আহত ১৪

পরের সংবাদ

শুরুর হোঁচট কাটিয়ে এগোচ্ছে পাকিস্তান

প্রকাশিত হয়েছে: জুন ১২, ২০১৯ , ৯:০৫ অপরাহ্ণ | আপডেট: জুন ১২, ২০১৯, ৯:০৫ অপরাহ্ণ

Avatar

অস্ট্রেলিয়ার দেয়া ৩০৮ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে টপ-অর্ডারের দুই উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে পাকিস্তান। তবে এই সেই হোঁচট কাটিয়ে ওঠেছে তারা।

ইমাম-উল-হক এবং মোহাম্মদ হাফিজের ব্যাটিংয়ে এগিয়ে যাচ্ছে পাকিস্তান। দু’জনে ৫৫ বলে করেছেন ৫৪ রানের জুটি। ইমামের ব্যাট করছেন ৩৯ রানে। ৩৪ রানে অপরাজিত আছেন হাফিজ।

এই রিপোর্ট লেখা পযর্ন্ত ২০ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ১১০ সংগ্রহ করেছে পাকিস্তান। জিততে হলে পাকিস্তানকে করতে হবে আরো ১৯৮ রান দরকার।

শুরুতে পাকিস্তানের স্কোরবোর্ডে ২ রান যোগ হতেই পেট কামিন্সের বলে কেন রির্চার্ডসনের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরত যান ফখর জামান। এরপর বাবর আজমকে নিয়ে কিছুটা প্রতিরোধ গেড়ে তুলেন আরেক ওপেনার ইমাম-উল-হক।

তবে সেট হয়েও ইনিংসটাকে বড় করতে পারেননি বাবর। ২৮ বলে ৭ চারে ৩০ রান করে নাথান কোল্টার নাইনের বলে সাজঘরে ফিরেন তিনি। বাবরের ক্যাচটি বাউন্ডারিতে তালু বন্দী করেন রিচার্ডসন।

এর আগে টনটন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে ৪৯ ওভারে ১০ উইকেট হারিয়ে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৩০৭ রান সংগ্রহ করেছে অস্ট্রেলিয়া।

চলতি বিশ্বকাপে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচ খেলতে মাঠে নেমেছে অস্ট্রেলিয়া ও পাকিস্তান। ম্যাচে টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন পাকিস্তানের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। টনটনে বাংলাদেশ সময় বেলা সাড়ে ৩টায় শুরু হয় ম্যাচটি।

ব্যাটিংয়ে নেমে শুরু থেকে পাকিস্তানি বোলাদের ওপর চওড়া হয়ে খেলতে থাকেন দুই ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ ও ডেভিড ওয়ার্নার। দু’জনের ওপেনিং থেকে অস্ট্রেলিয়ার আসে ১৪৬ রান। ৬ চার ও ৪ ছক্কায় ৮৪ বলে ৮২ রান করা ফিঞ্চকে মোহাম্মদ হাফিজের ক্যাচ বানিয়ে এই ভয়ঙ্কর জুটি ভাঙেন মোহাম্মদ আমির।

এরপর দলীয় ১৮৯ রানে অস্ট্রেলিয়া হারায় স্টিভেন স্মিথকে (১০)। মোহাম্মদ হাফিজের বলে আসিফ আলীর হাতে বন্দী হোন সাবেক এই অজি অধিনায়ক। শুরু থেকে বড় সংগ্রহের আভাস দেওয়া অজিরা এরপরই যেন খেই হারিয়ে ফেলে।

১০ বলে ২ চার ও ছক্কায় ২০ রান করে দ্রুত বিদায় নেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েলও। তবে সতীর্থদের যাওয়া-আসার মাঝে সেঞ্চরি উদযাপন করেন ওয়ার্নার।

সেঞ্চুরি থেকে ৯৭ রানের দূরত্বে দাঁড়িয়েছিলেন অজি ওপেনার। শাহীন আফ্রিদির বলে উইকেটরক্ষক ও থার্ড ম্যানের মাঝখান দিয়ে চার মেরে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ১৫তম এবং ২০১৯ বিশ্বকাপে প্রথম সেঞ্চুরি পান এই ওয়ার্নার।

ওয়ানডেতে ওয়ার্নারের এই সেঞ্চুরি এসেছে প্রায় ৬০০ দিন পর। নিষেধাজ্ঞার আগে তিনি সবশেষ সেঞ্চুরি পেয়েছেন ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭ সালে, ভারতের বিপক্ষে।

পাকিস্তানে বিপক্ষে ১০২ বলে ১০১ রান করে দীর্ঘদিন পর সহজাত ভঙ্গিতে সেঞ্চুরি উদযাপন করেন ওয়ার্নার। সেঞ্চুরি করার পথে তিনি হাঁকিয়েছেন ১১ চার ও ১ ছক্কা।

তবে সেঞ্চুরি পর বেশিক্ষণ টিকে থাকতে পারেননি ওয়ার্নার। দলীয় ২৪২ রানের মাথায় ১১১ বলে ১০৭ রান করে তিনি ফেরত যান শাহীন আফ্রিদির বলে ইমাম-উল-হককে ক্যাচ দিয়ে।

২০১৯ বিশ্বকাপে ৪ ম্যাচে ২৫৫ রান নিয়ে ওয়ার্নার ওঠে এসেছেন সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকদের দ্বিতীয় স্থানে। ৩ ম্যাচে ২৬০ রান নিয়ে সাকিব আল হাসান আছেন সবার শীর্ষে।

এরপর পাকিস্তানের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে একের পর ধাক্কা খেতে থাকে অস্ট্রেলিয়া। ওয়ার্নারের বিদাযের পর একের পর এক সাজঘরে ফিরেন অজিরা।

শন মার্শ (২৩) ও উসমান খাজা (১৮) কিছুট প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিল। কিন্তু তা সামান্য সময়ের জন্য। উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান অ্যালেক্স ক্যারির (২০) ব্যাটে ভর করে তিনশ রানের ঘর পার করে অস্ট্রেলিয়া। ক্যারির বিদায়ের পর তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে গত আসরের চ্যাম্পিয়নরা।

নাথান কোল্টার নাইন ও পেট কামিন্সে ব্যাট থেকে আসে ২ রান করে।। ৩ রান করেন মিচেল স্টার্ক। কেন রিচার্ডসন অপরাজিত থাকেন ১ রানে।

শেষদিকে অজিদের ব্যাটিং লাইন-আপ গুঁড়িয়ে বড় সংগ্রহ করতে দেননি মূলত মোহাম্মদ আমির। ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে তিনি ১০ ওভারে ৩৫ রান দিয়ে নিয়েছেন ৫ উইকেট। পাকিস্তানি পেসারের এর আগে ক্যারিয়ার সেরা ছিল ২৮ রানে ৪ উইকেট।

২০১৯ বিশ্বকাপে তৃতীয় বোলার হিসেবে ৫ উইকেট নিয়েছেন আমির। এর ফলে ৩ ম্যাচে সর্বোচ্চ ১০ উইকেট নিয়ে বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী এখন তিনি।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা