রাজধানীতে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় যুবক নিহত

আগের সংবাদ

বিএসএমএমইউ থেকে পেট্রলবোমা উদ্ধার

পরের সংবাদ

সিডনিতে আনন্দঘন পরিবেশে ঈদ-উল-ফিতর উদযাপন

কাজী সুলতানা শিমি, সিডনি থেকে

প্রকাশিত হয়েছে: জুন ৬, ২০১৯ , ৫:২৬ অপরাহ্ণ

সাপ্তাহিক ছুটি না থাকা স্বত্তেও শীত, বৃষ্টি ও মেঘলা আকাশ উপেক্ষা করে ৫ই জুন বুধবার অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে ঈদ উল ফিতর উদযাপিত হয়েছে বরাবরের মতোই বর্ণিল উচ্ছ্বাসে। অস্ট্রেলিয়ায় নানা দেশের মুসলমানদের মতপার্থক্যের কারণে সাধারণত পরপর দুদিন ঈদ উদযাপন করে মুসলমনরা। এবার অধিকাংশ ইসলাম ধর্মাবলম্বীরা বুধবার কর্ম দিবসেই পালন করছে ঈদ উল ফিতর।

সিডনিতে ঈদের নামাজ হয়েছে অলিম্পিক পার্ক, অবার্ন মসজিদ, প্যারামাটা মসজিদ, গিলফোড মসজিদ, কোইকার হিলস মসজিদ, রুটিহিল মসজিদ, লাকাম্বা মসজিদ, ব্লাক টাউন, লিভারপুল, টপরাইড মসজিদ, হর্নসবি মসজিদ ও আল বায়ান রিজেন্টস পার্ক, চুল্লোরা পাবলিক স্কুল হল, কোগরাহ ও রকডেল মসজিদে। এ ছাড়াও সারিহিলস মসজিদ, ব্ল্যাকটাউন ঈদগাহ মাঠ, লাকেম্বার প্যারিপার্ক কমপ্লেক্স, সেফটন মসজিদ, ম্যারিকভিল টাউন হল সেন্টার, অলিম্পিক পার্ক গ্রাউন্ড, রুটিহিল মসজিদসহ আরও বেশকিছু জায়গায় অনুষ্ঠিত হয় ঈদের জামাত। বহুজাতিক মুসলিম সম্প্রদায়ের আয়োজনে বিভিন্ন মসজিদ, মুসলিম সেন্টার, কমিউনিটি সেন্টার এবং বড় বড় পার্কেও অষ্ট্রেলিয়ায় বেশ কিছু ঈদ জামাত হয়েছে। ঈদের বড় জামাতগুলির মধ্যে রয়েছে ল্যাকাম্বার কেন্দ্রীয় মসজিদ, ল্যাকাম্বার দারুল উলুম, পারামাটা টাউন হল, রুটিহিল মসজিদ, ল্যাকাম্বার রেলওয়ের প্যারেড, রকডেল এবং মিন্টু মসজিদ।

সিডনিতে প্রচুর বাঙ্গালি ও মধ্যপ্রাচ্যর জনবসতি থাকায় ঈদের আমেজ হয়ে থাকে অনেকটা দেশের মতোই আড়ম্বরপূর্ণ ও আনন্দের। প্রিয় স্বজন বা পরিজনের উপস্থিতি না থাকলেও স্থানীয় বাংলাদেশীরা সেদিন পরস্পরের স্বজন হয়ে যান। নানা পরিকল্পনা ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ঠিক দেশীয় আমেজেই ঈদ উদযাপন করেন।

উল্লেখ্য, ঈদ উপলক্ষে সারা রমজান ধরেই চলতে থাকে নানা আয়োজন। এ উপলক্ষে সিডনির বিভিন্ন স্থানে বসে ঈদ-মেলা ও চাঁদ-রাত মেলা। সেখানে থাকে দেশীয় পোশাক ও জুয়েলারির নানা পশরা আর উপচে পরা ভিড়ে জমে ঈদের আমেজ। অস্ট্রেলিয়ার মুসলমানদের ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বাণী দিয়েছেন দেশটির বর্তমান প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন।