নির্বাচনী আমেজে অভিনয় শিল্পীরা

আগের সংবাদ

ভারতীয় নির্বাচনে বিজয়ী তারকারা

পরের সংবাদ

নজরুলের গল্পে মহাকালের ‘নীলাখ্যান’

প্রকাশিত হয়েছে: মে ২৬, ২০১৯ , ১:২৬ অপরাহ্ণ | আপডেট: মে ২৬, ২০১৯, ১:২৬ অপরাহ্ণ

Avatar

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ‘সাপুড়ে’ গল্প থেকে ২০১৫ সালের ১৪ আগস্ট মহাকাল নাট্য সম্প্রদায় মঞ্চে আনে নাটক ‘নীলাখ্যান’। বাংলাদেশের নাট্যাঙ্গনে বেশ কিছু নজরুল সাহিত্য থেকে নাটক হয়েছে। এর মধ্যে এই নাটকটি উল্লেখযোগ্য। এরই মধ্যে ‘নীলাখ্যান’ নাটকটি ৫০তম প্রদর্শনীর গৌরব অর্জন করেছে। এটিও বাংলাদেশের নাট্যাঙ্গনের জন্য ইতিবাচক খবর। মঞ্চে যেখানে নজরুল সাহিত্য নিয়ে খুব বেশি চর্চা হয়নি। সেখানে এই নাটকটির ৫০তম প্রদর্শনী নাট্যাঙ্গনের জন্য আনন্দের খবর। কাজী নজরুল ইসলামের ‘সাপুড়ে’ গল্প আশ্রয়ে নাটকটি রচনা করেছেন আনন জামান। নির্দেশনায় রয়েছেন ড. ইউসুফ হাসান অর্ক। নির্দেশক বলেন, নাটকের কাহিনীর প্রেক্ষাপট বেদে বহর হলেও কবি নজরুলের অন্তস্রোতে এমন একটি সার্বজনীন বীজ ভাসিয়ে দিয়েছেন যা স্পষ্টতই গোটা মানবক‚লের সর্বকালকে ছুঁয়ে যায়। প্রকৃতির তুলনায় মানুষের অসহায়ত্ব কবিকে এমন প্রেমাখ্যান লিখতে কলম ধরিয়েছিলেন। কবি আর নাট্যকার তাদের মন্ময়তায়-তন্ময়তায় যে জগৎ রচনা করেন তার থেকেও ভিন্ন কোনো ভাষা অনুসন্ধান করতে হলে বাংলা নাট্যের সঙ্গীতের ঐতিহ্যের দ্বারস্থ হতেই হয়। কারণ সেখানে অনেক কথা না বলেও বলা হয়ে যায়। নীলাখ্যান প্রযোজনাতেও সেই প্রয়াস রয়েছে। নাটকটির বিভিন্ন চরিত্র রূপায়ন করছেন কোনাল আলী সাথী, শাহিনুর প্রিতী, সুরেলা নাজিম, সুমাইয়া তাইয়ুম নিশা, নূর আক্তার মায়া, সম্রাট, মানিক চন্দ্র দাশ, জাহিদ কামাল চৌধুরী দিপু, ফেরদৌস ইকরাম, আমিনুল আশরাফ, শিবলী সরকার, শাহরিয়ার হোসেন পলিন, তারেকেশ্বর তারোক, মো. আহাদ, রাসেল আহমেদ, রাজিব হোসেন, ইকবাল চৌধুরী, স্বপ্নিল, মো. শাহনেওয়াজ এবং মীর জাহিদ হাসান। মঞ্চের নেপথ্য শিল্পীরা হলেন- মঞ্চ পরিকল্পনা, সুর, সঙ্গীত ও আবহসঙ্গীত পরিকল্পনায় ড. ইউসুফ হাসান অর্ক, আলোক পরিকল্পনায় ঠান্ডু রায়হান, পোশাক পরিকল্পনায় ড. সোমা মুমতাজ, কোরিওগ্রাফি জেরিন তাসনিম এশা, প্রপস পরিকল্পনা ও নির্মাণ হাসনাত রিপন, রূপসজ্জায় শুভাশীষ দত্ত তন্ময়, পোস্টার ও স্মরণিকা ডিজাইন পংকজ নিনাদ, মঞ্চ ব্যবস্থাপক জাহিদ কামাল চৌধুরী এবং প্রযোজনা অধিকর্তা মীর জাহিদ হাসান।
উল্লেখ্য, মহাকাল নাট্য সম্প্রদায় ১৯৮৩ সাল থেকে নিয়মিত নাট্যচর্চারত সংগঠন হিসেবে সংস্কৃতি অঙ্গনে কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছে। প্রতিষ্ঠার পর থেকে অবিরাম নাট্যচর্চায় মহাকাল নাট্য সম্প্রদায় ৪০টি নাট্য প্রযোজনা মঞ্চে এনেছে ও ইতোমধ্যে প্রযোজনাগুলোর ১০১৯টি প্রদর্শনী সম্পন্ন করেছে এবং ২টি নাট্য প্রযোজনার শতাধিক মঞ্চায়ন এবং ১টি প্রযোজনার দেড়শতম মঞ্চায়ন সম্পন্ন করেছে। বর্তমানে দলটি ৪টি প্রযোজনা নিয়মিতভাবে মঞ্চায়ন করে যাচ্ছে। আগামী ১৪ জুলাই ২০১৯ মহাকাল নাট্য সম্প্রদায়ের প্রতিষ্ঠার তিন যুগপূর্তি। এ উপলক্ষে বছরব্যাপী কর্মসূচি গ্রহণ করেছে এ নাট্যদল। নানাবিধ এ নাট্য কার্যক্রমের অংশ হিসেবে রয়েছে- নতুন মঞ্চনাটক মহাপ্রয়াণের শোক আখ্যান ‘শ্রাবণ ট্র্যাজেডি’, নতুন নাট্যবন্ধুদের সমন্বয়ে মাসব্যাপী নাট্য কর্মশালা এবং নতুন শিল্পীদের দিয়ে দুটি কর্মশালা প্রযোজনা, ‘নীলাখ্যান’ নাটক নিয়ে ভারতের ত্রিপুরা ও পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সফর। তারই ধারাবাহিকতায় গত ২৩ মে মঞ্চস্থ হয় দলটির আলোচিত নাটক ‘নীলাখ্যান’। ওই দিনসন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় জাতীয় নাট্যশালার পরীক্ষণ থিয়েটার হলে মঞ্চস্থ হয় নাটকটির পঞ্চাশতম প্রদর্শনী। একইভাবে রয়েছে পাঁচ দিনব্যাপী ‘ঢাকা-দিল্লি নাট্যোৎসব’-এর আয়োজন, দলীয় নাট্যকার কানাই চক্রবর্তী রচিত ‘আনন্দের মুক্তি চাই এবং অন্যান্য নাটক’ গ্রন্থের প্রকাশনা উৎসব, বাস্তবায়নের পথে মানবিক নাটক ‘শিখণ্ডী কথা’র ১৭৫তম প্রদর্শনী, কাজী নজরুল ইসলাম-এর ‘সাপুড়ে’র আশ্রয়ে মানব প্রেমের অমর উপাখ্যান ‘নীলাখ্যান’-এর ৫০তম মঞ্চায়ন। জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহে নাটক নিয়ে দিল্লি সফর এবং বছরব্যাপী অনুষ্ঠানমালার সমাপ্তি ঘটবে আগামী জুলাই মাসে সপ্তাহব্যাপী ‘বাংলা নাট্যোৎসব’ আয়োজনের মধ্য দিয়ে।