তবুও শিরোপা ধরে রাখতে পারল না বার্সা

আগের সংবাদ

এমপি হয়েই বিয়ে করতে যাচ্ছেন নুসরাত

পরের সংবাদ

চামড়া-প্লাস্টিকের বাজারে আমরা ঢুকতে পারিনি: বাণিজ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত হয়েছে: মে ২৬, ২০১৯ , ৯:৩০ অপরাহ্ণ | আপডেট: মে ২৬, ২০১৯, ৯:৩৫ অপরাহ্ণ

Avatar

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি জানিয়েছেন, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য, পাদুকা শিল্প, প্লাস্টিক শিল্প এবং হালকা প্রকৌশল শিল্পের আন্তর্জাতিক বাজারে চাহিদা রয়েছে। সেই অনুযায়ী এখনও বাংলাদেশের এসব পণ্য আন্তর্জাতিক বাজারে প্রবেশ করতে পারেনি। সেই সঙ্গে বহির্বিশ্বে এসব পণ্যের স্ট্যান্ডার্ডও দাঁড় করানো যায়নি।

আজ রোববার (২৬ মে) সন্ধ্যায় রাজধানীর একটি হোটেলে ‘বাজার সম্প্রসারণ এবং প্রচার-প্রচারণা: বাংলাদেশের সুনির্দিষ্ট উৎপাদনমুখী শিল্পক্ষেত্রে প্রতিযোগিতামূলক রফতানি কৌশল’ শীর্ষক সেমিনারে এ কথা জানান তিনি।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘যে কয়েকটা পণ্যের কথা আজকে আমরা শুনতে পেলাম, যেমন চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য, পাদুকা, প্লাস্টিক ও হালকা প্রকৌশল শিল্প। আমি মনে করি, এগুলোর ভালো (আন্তর্জাতিক) বাজার আছে। কিন্তু সেই অনুযায়ী আমরা এখনও বাজারে ঢুকতে পারিনি। আমাদের পণ্যটা সেভাবে প্রচার করে এর স্ট্যান্ডার্ডটা এখনও বহির্বিশ্বে দাঁড় করাতে পারিনি।’

টিপু মুনশি আরও বলেন, ‘মোট কথা হচ্ছে, আমাদের রফতানি বাড়াতে হবে এবং পণ্যের মান বাড়াতে হবে। আর আন্তর্জাতিক বাজারে আমাদের যে স্ট্যান্ডার্ড আছে, যে ব্র্যান্ড আছে, সেটাকে এস্টাবলিস্ট করাতে হবে।’

চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য, পাদুকা শিল্প, প্লাস্টিক শিল্প এবং হালকা প্রকৌশল শিল্প– এই চারটি শিল্পক্ষেত্রের রফতানিযোগ্য বাজার নিশ্চিত করতে না পারার কারণগুলো খুঁজে বের করা, বৈচিত্রময় রফতানি এবং বিনিয়োগক্ষেত্রে সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে ‘কর্মসংস্থানের জন্য প্রতিযোগিতামূলক রফতানি’ শীর্ষক একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে বাংলাদেশ সরকারের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। এর সহযোগিতায় রয়েছে বিশ্ব ব্যাংক গ্রুপ।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সেটার জন্য আমাদের চেষ্টা শুরু হয়েছে। আমাদের এ প্রকল্প চলছে। এটা সে লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে।’

‘কয়দিন আমি যে বাইরে গেলাম, ওরাও বলছে, তোমাদের যে আরও পণ্য আছে, সেটা তো আমরা অনেকেই জানি না। তোমাদের লোক পাঠাও। তোমরা এসে কথা বল। বিজনেস লিডারদের পাঠাও। সেসব নিয়ে তারা আমাদের বলল। আমাদের আসলে বিশ্বের দুয়ারটা খুলতে হবে। আসলে অনেক স্মার্টলি খুলতে হবে,’ যোগ করেন টিপু মুনশি।

এ সময় পণ্যের আন্তর্জাতিক মান নিশ্চিত করতে একটি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার প্রস্তাব দেন বাণিজ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘এ প্রতিষ্ঠানটি নিশ্চিত করবে পণ্যের আন্তর্জাতিক মান। আমরাও চিন্তা করছি।’

এ সময় আরও বক্তব্য দেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব মফিজুল ইসলাম।