বাজেট ৫ লাখ কোটি টাকা ছাড়াবে: প্রধানমন্ত্রী

আগের সংবাদ

ইভেন্ট ম্যানেজমেন্টের অপশক্তি

পরের সংবাদ

ঈদযাত্রায় দুর্ভোগের শঙ্কা

সড়ক-মহাসড়কের সংস্কার দ্রুত শেষ করুন

প্রকাশিত হয়েছে: মে ২৫, ২০১৯ , ৯:৫২ অপরাহ্ণ | আপডেট: মে ২৫, ২০১৯, ৯:৫২ অপরাহ্ণ

কাগজ প্রতিবেদক

ঈদের আগে ঘরমুখো মানুষের জন্য বড় উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়ায় সড়ক-মহাসড়কের হাল। ভাঙাচোরা সড়ক-মহাসড়ক, যানচলাচলে বিশৃঙ্খলার কারণে পথের ভোগান্তিতে অনেকের ঈদের আনন্দ ফিকে হয়ে যায়। এবারো দেশের বেশকিছু এলাকায় সড়ক-মহাসড়কে বেহালদশার খবর দুশ্চিন্তা তৈরি করছে। গত কয়েকদিন ধরে গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জানা যাচ্ছে, দেশের প্রায় প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ রুটের সড়ক-মহাসড়কজুড়ে রয়েছে গর্ত আর খানাখন্দ।

কোনো কোনো রাস্তায় চলছে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড। প্রতিবারের মতো এবারো ঈদযাত্রায় যানজট, দুর্ঘটনাসহ নানা ভোগান্তির আশঙ্কা থেকে যাচ্ছে বলেই সহজে অনুমেয়। ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-ময়মনসিংহ, ঢাকা-টাঙ্গাইল, ঢাকা-খুলনা, ঢাকা-বরিশাল, ঢাকা-সিলেট, বগুড়া-রংপুরসহ বেশিরভাগ মহাসড়ক ঝুঁকিপূর্ণ বলে ইতোমধ্যে গণমাধ্যমে খবরে উঠে এসেছে।

এসব সড়কের খানাখন্দ ও গর্ত দ্রুত মেরামত না করলে ধীরে ধীরে তা আরো বড় হয়ে ঈদের সময় অতিরিক্ত গাড়ির চাপে ভয়াবহ রূপ নিতে পারে। একমাত্র ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের অবস্থা আগের চেয়ে খানিকটা ভালো। এই সড়কে ফেনীতে ওভারপাস নির্মাণকাজ এবং দাউদকান্দি এলাকায় মেঘনা ও গোমতী সেতুর কাজ শেষ হয়েছে। গতকাল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দ্বিতীয় মেঘনা ও গোমতী উদ্বোধন করছেন।

এ ছাড়া গাজীপুরে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের ওপর নির্মিত দুটি বড় ফ্লাইওভার ও ৪টি আন্ডারপাসেরও উদ্বোধন করেন তিনি। আশা করা হচ্ছে এই দুই সড়কে যাত্রীরা এবার ভোগান্তিতে কম পড়বে। উত্তরবঙ্গ ও দক্ষিণবঙ্গের সড়কপথে ঘরমুখো মানুষ ভোগান্তির আশঙ্কা থেকে যায়। সড়ক যোগাযোগ ও সেতু মন্ত্রণালয় এবারের ঈদযাত্রা নির্বিঘ্ন করতে নানা প্রস্তুতির কথা বলেছেন।

ঈদের ৭ দিন আগে সব সড়ক-মহাসড়ক মেরামতের কাজ শেষ করতে নির্দেশ দিয়েছেন। মহাসড়কে যানজট নিরসনে হাইওয়ে পুলিশকে, বাস টার্মিনাল ও সামনের সড়কগুলোতে বাস মালিক-শ্রমিক ও বিআরটিএকে কঠোরভাবে মনিটরিং করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ঈদে ঘরমুখো মানুষের যাত্রাপথের ভোগান্তি লাঘবে সড়ক-মহাসড়কের নাজুক পয়েন্টগুলো দ্রুততম সময়ে মেরামত করতে কর্তৃপক্ষের উদ্যোগী হতে হবে।

যেসব মহাসড়ক উন্নয়ন কাজ চলছে সেসব স্থানে যেন যানচলাচল বিঘ্নিত না হয়, তাও খেয়াল রাখতে হবে। রাস্তাঘাটের নাজুক অবস্থার সঙ্গে যানচালকদের বিশৃঙ্খল ও বেপরোয়া যানচালনা যানজটের সঙ্গে সঙ্গে দুর্ঘটনারও কারণ হয়। ঈদ মৌসুমে মহাসড়কে যাত্রী ও যানবাহনের চাপ অত্যধিক বেড়ে যায়। এ সুযোগে অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহনের জন্য ফিটনেসবিহীন গাড়ি নামানো হয় রাস্তায়।

এ সব গাড়িও দুর্ঘটনার জন্য দায়ী। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উচিত, যত দ্রুত সম্ভব দেশের বেহাল সড়ক-মহাসড়কগুলোকে যানচলাচলের উপযোগী করে তোলা, অন্তত বেহাল সড়কের কারণে যেন কোনো দুর্ঘটনা না ঘটে, সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখা জরুরি।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা