এভারেস্টে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১০

আগের সংবাদ

ব্যাংককে অনুশীলনে আশরাফুলরা

পরের সংবাদ

পঞ্চকন্যা আখ্যান

প্রকাশিত হয়েছে: মে ২৫, ২০১৯ , ১০:৫১ অপরাহ্ণ | আপডেট: মে ২৬, ২০১৯, ১২:৫২ অপরাহ্ণ

Avatar

তারা প্রত্যেকেই সম্ভাবনার প্রদীপ জ্বেলে চলচ্চিত্রে যাত্রা শুরু করেন। কিন্তু সূচনাতেই থমকে গেছে তাদের ক্যারিয়ার। প্রথম ছবির পর আর তারা এগোতে পারেননি। কেন এই নায়িকাদের নতুন ছবিতে দেখা যাচ্ছে না? উত্তর দিচ্ছেন মেলা প্রতিবেদক

পিয়া বিপাশা
বুলবুল বিশ্বাস পরিচালিত ‘রাজনীতি’ ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন পিয়া। কিছুদিন পরে ছবি থেকে বাদ পড়েন পিয়া। প্রথমে তিনি বাদ পড়ার কারণ সম্পর্কে তেমন কিছু বলেননি। পরে চিত্রনায়ক শাকিব খানের বিরুদ্ধে অনৈতিক প্রস্তাবের অভিযোগও করেছিলেন পিয়া। পিয়া পরবর্তী সময়ে আলোচিত হন অনন্য মামুন পরিচালিত ‘অস্তিত্ব’ ছবিতে যুক্ত হয়ে। এতে তার নায়িকা হওয়ার কথা ছিল। এ ছবি থেকেও পরে বাদ পড়েন তিনি। বাদ পড়ার কারণ সম্পর্কে সেবার আর মুখ খোলেননি তিনি। ‘অস্তিত্ব’ ছবির প্রযোজক ছিলেন কার্লোস। পিয়া বিপাশা ‘রুদ্র’ ছবির মাধ্যমে বড়পর্দায় কাজ শুরু করেন। এরপর রকিবুল আলম রকিবের ‘মনের রাজা’ ছবিতেও কাজ করেন। পরে মোস্তাফিজুর রহমান মানিকের ‘কিছু আশা কিছু ভালোবাসা’র ছবিতেও তিনি চুক্তিবদ্ধ হোন। ছবির শুটিং কিছুদিন হওয়ার পর আর কাজ এগোয়নি। দর্শকরা এখন পর্যন্ত ‘রুদ্র’ ছাড়া কোনো ছবিতেই পিয়াকে দেখতে পাননি। অথচ এই মডেল কাম অভিনেত্রী নানা ঘটনায় ভীষণ আলোচিত। মাঝে কিছুটা সময় শোবিজে কাজ না করলেও আবারো কাজে ফিরছেন বলে সম্প্রতি গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন তিনি। পিয়া বিপাশা বলেন, মাঝে কিছুটা সময় কাজ করিনি। আর ফেসবুক নিয়েও বিপাকে ছিলাম। সবমিলিয়ে কাজ থেকে দূরে ছিলাম। জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী হাবিব ওয়াহিদের ‘হারিয়ে ফেলা ভালোবাসা’ শিরোনামের গানে মডেল হয়ে প্রথম প্রশংসা কুড়ান পিয়া বিপাশা।

নাজিফা তুষি
নাজিফা তুষি ছিলেন ‘চ্যানেল আই লাক্স সুপারস্টার-২০১৪’-এর প্রথম রানার্সআপ। ওই প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার সময়েই রেদওয়ান রনির ‘আইসক্রিম’ ছবিতে কাজের প্রস্তাব পান। ‘আইসক্রিম’ দিয়েই তুষির রাজকীয় অভিষেক হয়। কিন্তু কেন তুষি কোনো সিনেমায় অভিনয় করছেন না? তুষির কথায়, আমি সবসময় বলেছি, আমার সবকিছু সিনেমাজুড়ে। মাঝেমধ্যে শখে হয়তো মডেলিং করেছি। তবে আমার আল্টিমেটগাল সিনেমা। আইসক্রিম মুক্তি পেয়েছিল ২০১৬ সালে। পুরো বছরটাই ছবিটি নিয়ে আলোচনা হয়েছিল। অবিশ্বাস্য মনে হলেও এটাই হয়েছে যে, ‘আইসক্রিম’ মুক্তির পর থেকে আমি চাইলে সপ্তাহে পাঁচটি করে ছবিতে সাইন করতে পারতাম। কিন্তু আমি ওই কাতারে পড়তে চাই না, পড়িনি। আমি নিজের সন্তুষ্টির পর মানুষকে যে কাজ দিয়ে খুশি করতে পারব সেই কাজটা করব। সেজন্য এতটা গ্যাপ লেগেছে। এখনো ছবির অফার আসে। কিন্তু আমার মতো করে পাই না, তাই কাজ করি না। বছরে যদি ভালো একটা কাজও করতে পারি, তাতে আমার কোনো সমস্যা নেই। কারণ আমি সংখ্যার
চেয়ে মানে বিশ্বাসী। আমার কাছে যেসব ছবির প্রস্তাব আসে সেগুলোর গল্প পছন্দ হতো না। গল্প ভালো হলে পরিচালক ভালো লাগতো না। প্রযোজকের মাঝে পেশাদারিত্ব মনোভাব দেখি না। ছবির প্ল্যানিং ঠিকঠাক থাকত না। একটা ভালো ছবির জন্য এসব কিছুই সমন্বয় প্রয়োজন। সবমিলিয়ে পছন্দ হয় না।

মারজান জেনিফা
২০১৬ সালের ২২ এপ্রিল মুক্তি পেয়েছিল আশিকুর রহমান পরিচালিত ‘মুসাফির’। এরপর আর পর্দায় দেখা যায়নি ছবির নায়িকা মারজান জেনিফাকে। ছবিতে তিনি অভিনয় করেছিলেন আরিফিন শুভর বিপরীতে। কাঁচা অভিনয়ের জন্য তিনি সমালোচিত হয়েছিলেন। কিন্তু গ্ল্যামারের জন্য নজর কেড়েছিলেন। কিন্তু ছবির প্রযোজক জুবায়ের আলমকে পরের বছর বিয়ে করেই মারজানের হারিয়ে যাওয়ার উপক্রম। তিনি হুট করেই ঘোষণা দিয়েছিলেন ‘মুসাফির ২’ এর। তখন তিনি বলেছিলেন, নিজের ওজন কমানোর জন্য জিমে যাচ্ছি। শিগগির নতুন করে আবার কামব্যাক করব। কিন্তু সেই ছবির আর কোনো অগ্রগতির খবর পাওয়া যায়নি। ছবির কাজ বন্ধ থাকলেও কিন্তু তিনি আগে ব্যবসায়ী হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছেন এই নায়িকা! রাজধানীর পুলিশ প্লাজা শপিং মলে তিনি বুটিক হাউস চালু করেছেন। এর নাম দিয়েছেন ‘দ্য ফ্যাশন লাউঞ্জ বাই মারজান জেনিফা’। এছাড়া তার ‘এম জে ফ্যাশন’ নামে একটি অনলাইন শপ আছে। মারজান জানান, প্রতি বছর দু-তিনবার তার স্বামীকে নিয়ে দেশের বাইরে বেড়াতে যান। ইন্ডিয়া, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর ছাড়াও বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নামি পণ্য সংগ্রহ করে সেগুলো বিক্রি করছেন ‘দ্য ফ্যাশন লাউঞ্জ বাই মারজান জেনিফাতে। নায়িকা হওয়ার আগের সময়টায় মারজান জেনিফা ছিলেন চট্টগ্রামে। বন্দর নগরীর আগ্রাবাদে ‘হ্যাপি বিউটি পার্লার’ নামে একটি পার্লার ছিল তার। নতুন করে পরে তিনি বড় পরিসরে ব্যবসায় নেমেছেন। ব্যবসায়ী মারজানের নানামুখী খবর থাকলেও নায়িকা মারজান কোনো খবরে নেই।

ফারিন

গত কয়েক বছরে বেশকিছু নতুন নায়িকা উপহার দিয়েছে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া। যাদের মধ্যে মাহিয়া মাহি, নুসরাত ফারিয়া এবং জলি। এই নায়িকাদের পরে জাজে যুক্ত হোন ফারিন। মিউজিক ভিডিওর মাধ্যমে ক্যারিয়ার শুরু করেন। সাভারের এই মেয়ে মিডিয়াতে তেমন পরিচিত ছিলেন না। টুকটাক র‌্যাম্প মডেল হিসেবে কাজ করতে দেখা গেছে আগে। ফারিন প্রথম অভিনয় করেন শামীম আহমেদ রনি পরিচালিত ‘ধ্যেততেরিকি’ ছবিতে। ফারিনের বিপরীতে অভিনয় করেন রোশান। এ ছবিতে কাজের সময় রোশানের মাত্র একটি ছবি মুক্তি পেয়েছিল।
এ ছবিতে নুসরাত ফারিয়া ও আরিফিন শুভও জুটি হয়ে অভিনয় করেন। ২০১৭ সালের পহেলা বৈশাখে ছবিটি মুক্তি পেয়েছিল। আহামরি ব্যবসা করতে পারেনি ছবিটি। ফারিনও আর জাজের নতুন কোনো ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হননি। অথচ দেখা যায়, জাজে এলে যে কোনো নায়িকা একের পর এক ছবি করতে থাকেন। যেমনটা দেখা গেছে পূজা চেরীর বেলায়। ফারিনের পরে এসেও তিনি ধারবাহিকভাবে জাজের ছবিতে অভিনয় করছেন। ফারিন একটি ছবি করেই জাজ থেকে বিদায় নিলেন। শুধু জাজ থেকেই তিনি বিদায় নেননি, অন্য প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের ছবিতেও তাকে আর দেখা যায়নি। যদিও ফারিন গ্ল্যমারের ঝলক দেখাতে পেরেছিলেন। নাচে, গানে, হাসিতে তিনি নিজেকে মেলে ধরেছিলেন ‘ধ্যেততেরিকি’ ছবিতে। তারপরও তিনি নায়িকাদের তীব্র প্রতিযোগিতায় সুবিধা করে উঠতে পারেননি।

ভাবনা

টিভির ব্যস্ত অভিনেত্রী আশনা হাবিব ভাবনা। ২০১৭ সালে অনিমেষ আইচের ‘ভয়ঙ্কর সুন্দর’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে প্রথমবারের মতো চিত্রনায়িকা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন তিনি। শুধু তাই নয়, নাটক ছেড়ে পুরোপুরি চলচ্চিত্রের বাসিন্দা হওয়ারও ঘোষণা দিয়েছিলেন ভাবনা। কিন্তু প্রথম চলচ্চিত্র ব্যবসায়িকভাবে ব্যর্থ হওয়ার পর আর কোনো ছবিতে কাজ করা হয়নি তার। বছর ঘুরতে না ঘুরতেই আবার ছোটপর্দায় আশ্রয় নিয়েছেন ভাবনা। ভাবনা প্রসঙ্গে বলেছেন, এই যে আমার ছবি এখনো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যাচ্ছে, উৎসবে অংশ নিচ্ছে। এসব ভালো খবর। এই ভালো খবরের পেছনে রয়েছে একটি ভালো চিত্রনাট্য। আমি অবশ্যই বলব ‘ভয়ঙ্কর সুন্দর’ একটি বাণিজ্যিক ছবি, একই সঙ্গে এটি ভালো চিত্রনাট্যেরও একটি ছবি। তাই আমি যদি কোনো ছবিতে কাজ করি সেটা বাণিজ্যিক হলেও সমস্যা নেই তবে চিত্রনাট্য হতে হবে ভালো। যদিও এখন পর্যন্ত নতুন কোনো চলচ্চিত্রে কাজের খবর নেই।