মেহেরপুরের গাংনীতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক ব্যবসায়ী নিহত

আগের সংবাদ

ইংল্যান্ড দলেও পরিবর্তন

পরের সংবাদ

দিল্লিতে ২১ দলের বৈঠকে ভোট কারচুপির অভিযোগ

প্রকাশিত হয়েছে: মে ২২, ২০১৯ , ১১:১৪ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: মে ২২, ২০১৯, ১১:১৪ পূর্বাহ্ণ

Avatar

ভারতে লোকসভা নির্বাচন শেষ হয়েছে। এখন শুধু ফলাফলের অপেক্ষা। ভোট শেষ হওয়ার পর থেকেই দফায় দফায় বৈঠক করছেন বিরোধীরা। ইতোমধ্যেই চন্দ্রবাবু নাইডু তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়সহ একাধিক নেতার সঙ্গে দেখা করেছেন। ভোটে কারচুপির অভিযোগে এবার একসঙ্গে বৈঠকে বসেছে ২১টি বিরোধী দলের প্রতিনিধিরা। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে দিল্লির কনস্টিটিউশন ক্লাব অব ইন্ডিয়ায় ওই বৈঠক শুরু হয়। সেখানে যোগ দেন তৃণমূলের ডেরেক ও’ব্রায়েন, টিডিপি প্রধান চন্দ্রবাবু নাইডু, কংগ্রেসের গুলাম নবি আজাদ, সীতারাম ইয়েচুরি, কানিমোঝি, অরবিন্দ কেজরিওয়ালসহ একাধিক নেতা।
তারা ভিভিপ্যাটের স্লিপ মিলিয়ে দেখার আবেদন নিয়ে কমিশনের দ্বারস্থ হবেন। বুথ ফেরত সমীক্ষা দেশে গেরুয়া ঝড়ের ইঙ্গিত দিয়েছে। বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে সংবাদমাধ্যম ও সমীক্ষা সংস্থার যৌথ রিপোর্টে দেখানো হয়, এনডিএ শিবির পাবে সাড়ে তিনশর বেশি আসন। সমীক্ষার ফলাফল মিলে গেলে ভারতে আবারো পাপড়ি মেলবে পদ্মফুল। বুথ ফেরত জরিপকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে দাবি করেছেন মমতা। তার অভিযোগ বিরোধী ঐক্যে ফাটল ধরাতেই এই কৌশল নিয়েছে বিজেপি। এই সুযোগে ইভিএম কারচুপির অভিযোগও সামনে আনেন তিনি। বিজেপিবিরোধী দলগুলোর কাছে ঐক্য বজায় রাখার জোরালো আহ্বানও জানান তৃণমূল নেত্রী।
নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে পক্ষপাতের অভিযোগ নাকচ প্রণব মুখার্জীর : এদিকে বিরোধীরা নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে বিজেপির প্রতি পক্ষপাতদুষ্ট ভ‚মিকার অভিযোগ আনলেও তা মানতে নারাজ সাবেক রাষ্ট্রপতি ও কংগ্রেস নেতা প্রণব মুখার্জি। তিনি বলেন, নির্বাচন ‘যথাযথভাবে’ সম্পন্ন হয়েছে। সমালোচকদের ইঙ্গিত করে তিনি প্রচলিত একটি প্রবাদও টেনে আনেন। বলেন, নাচতে না জানলে উঠান বাঁকা হয়। গত সোমবার নয়াদিল্লিতে এনডিটিভির এক অনুষ্ঠানে হাজির হয়ে তিনি বলেন, আমাদের দেশে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা যদি সাফল্য পেয়ে থাকে, তাহলে তার সিংহভাগজুড়ে রয়েছে নির্বাচন নির্বিঘ্নে আয়োজন করতে পারার বিষয়টি। সে ব্যাপারে সুকুমার সেন থেকে শুরু করে এখনকার মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সবারই ভূমিকা রয়েছে। আপনারা তাদের নামে উল্টাপাল্টা বলতে পারেন না। নিখুঁতভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রণব আরো বলেন, আমি বিশ্বাস করি নাচতে না জানা মানুষরাই কেবল উঠানকে বাঁকা বলে দোষ দেয়। ভালো কাজ জানা মানুষরাই বোঝেন কীভাবে যন্ত্রের ব্যবহার করতে হবে।
নির্বাচন কমিশনের একাধিক পদক্ষেপের সমালোচনা করেছে বিরোধীরা। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী থেকে শুরু করে বিরোধী দলের প্রায় সব নেতাই প্রশ্ন তুলেছেন নির্বাচনের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে। ভোট চলার মাঝেই কমিশন যেভাবে প্রধানমন্ত্রীকে কেদারনাথ এবং বদ্রীনাথে সফর করার সুযোগ দেয়, তা নিয়েও প্রশ্ন ওঠে বিরোধী শিবিরে। পাশাপাশি একাধিকবার আদর্শ আচরণবিধি ভাঙার অভিযোগ উঠলেও প্রধানমন্ত্রী বা বিজেপি সভাপতি অমিত শাহর বিরুদ্ধে কমিশন কোনো ব্যবস্থা না নেয়ায় ক্ষুব্ধ হয় বিরোধীরা।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা