দ্যুতি ছড়ালেন মনিকা বেলুচ্চি

আগের সংবাদ

১৮ বার কান সৈকতে পা ঐশ্বরিয়ার

পরের সংবাদ

জিপিএস প্রযুক্তিতে কোহলিরা

প্রকাশিত হয়েছে: মে ২১, ২০১৯ , ২:৫৮ অপরাহ্ণ | আপডেট: মে ২১, ২০১৯, ২:৫৮ অপরাহ্ণ

Avatar

ফুটবলের পাশাপাশি এখন ক্রিকেটেও ব্যবহৃত হচ্ছে জিপিএস প্রযুক্তি। আসন্ন বিশ্বকাপে ভারতীয় দল জিপিএস প্রযুক্তি (ভেস্ট) নিয়ে মাঠে নামবেন। ভারতের খেলোয়াড়রা এ প্রযুক্তির সঙ্গে পরিচিত এবং গত ডিসেম্বরেই এর মহড়া হয়েছে। জার্সির নিচে এই ভেস্ট পড়তে হয়।
জিপিএস মানে হলো গ্লোবাল পজিশনিং সিস্টেম। এটা আসলে বিশেষ ধরনের ফ্রিকোয়েন্সির ওপর ভিত্তি করে কোনো বস্তুর সূতম অবস্থান নির্ণয়ের একটি পদ্ধতি। অনুসন্ধানী মানুষ কবুতরের মস্তিষ্কের গঠন থেকে এই আশ্চর্য জিনিস আবিষ্কার করেছে। আমেরিকার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় ১৯৭৭ সালে জিপিএস প্রযুক্তি আবিষ্কার করে। শুরুতে এর ব্যবহার একেবারেই সামরিক ক্ষেত্রে সীমাবদ্ধ ছিল। পরে সাধারণ মানুষের ব্যবহারের জন্য এই প্রযুক্তি উন্মুক্ত করে দেয়া হয়। খেলাধুলায় জিপিএস প্রযুক্তির ব্যবহার খেলোয়াড়দের সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা দিতে পারে। জিপিএসের মাধ্যমে একজন খেলোয়াড়ের সামর্থ্য এবং একটি নির্দিষ্ট দিনে তার পারফরমেন্সের প্রতিচ্ছবি ধরা পড়ে। এটা ব্যবহার করলে খেলোয়াড়দের মধ্যে একটা সুস্থ প্রতিযোগিতা শুরু হয়, যার ফলে তাদের খেলা গতিময় হয়।
তারই ধারাবাহিকতায় বিশ্বকাপ ক্রিকেটে কোহলিরা জার্সির নিচে উচ্চ প্রযুক্তির বিশেষ ধরনের গেঞ্জি (ভেস্ট) পরে মাঠে নামবেন। প্রযুক্তির ক্ষেত্রে ক্রিকেটে ডিআরএস, এলইডি বেল তো আছেই। এবার যুক্ত হলো জিপিএস। যে কোনো ক্ষেত্রে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে প্রযুক্তি বড় ভ‚মিকা রাখছে। এতে পিছিয়ে নেই ক্রিকেট দলগুলোও।
কোহলিদের এ প্রযুক্তি সরবরাহ করেছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক প্রতিষ্ঠান স্ট্যাটস্পোটর্স। এর আগে বিসিসিআইয়ের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে প্রতিষ্ঠানটির। প্রায় একই ধরনের প্রযুক্তি ব্যবহার করেছে নিউজিল্যান্ড, ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়াও।