রুমালের বুকজোড়া শোক | আনোয়ারা সৈয়দ হক

আগের সংবাদ

স্নিগ্ধ অভিমানী নীলরোদ | নীতুল জান্নাত

পরের সংবাদ

ফিরে আসে দীর্ঘ ভোর | সোহরাব পাশা

প্রকাশিত হয়েছে: মে ১৬, ২০১৯ , ৭:৪৯ অপরাহ্ণ | আপডেট: মে ১৬, ২০১৯, ৭:৪৯ অপরাহ্ণ

কাগজ প্রতিবেদক

[কবি আবদুল মান্নান সৈয়দ-কে]

কবিতার একটি গল্পের জন্যে রাত্রির পেছনে
নিদ্রাহীন কাটে ঘোরের ভেতর
নিঃস্ব কোলাহল, আর্তনাদ প্রতিশ্রুতিহীন বৃষ্টি
নৈঃশব্দ্যের তুমুল ক্ষরণ ক্লান্ত ও রক্তাক্ত করে,

টুকরো স্মৃতির আয়নায় দেখি পৃথিবীর ম্লান
মুখ ছেঁড়াশার্ট পরে বিষণ্ন দাঁড়িয়ে
মলিন খালি পা ডুবে যাচ্ছে অন্ধ অথই সমুদ্রে
কোথাও ঝিরঝিরে বৃষ্টি কাঁপা জোছনার গান বাজে
নতুন পাতায়, বাতাসের তীব্র দুর্দান্ত প্রতিভা,
অসুস্থ রোদ্দুর ঠোঁটে অন্য বেলা কুয়াশা প্যাঁচানো
ভোর খোলে দূরের জানালা
বালিয়াড়ি ভেঙে তিন সন্ধ্যে গত হয় শেষ পথে
আঁধারে তুমুল স্রোত, ভয় এসে উল্টে দেয় পা

ওড়ে বনভূমি ছায়াশূন্য বালুচর
আশ্বিনের কাশবন নদী,
শেষ গল্পের স্মৃতির পাখি উড়ে আসে
বৃষ্টির হাওয়ায় খোলা জানালার পাশে-
বিকেলের রোদে ভিজে যায় শাহবাগ, কাঁটাবন
ওপাশের নীলক্ষেত, তুমি বলেছিলে
‘কী অদ্ভুত সুন্দর তাই না’!
আমি তোমার চোখের পাঠশালায় তখন খুঁজে
ফিরছি অজ¯্র নক্ষত্রের ঝরে পড়া
জুঁইফুল, বৃষ্টিফুল