পাকিস্তানে পাঁচ তারকা হোটেলে বন্দুক হামলা, নিহত ১

আগের সংবাদ

খুলনায় ছেলে ধরা সন্দেহে বৃদ্ধকে পিটিয়ে হত্যা

পরের সংবাদ

রোহিঙ্গাদের নামে পাসপোর্ট

শুধু কি দালাল চক্র দায়ী?

প্রকাশিত হয়েছে: মে ১১, ২০১৯ , ৯:০৯ অপরাহ্ণ | আপডেট: মে ১১, ২০১৯, ৯:০৯ অপরাহ্ণ

অনলাইন প্রতিবেদক

রোহিঙ্গারা দালাল চক্রের সহযোগিতায় বাংলাদেশি পাসপোর্ট সংগ্রহ করে বিদেশে পাড়ি জমানোর চেষ্টা করছে। শুক্রবার ভোরে এমন ২৩ জন রোহিঙ্গাকে খিলক্ষেত এলাকা থেকে আটক করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। আটককৃতদের মধ্যে দুজন নারীও রয়েছে। তাদের কাছে বিপুল পরিমাণ পাসপোর্ট পাওয়া গেছে। রোহিঙ্গাদের অন্যত্র, বিশেষ করে অবৈধভাবে বিদেশে পাড়ি দেয়ার খবর অত্যন্ত উদ্বেগজনক।

অতীতে বিভিন্ন সময় বাংলাদেশ থেকে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক রোহিঙ্গা বাংলাদেশি পাসপোর্ট নিয়ে বিদেশে পাড়ি জমিয়েছে এবং বাংলাদেশিদের শ্রমবাজারে সমস্যা সৃষ্টি করেছে। রোহিঙ্গারা যাতে বাংলাদেশি পাসপোর্ট না পায় সে জন্য সতর্কতা অবলম্বন করা জরুরি। জানা যায়, সড়কপথে এবং হেঁটে উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্পের এসব রোহিঙ্গা দালালদের মাধ্যমে কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রাম পৌঁছে।

এরপর তারা কয়েক দফা বাস বদল করে ঢাকায় আসে। দালাল চক্রের সহায়তায় তারা বিভিন্ন অফিস থেকে পাসপোর্ট সংগ্রহ করে। এর আগেও রোহিঙ্গাদের পাচারের সময় কোস্টগার্ড ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে আটকের একাধিক খবর রয়েছে। এদের মধ্যে নারী ও শিশুর সংখ্যা বেশি। এমন চিত্র আমাদের রাষ্ট্র ও সমাজের জন্য ঝুঁকি বাড়াবে। কক্সবাজারে আশ্রিত রোহিঙ্গা ১১ লাখেরও বেশি।

তাদের নাম-ঠিকানা, ছবি ও আঙুলের ছাপ নিয়ে সরকার তথ্যভাণ্ডার তৈরি করেছে। কিন্তু নিবন্ধিত রোহিঙ্গাদের তথ্যভাণ্ডার এখনো পাসপোর্টের মূল সার্ভারের সঙ্গে যুক্ত না করা রহস্যজনক। এই সুযোগ নিচ্ছে দালালরা। বাংলাদেশে আশ্রয় গ্রহণকারী রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট করে দিতে একটি চক্র গড়ে উঠেছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, পাসপোর্ট অফিসের কর্মচারী, পুলিশের কতিপয় কর্মকর্তা এবং দালালদের নিয়েই চক্রটি গড়ে উঠেছে।

দেশের একজন প্রকৃত নাগরিকও চাইলেই পাসপোর্ট পান না। এ জন্য তাকে জন্মনিবন্ধন সনদ, জাতীয় পরিচয়পত্রসহ নানা তথ্যপ্রমাণ কর্তৃপক্ষের কাছে পেশ করতে হয়। এরপর সেই তথ্য-উপাত্ত সঠিক কিনা, তা যাচাই করে থাকে পুলিশ বিভাগের বিশেষ শাখা। এই প্রেক্ষাপটে আশ্রয় গ্রহণকারী রোহিঙ্গারা পাসপোর্ট নিয়ে বিদেশে পাড়ি জমাচ্ছে।

সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, এই পর্যন্ত বাংলাদেশি পাসপোর্ট নিয়ে দুই থেকে আড়াই লাখ রোহিঙ্গা বিদেশে চলে গেছে বলে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সূত্র বলছে। ভয়াবহ বিষয় হলো, অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গাদের নিয়ে জঙ্গিবাদ বিস্তারের ষড়যন্ত্রও চলছে। রোহিঙ্গা নারী-কিশোরীদের তারা টার্গেট করেছে জঙ্গিবাদে দীক্ষা প্রদানে।

জঙ্গিরা গোপনে বিয়ে করে তাদের নিয়ে পাড়ি দিচ্ছে অন্যত্র। এসব ঠেকাতে প্রশাসনিক উদ্যোগও কাজে আসছে না। একাধিক দালাল চক্র এ কাজে সক্রিয় রয়েছে। এদের বিরুদ্ধে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ জরুরি। অন্যথায় বিদ্যমান অবস্থা রাষ্ট্রের নিরাপত্তাকে হুমকির মুখে ঠেলে দেবে।