প্রত্যেকটা শো-ই খুব পছন্দের-পড়শী

আগের সংবাদ

সিনেমায় মা-ছেলের রসায়ন

পরের সংবাদ

মা ও মেয়ের যুগলবন্দি

প্রকাশিত হয়েছে: মে ১১, ২০১৯ , ৩:২৭ অপরাহ্ণ | আপডেট: মে ১১, ২০১৯, ৩:২৭ অপরাহ্ণ

Avatar

১৯৭৯ সালে পদাতিক নাট্যসংসদের সোজন বাদিয়ার ঘাট নাটকটিতে প্রথম অভিনয় করেন রোকেয়া রফিক বেবী। নাটকটির নির্দেশনায় ছিলেন এস এম সোলায়মান। এরপর ১৯৯২ সালে থিয়েটার আর্ট ইউনিটে যোগ দেন এ গুণী অভিনেত্রী। দলটির প্রযোজনায় গোলাপজান নাটকে অভিনয় করে তুমুল প্রশংসিত হন তিনি। ব্যক্তিজীবনে সোলায়মান ও রোকেয়া রফিক বেবী বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। তাদের দাম্পত্যজীবনে সুখের পরশ নিয়ে আসে একমাত্র মেয়ে আনিকা মাহিন একা। ২০০১ সালে প্রয়াত হন একুশে পদকজয়ী নাট্যব্যক্তিত্ব এসএম সোলায়মান। এরপর থেকে আনিকা মাহিন ও থিয়েটার নিয়েই ব্যস্ত থাকেন রোকেয়া রফিক বেবী। একের পর এক মঞ্চে অভিনয় ও নাট্যনির্দেশনায় নিজেকে অনন্য মাত্রায় নিয়ে গেছেন বেবী।
অন্যদিকে গুণী বাবা-মায়ের রক্ত বইছে যার শরীরে সেও যে গুণবতী, তার প্রমাণ রেখে চলেছেন আনিকা। নাট্যকার ও অভিনেত্রী হিসেবে বাংলাদেশের মঞ্চে এরই মধ্যে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন আনিকাও। নাট্যকার হিসেবে এরই মধ্যে তিনটি নাটক মঞ্চে এসেছে তার। কামাল উদ্দিন নীলুর নির্দেশনায় সেন্টার ফর এশিয়ান থিয়েটার মঞ্চে আনে আনিকার লেখা ‘ম্যাকাব্রে’। এ ছাড়া থিয়েটার আর্ট ইউনিট মঞ্চে ‘মর্ষকাম’ ও ‘সুতায় সুতায় হ্যানা ও শাপলা’। এ দুটি নাটকই নির্দেশনা দিয়েছেন রোকেয়া রফিক বেবী। চলতি সপ্তাহে ‘সুতায় সুতায় হ্যানা ও শাপলা’ নাটকটি নিয়ে সুইডেন সফর করছে থিয়েটার আর্ট ইউনিট। এই সফরে রয়েছেন নাট্যকার আনিকা মাহির ও নির্দেশক রোকেয়া রফিক বেবী।
সুইডেনের স্টকহোম থেকে ভোরের কাগজের সঙ্গে কথা বলেছেন রোকেয়া রফিক বেবী ও আনিকা মাহিন। মেয়ের লেখা নাটক নির্দেশনা দিতে কেমন লাগে জানতে চাইলে? রোকেয়া রফিক
বেবী বলেন, নির্দেশক হিসেবে কখনো মনে হয় না যে মেয়ের লেখা নাটক নির্দেশনা দিচ্ছি। একজন নাট্যকারের লেখা আমাকে যতটা প্রভাবিত করে সেখান থেকেই মঞ্চে সেটাকে তুলে ধরার চেষ্টা করি। তখন ভুলে যায় নাট্যকার আমার মেয়ে, আমি তার মা। মঞ্চের ওই সময়টাতে আমি নির্দেশক। আমার মেয়ের লেখার নাটক নয়, নাট্যকার আনিকা মাহিনের লেখা নাটক মঞ্চে নির্দেশনা দিচ্ছি। একই রকম মন্তব্য করলেন নাট্যকার আনিকা মাহিনও। তিনি বলেন, নাটক লেখার সময় তো মাথায় থাকে না কে নির্দেশনা দেবেন। মা যখন নির্দেশক তখন শেয়ারিংটা ভালো হয়। তিনি আমাকে ভালো বুঝতে পারেন। আমি নাটকটাই লেখার চেষ্টা করি।
এদিকে থিয়েটার আর্ট ইউনিটের নতুন
নাটক ‘সুতায় সুতায় হ্যানা ও শাপলা’। গত ২৪ এপ্রিল নাটকটির উদ্বোধনী প্রদর্শনী হয়। দলটি এখন সুইডেনে অবস্থান করছে।
গতকাল শুক্রবার স্টকহোমের ফ্রায়া টি টার্ন হলে নাটকটির মঞ্চায়ন হয়। আজ শনিবার একই মিলনায়তনে নাটকটির আরো একটি প্রদর্শনী হবে। নাটকটির নির্দেশক ও থিয়েটার আর্ট ইউনিটের দলপ্রধান রোকেয়া রফিক বেবী বলেন, সুইডেনে প্রথমবার থিয়েটার আর্ট ইউনিট নাটক মঞ্চায়ন করছে। সাংস্কৃতিক বিনিময় প্রকল্পের আওতায় সুইডিশ নাট্যদল সন্দ্রেবলসের আমন্ত্রণে আমরা সুইডেন সফর করছি। ১৯ জনের দল নিয়ে আমরা এখানে অবস্থান করছি। ফিরব ১৫ মে। নাটক মঞ্চায়ন ছাড়াও কর্মশালা ও সেমিনারে অংশ নেবে আমাদের দল। নাট্যকার আনিকা মাহিন বলেন, নাটকটি মূলত পৃথিবীর দুই প্রান্তের দুই নারীর উপাখ্যান। হ্যানা বিংশ শতাব্দীর দ্বারপ্রান্তে জন্ম নেয়া সুইডেনের এক সূচিশিল্পী। অন্যদিকে শাপলা বাংলাদেশের এক পোশাক কারখানার শ্রমিক। নাটকটি এই দুই মৃত নারীর পরস্পরের গল্পকথন।

বিষয়: