ফণী: উদ্ধার সহায়তায় প্রস্তুত নৌবাহিনীর ৩২ জাহাজ

আগের সংবাদ

পরীক্ষার্থীদের হয়রানি বন্ধে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা জরুরি

পরের সংবাদ

দুর্যোগ নিয়ে বিএনপির বক্তব্য দুঃখজনক: হানিফ

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: মে ৩, ২০১৯ , ৮:০১ অপরাহ্ণ

আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বিএনপি নেতাদের উদ্দেশ্য করে বলেছেন, প্রাকৃতিক দুর্যোগ নিয়ে নোংরা রাজনীতি বন্ধ করুন।

আজ শুক্রবার (৩ মে) সকালে রাজধানীর ধানমণ্ডির আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সম্পাদকমণ্ডলীর এক বৈঠক শেষে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এমন আহ্বান জানান। এর আগে ঘূর্ণীঝড় ‘ফণী’ মোকাবেলায় করণীয় ঠিক করতে দলটির সভাপতিমণ্ডলী ওই জরুরি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

হানিফ বলেন, বিএনপি দুর্যোগ নিয়ে নোংরা রাজনৈতিক বক্তব্য দিয়েছে, তা দুঃখজনক। ঘূর্ণিঝড়কে মোকাবেলায় সার্বিক প্রস্তুতি আমাদের সরকার নিয়ে রেখেছে। এমনকি প্রশাসনের সঙ্গে দুর্যোগ পূর্ব ও পরবর্তী করণীয় দায়িত্ব নিয়ে প্রতিটি জেলা, উপজেলায় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরাও প্রস্তুত রয়েছে।

তিনি জানান, সরকারি প্রস্তুতির মধ্যে রয়েছে- নৌ-মন্ত্রণালয়, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় ছুটির দিনেও খোলা রাখা হয়েছে। যাতে জরুরি সেবা চালু রাখা যায়।

মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দুর্যোগ সম্ভাব্য এলাকাগুলোর প্রশাসন কাজ শুরু করেছে। এসব জেলা-উপজেলায় মনিটরিং সেল গঠন করা হয়েছে। যেখান থেকে সরকারি ও আমাদের দলীয় নেতা-কর্মীরা একযোগে সব ধরনের সেবা নিয়ে প্রস্তুত আছে। প্রাথমিক চিকিৎসা, শুকনো খাবারসহ সব ধরনের ত্রাণ-সামগ্রী প্রস্তুত রাখা হয়েছে। প্রথমে মাইকিং করে সারাদেশে মানুষকে দুর্যোগের সতর্ক ও করণীয় জানানোর কাজ চলছে।

এদিকে, প্রতি উপজেলা মনিটরিং সেলের তত্ত্বাবধায়নে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় অফিসে কাজ কছে একটি সেল। এই সেলের দায়িত্বে আছেন দলের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদ, আমির হোসেন আমু, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, মাহবুব-উল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক ও এনামুল হক শামিমসহ প্রায় ৫০ সদস্যের টিম।

হানিফ বলেন, এই টিমের কাজ সারাদেশে প্রতি মুহূর্তে কোথায় কি দায়িত্ব পালন করা প্রয়োজন সে বিষয়ে তাৎক্ষণিক কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হবে। অথচ, বিএনপির নেতারা বলে বেড়াচ্ছেন ‘প্রধানমন্ত্রী এই দূর্যোগের কোনো ব্যবস্থা না নিয়ে হঠাৎ করে লন্ডণ চলে গেছেন’। আমরা মনে করি এটা দুর্যোগ নিয়ে বিএনপির নোংরা রাজনীতি।

তিনি আরও বলেন, বিএনপির নেতা-কর্মীরা সবসময় নোংরা দায়িত্বহীন কথা বলেন। ১৯৯১ সালের ২৯ এপ্রিল ঘূর্ণিঝড়ে পর যখন লক্ষাধিক মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল, তখনো খালেদা জিয়া বলেছিলেন, যতো মানুষ মরার কথা ছিল ততো মরে নাই। যাই হোক আমি দেশের মানুষের প্রতি আহ্বান করছি, আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকুন। সময় মতো আশ্রয়কেন্দ্রে যান। তবে আশা করা যাচ্ছে বৃষ্টির কারণে দূর্বল হয়ে বাংলাদেশে ঢুকবে ‘ফণী’। তবুও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষের প্রতি আহ্বান করেছেন আজ জুম্মার নামাজ পড়ে দোয়া করবেন, সবার যেন জানমালের ক্ষতি কম হয়।