বড় জয় চান ছোটন

আগের সংবাদ

প্রধানমন্ত্রী ক্রিকেটারদের যে পরামর্শ দিলেন

পরের সংবাদ

৪০ হাজার টন মাল্টা-কমলা উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা

প্রকাশিত: এপ্রিল ৩০, ২০১৯ , ৩:৫৬ অপরাহ্ণ আপডেট: এপ্রিল ৩০, ২০১৯ , ৩:৫৬ অপরাহ্ণ

৪০ হাজার টন মাল্টা ও কমলা উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে সরকার। আগামী চার বছরে লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী এ পরিমাণ ফল উৎপাদন হলে ৪০০ কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয় হবে বলে মনে করছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর।
সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বর্তমানে বারি মাল্টা-১ জাতের ফলটি দেশের প্রায় সব এলাকাতেই ভালো ফলন দিচ্ছে। কমলা চাষ করেও আলোর মুখ দেখছেন কৃষকরা। এসব বিষয় মাথায় রেখেই দেশের ৩০ জেলায় মাল্টা ও কমলা উৎপাদনের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। যা চলতি বছরেই ছড়িয়ে পড়বে মাঠ পর্যায়ে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্র জানায়, দেশের সাত বিভাগের ৩০টি জেলার ১২৩ উপজেলায় আধুনিক পদ্ধতিতে কমলা ও মাল্টা চাষ করা হবে। সাইট্রাস ডেভেলপমেন্ট (লেবু জাতীয় ফল) ও কমলা উন্নয়নের আওতায় ৩০টি জেলায় পাঁচ হাজার বাগানের মাধ্যমে কমলা ও মাল্টা চাষ করা হবে। পরিপক্ব সবুজ রংয়ের বারি মাল্টা-১ এর উচ্চ ফলন ও স্বাদের কারণে বাংলাদেশের মানুষের কাছে এই ফল জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। প্রাথমিকভাবে সবুজ মাল্টা উৎপাদনে বেশি নজর দেয়া হবে। কৃষক পর্যায়ে এই জাতের মাল্টা চারা থেকে শুরু করে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দেবে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। এ বিষয়ে কৃষি মন্ত্রণালয়ের পরিকল্পনা-২ শাখার উপপ্রধান দীপক কুমার সরকার সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, আমরা বিভিন্ন ধরনের প্রযুক্তি উদ্ভাবন করে দেখেছি বারি মাল্টা-১ দেশের প্রায় সব এলাকাতেই ভালো ফলন দিতে পারে। এ ধরনের ফলের স্বাদের জন্য মানুষের কাছে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। ফলে ৩০টি জেলায় সবুজ মাল্টা উৎপাদনে নজর দেয়া হচ্ছে। পাশাপাশি কমলা, বাতাবি লেবুও উৎপাদন করা হবে। কৃষক পর্যায়ে সব ধরনের সহযোগিতা দেয়া হবে। এরই মধ্যে দেশব্যাপী এ কাজ শুরু করে হয়েছে। চলতি বছরেরই মাঠ পর্যায়ে কাজ শুরু করব। আগামী চার বছরে ৪০ হাজার টন মাল্টা ও কমলা উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছি। জানা যায়, প্রথম দিকে ঢাকা, গাজীপুর, টাঙ্গাইল, নরসিংদী, ময়মনসিংহ, শেরপুর, নেত্রকোণা, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, সিলেট ও মৌলভীবাজারে চাষ হবে মাল্টা ও কমলা। এ ছাড়া চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লা, ফেনী, খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি, বান্দরবান, দিনাজপুর, পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর, রংপুর ও কুড়িগ্রামেও উৎপাদন করা হবে কমলা ও মাল্টা।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়