বিশ্বকাপের পাঁচ চমক

আগের সংবাদ

টেকনাফে নাফ নদ নির্ভর জেলেদের হাহাকার

পরের সংবাদ

পোলোসাকের অনন্য কীর্তি

প্রকাশিত হয়েছে: এপ্রিল ২৮, ২০১৯ , ১:২৭ অপরাহ্ণ | আপডেট: এপ্রিল ২৮, ২০১৯, ১:২৭ অপরাহ্ণ

Avatar

গতকাল অনুষ্ঠিত হয়েছে ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট লিগ ডিভিশন টু-এর ফাইনাল ম্যাচ। ফাইনালে মুখোমুখি হয় নামিবিয়া ও ওমান। তবে ফাইনাল ম্যাচের জয়-পরাজয়কে ছাপিয়ে ম্যাচ শেষে আলোচনায় উঠে আসে আরেকটি বিষয়। ক্রিকেট বিশ্ব অতীতে যা কখনো দেখেনি, এই ম্যাচে সেটারই সাক্ষী হলো। ম্যাচটিতে আম্পায়ার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ক্লাইরি পোলোসাক নামের এক অস্ট্রেলিয়ান নারী। পুরুষদের ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে যা প্রথম। সে হিসেবে নামিবিয়া ও ওমানের মধ্যকার ওয়ার্ল্ড ক্রিকেট লিগ ডিভিশন টু টুর্নামেন্টের ফাইনাল ম্যাচে আম্পায়ার হিসেবে দায়িত্ব পালন করার মধ্য দিয়ে অনন্য এক কীর্তিই গড়ে ফেললেন পোলোসাক।
বর্তমানে ৩১ বছর বয়সী ক্লাইরি পোলোসাকের জন্ম ১৯৮৮ সালের ৭ এপ্রিল অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলশে। ছেলেদের টুর্নামেন্টে আম্পায়ারের দায়িত্ব সামলানোটা এবারই প্রথম অভিজ্ঞতা নয় পোলোসাকের জন্য। এর আগে প্রথম নারী হিসেবে অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া ক্রিকেটে ছেলেদের প্রতিযোগিতায় আম্পায়ারের দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। পাশাপাশি নিয়মিত নারীদের বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট টুর্নামেন্টে আম্পায়ারের দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন এই অস্ট্রেলিয়ান রমণী।
নামিবিয়া ও ওমানের মধ্যকার ফাইনাল ম্যাচে আম্পায়ার হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে পারায় দারুণ উচ্ছ¡সিত পোলোসাক। এ বিষয়ে তিনি বলেন, প্রথম নারী হিসেবে পুরুষদের ক্রিকেটে আম্পায়ার হিসেবে দাঁড়াতে পেরে আমি দারুণ খুশি। এটা এমন এক রোমাঞ্চকর অনুভূতি, যা ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না। নারী আম্পায়ারদের বিশ্ব জুড়ে ছড়িয়ে দিতে এটা দারুণ এক উদ্যোগ। আর এমন উদ্যোগ নেয়ার জন্য আমি ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলকে (আইসিসি) ধন্যবাদ জানাই। প্রসঙ্গত, ২০১৬ সাল থেকে নারীদের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আম্পায়ারিং করে আসছেন পোলোসাক। এখন পর্যন্ত মেয়েদের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১৫টি ওয়ানডে ম্যাচ পরিচালনা করেছেন তিনি।

বিষয়: