শিল্পকলায় প্রথা ভাঙল নাট্যজনের ‘মুনতাসির’

আগের সংবাদ

কুমিল্লায় বিজিবির সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক ব্যবসায়ী নিহত

পরের সংবাদ

দুরন্ত মেয়েদের উড়ন্ত সূচনা

প্রকাশিত হয়েছে: এপ্রিল ২৩, ২০১৯ , ১:২৬ অপরাহ্ণ | আপডেট: এপ্রিল ২৩, ২০১৯, ১:২৬ অপরাহ্ণ

Avatar

শুরু হয়েছে বহুল প্রত্যাশিত বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ আন্তর্জাতিক গোল্ড কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট। গতকাল বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাফুফের সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিন, সিনিয়র সহসভাপতি আবদুস সালাম মুর্শেদী, সহসভাপতি কাজী নাবিল আহমেদ, মহিউদ্দিন আহমেদ মহি, ফিফা কাউন্সিল মেম্বার ও বাফুফের মহিলা কমিটির চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরণ, টুর্নামেন্টের স্বত্বাধিকারী কে-স্পোর্টসের সিইও এম ফাহাদ করিম ও বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ।
উদ্বোধনী ম্যাচে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে ২-০ গোলে হারিয়ে টুর্নামেন্টে দুরন্ত সূচনা করেছে স্বাগতিক বাংলাদেশের দুরন্ত মেয়েরা। ম্যাচে লাল-সবুজের প্রতিনিধিদের হয়ে একটি করে গোল করেন সিরাত জাহান স্বপ্না ও কৃষ্ণা রানী সরকার।
ফিফা র‌্যাঙ্কিং যদি শক্তির মাপকাঠি হয় তাহলে বাংলাদেশের চেয়ে শক্তিশালীই বলতে হবে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে। কেননা নারী ফুটবলের ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে এখন বাংলাদেশের অবস্থান ১২৭ নম্বরে। অন্যদিকে আরব আমিরাতের মেয়েরা আছে র‌্যাঙ্কিংয়ের ৯৮তম স্থানে। অর্থাৎ আরব আমিরাতের চেয়ে ২৯ ধাপ পিছিয়ে আছে বাংলাদেশের মেয়েরা।
এ ছাড়া ছয় জাতির এই টুর্নামেন্টে যে চারটি দেশের নাম ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে অন্তর্ভুক্ত আছে তাদের মধ্যে বাংলাদেশেই সবার শেষে রয়েছে। এ ক্ষেত্রে মঙ্গোলিয়া ১১৮ ও তাজিকিস্তান রয়েছে ১২৬ নম্বরে। তবুও টুর্নামেন্টটি যেহেতু বয়সভিত্তিক তাই ফেভারিট মানা হচ্ছে কোচ গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যদের। এর কারণ বয়সভিত্তিক ফুটবলে বাংলাদেশের মেয়েদের ঈর্ষণীয় সাফল্য। তার ওপর আবার টুর্নামেন্টে স্বাগতিক হিসেবেই অংশ নিচ্ছেন মৌসুমি-মারিয়ারা।
আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মিসরাত জাহান মৌসুমি বলেছিলেন, সবাই আমাদের ফেভারিট মানছে। এটা আমাদের জন্য অনেক বড় পাওয়া। এখন মাঠে সেটা প্রমাণ করতে হবে।
উদ্বোধনী ম্যাচে মাঠে নিজেদের সামর্থ্যরে প্রমাণটা বেশ ভালোভাবেই দিয়েছে ছোটনের শিষ্যরা। সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিপক্ষে এ দিন প্রথম গোলের দেখা পেতে বেশিক্ষণ সময় লাগেনি মৌসুমিদের। ম্যাচের ১২ মিনিটেই এগিয়ে (১-০) যায় স্বাগতিকরা। এ সময় একক প্রচেষ্টায় বল নিয়ে আরব আমিরাতের ডি-বক্সের ভেতর ঢুকে বুদ্ধিদীপ্ত শটে লক্ষ্যভেদ করে বাংলাদেশকে এগিয়ে নেন সিরাত জাহান স্বপ্না। দুই মিনিট পর সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেন কৃষ্ণা রানী সরকার। এভাবে একের পর এক আক্রমণ করতে থাকা বাংলাদেশের মেয়েরা ব্যবধান দ্বিগুণ (২-০) করে ম্যাচের ৩০ মিনিটের মাথায়। এবার কর্নার কিক থেকে উড়ে আসা বলে হেডে গোল করেন কৃষ্ণা। প্রথমার্ধে আর কোনো গোল না হলে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় মৌসুমির দল। দ্বিতীয়ার্ধেও আক্রমণাত্মক ফুটবলের ধারা অব্যাহত রাখে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। তবে বিরতি থেকে ফেরার পর আর কোনো গোলের দেখা পায়নি স্বাগতিকরা। ফলে ২-০ গোলের জয় নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় বাংলাদেশের দুরন্ত মেয়েদের।