পার্কিংয়ের জন্য ‘ইয়েস পার্কিং’

আগের সংবাদ

‘লেট মি আউট’ নিয়ে মুখোমুখি বাকার বকুল

পরের সংবাদ

জেনেভায় নতুন গাড়ি

প্রকাশিত হয়েছে: এপ্রিল ২২, ২০১৯ , ২:৫০ অপরাহ্ণ | আপডেট: এপ্রিল ২২, ২০১৯, ২:৫০ অপরাহ্ণ

Avatar

ইউরোপের অন্যতম প্রধান ক‚টনীতিক কেন্দ্র জেনেভা। প্রতিবছর সবচেয়ে সেরা এবং নতুন গাড়ি নিয়ে এখানে জড়ো হয় অটোমোবাইল কোম্পানিগুলো। চোখধাঁধানো নজরকাড়া গাড়ির নামের পাশে দামের অঙ্কটাও থাকে বেশ ভারি। চলতি বছরও তার ব্যতিক্রম হয়নি, ২০১৯ সালের জেনেভা মোটর শোতে সবচেয়ে দামি গাড়ির রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে বুগাটির নতুন গাড়ি।

ফেরারি এফএইট ট্রিবিউটো
ফেরারির পুরনো ৪৮৮ জিটিবিকে সরিয়ে দিয়ে সেখানে জায়গা করে নিয়েছে এফএইট ট্রিবিউটো। ৭২০ অশ্বক্ষমতার ইঞ্জিনের এই গাড়ি মাত্র ২.৯ সেকেন্ডের মধ্যেই ৬০ মাইল গতিবেগ ওঠাতে সক্ষম। তাছাড়া ৪৮৮ জিটিবির তুলনায় এর অ্যারোডায়নামিক সক্ষমতাও ১০% বেশি। এবার ম্যাকলারেন ৭২০ এসের সঙ্গে টক্কর দিতে প্রস্তুত হয়ে এসেছে ফেরারি।

ল্যাম্বোরঘিনি হুরাহকান এভো স্পাইডার
জেনেভাতে ল্যাম্বোরঘিনি একটি নয় বরং দুটি কনভার্টিবল গাড়ি নিয়ে এসেছে। আর দুটির মধ্যে তুলনামূলকভাবে ‘সাশ্রয়ী’ হলো হুরাহকান এভো স্পাইডার। মূলত হুরাহকান ক্যুপের সাসপেনশন ও ইন্টেরিয়র ডিজাইনে পরিবর্তন করা হয়। ৬৪০ অশ্বক্ষমতার ইঞ্জিনের সাহায্যে এটি ০ থেকে ৬২ মাইল গতিবেগ ওঠাতে সময় নেয় ৩.১ সেকেন্ড।

ল্যাম্বোরঘিনি অ্যাভেন্টেডর এসজেভি রোডস্টার
হুরাহকান এভো স্পাইডার ছাড়াও দ্বিতীয় যে কনভার্টিবলটি ল্যাম্বোরঘিনি জেনেভাতে এনেছে সেটি হলো অ্যাভেন্টেডর এসজেভি রোডস্টার। বয়সের দিক থেকে একটু বেশি হলেও অ্যাভেন্টেডর মডেল এখনো আকর্ষণীয় ক্রেতাদের কাছে। তবে এসজেভি রোডস্টার মডেলটি হবে লিমিটেড এডিশন, ৮০০টি তৈরি করা হবে কনভার্টিবলটি। এর ৬.৫লিটার ভিটুয়েলভ ইঞ্জিন ৭৭০ অশ্বক্ষমতা শক্তি উৎপাদন করতে সক্ষম, সঙ্গে ২.৯ সেকেন্ড সময় নেয় ৬০ মাইল গতিবেগ ওঠাতে।

অ্যাস্টন মার্টিন ভ্যানকুইশ ভিশন কনসেপ্ট
ল্যাম্বোরঘিনিই একমাত্র কোম্পানি নয় যারা তাদের নতুন দুটি সুপারকার জেনেভাতে এনেছে, তালিকাতে রয়েছে অ্যাস্টন মার্টিন। অ্যাস্টন মার্টিনের এই ভ্যানকুইশ ভিশন কনসেপ্ট গাড়িতে রয়েছে অ্যাস্টনের নতুন টুইনটারবো ভিসিক্স ইঞ্জিন।

অ্যাস্টন মার্টিন এএম-আরবি ০০৩
ভ্যানকুইশের পাশাপাশি জেনেভাতে এএম-আরবি ০০৩-কেও এনেছে অ্যাস্টন মার্টিন। অ্যাস্টন মার্টিন ভ্যালকাইরির রোড-ফ্রেন্ডলি সংস্করণ বলা যেতে পারে এই মডেলটিকে। অ্যাস্টনের নতুন ভিসিক্স ইঞ্জিনও এই গাড়িতে প্রথম যুক্ত হতে যাচ্ছে।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা