মেসি-সালাহ দ্বৈরথ

আগের সংবাদ

আসছে আলফা

পরের সংবাদ

এক প্রবাসী আবেগপ্রবণ হয়ে পড়ে : বেলাল খান

প্রকাশিত হয়েছে: এপ্রিল ২০, ২০১৯ , ৪:৫৯ অপরাহ্ণ | আপডেট: এপ্রিল ২০, ২০১৯, ৪:৫৯ অপরাহ্ণ

Avatar

সারা বছর অসংখ্য কনসার্ট করি। তার মধ্য থেকে কিছু কনসার্টকে আলাদাভাবে চিহ্নিত করা আমার জন্য বেশ কঠিন। তবুও এমন কিছু প্রোগ্রাম থাকে যেগুলো সারাজীবনই স্মরণীয় হয়ে থাকে। অর্থাৎ কিছু শো থাকে যেগুলো কিছু দিন পর আর তেমনভাবে মনে থাকে না, আবার কিছু শো থাকে যেগুলো একদম মনের ভেতর সবসময় গেঁথে থাকে; আমার কাছে সেসবই সেরা কনসার্ট।
নিজ এলাকায় কনসার্ট
এই মুহূর্তে যে কনসার্টের কথা বলতে চাচ্ছি, তা হলো আমার নিজ এলাকায় আয়োজিত একটি কনসার্ট। ২০১৪ সালের কথা; ভেন্যু ছিল সখিপুর মহিলা কলেজ মাঠ, টাঙ্গাইল। সেই কনসার্টে আমাদের সখিপুর-বাসাইল ওই অঞ্চলের গুণী ও কৃতী সন্তানদের সম্মাননা দেয়া হয়েছিল। সেই কনসার্টে আয়োজনের পেছনে যারা ছিলেন তাদের সবার কাছে আমি ঋণী। তাদের জন্য দোয়া ও ভালোবাসা রইল। এবং সৌভাগ্যবশত সেই অনুষ্ঠানে যে বিশ জন গুণী মানুষের তালিকা করা হয়েছিল, সেই তালিকাপত্রে আমারও নাম ছিল। নিঃসন্দেহে তা জীবনের সেরা প্রাপ্তি। ওই কনসার্টে, যেখানে বড় হয়েছি সেই এলাকায় এত বড় এক আয়োজনে থাকতে পেরেছি, গান করতে পেরেছি তা সত্যিই আনন্দের। বলতে গেলে, এই কনসার্ট ছিল জীবনের সেরা একটা মুহূর্ত।
প্রথম আমেরিকা ভ্রমণ
মনে রাখার মতো আরেকটি বিশেষ কনসার্ট ছিল ইউএসএতে। তা ছিল ২০১৩ সালে, তখনই প্রথমবারের মতো নিউইয়র্কে যাই। তার কিছুদিন আগেই আমার ‘স্টেশন’ গানটা বের হয়েছিল। তখন সেই শোতে এই গান গাওয়ার জন্য অনেক অনুরোধ আসছিল। সে সময় এ গান শুনে একজন প্রবাসী ভীষণ আবেগপ্রবণ হয়ে পড়ে। এবং অনুষ্ঠান শেষে তিনি আমার সঙ্গে দেখা করেন। তারপর জানতে পারি, তিনি বিদেশে গিয়ে খুব ভালো অবস্থায় নেই, ছোট একটা কাজ করেন। এমন অবস্থাতেও তিনি আমাকে একশ ডলার সেধে ছিল; কিন্তু আমি নিতে চাচ্ছিলাম না। তখন পাশ থেকে একজন বলছিল, ‘আরে নাও নাও, এটা ভালোবাসা’। এই কথাটা খুব মনে পড়ে।
দর্শকদের আবদার ভালো লাগে
একমাত্র ওপেন এয়ার কনসার্টে যেহেতু দর্শকদের সামনাসামনি গাওয়ার সুযোগ পাই; তাই তাদের সঙ্গে আনন্দ ভাগ করে নিই। তারা যখন ‘বাজি! বাজি!’ অথবা ‘পাগল তোর জন্যে রে’ বা তাদের প্রিয় যে কোনো গানই হোক; তা শোনার জন্য দলবেঁধে চিৎকার করে, আবদার জানায়, তারা যে মজা করে এসব উপভোগ করি। তাদের জন্যই আমি আরো গান গাওয়ার প্রেরণা পাই।
মঞ্চে আমি একা পারফর্ম করি না
আসলে মঞ্চে আমি একা পারফর্ম করি না; আমার সঙ্গে যারা মিউজিশিয়ান আছেÑ আমরা সবাই মিলে একত্রে পারফর্ম করি। ভালো-মন্দের সমান ভাগিদার তারাও। দেখবেন যে, কোনো গানের মূল ভার্সন থেকে লাইভ ভার্সন একটু আলাদা হয়; কারণ স্টেজে আমরা সবাই মিলে একসঙ্গে স্বাধীনভাবে কিছু করার, কিংবা আনন্দ করে গাওয়ার চেষ্টা করি।
বর্তমান লাইন-আপে দীর্ঘ পথ হাঁটব
কারো ব্যক্তিগত বিশেষ প্রয়োজন বা সমস্যা না হলে একই লাইন-আপে দীর্ঘদিন কাজ করি। এর আগে আমার অন্য একটা লাইন-আপ ছিল, ওদের ব্যস্ততা বেড়ে যাওয়ায় লাইন-আপে কিছুটা পরিবর্তন করেছি। এ ছাড়া বর্তমান লাইন-আপ নিয়ে দীর্ঘ পথ পাড়ি দেয়ার পরিকল্পনা আছে।