নিমতলী ট্র্যাজেডি: সেই কন্যাদের নিয়ে নববর্ষ উদযাপন প্রধানমন্ত্রীর

আগের সংবাদ

খালেদা জিয়া ‘অত্যন্ত অসুস্থ’: ফখরুল

পরের সংবাদ

জাদেজার ঝড়ে কলকাতার পরাজয়ের হ্যাটট্রিক

প্রকাশিত হয়েছে: এপ্রিল ১৪, ২০১৯ , ৯:২০ অপরাহ্ণ | আপডেট: এপ্রিল ১৪, ২০১৯, ৯:২০ অপরাহ্ণ

Avatar

চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে প্রথম সাক্ষাতে ৭ উইকেটে হেরেছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স। মাঝে দিল্লি ক্যাপিট্যালসের কাছে একই ব্যবধানে হারের পর আজ চেন্নাইয়ের বিপক্ষে ৫ উইকেটে হারল কলকাতা। টানা তিন ম্যাচে হেরে পূরণ করলো পরাজয়ের হ্যাটট্রিক।

তবে কলকাতার বিপক্ষে দ্বিতীয় সাক্ষাতের জয়টি পেতে ঘাম ঝরাতে হয়েছে চেন্নাইকে। স্বাগতিকদের করা ১৬১ রানের সংগ্রহ টপকে যেতে তাদের খেলতে হয়েছে ১৯.৪ ওভার পর্যন্ত। বাঁহাতি অলরাউন্ডার রবিন্দ্র জাদেজার ঝড়েই মূলত জয় নিশ্চিত হয় তাদের।

১৬২ রান তাড়া করতে নেমে সুরেশ রায়না ব্যতীত চেন্নাইয়ের কোনো ব্যাটসম্যানই ভালো করতে পারেননি। ওপেনার শেন ওয়াটসন ৬, দারুণ শুরুর ইঙ্গিত দিয়েও ফাফ ডু প্লেসিস ২৪ এবং আম্বাতি রাইডু ফিরে যান ৫ রান করে। ভালো সম্ভাবনা জাগিয়েও ১২ বলে ২০ রান করে আউট হন কেদার জাদভ।

তখন ম্যাচ জেতানোর দায়িত্ব বর্তায় অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির কাঁধে। তিনিও ব্যর্থ হন এ কাজে। আউট হন ১৩ বলে মাত্র ১৬ রান করে। তবে তখনো টিকে ছিলেন সুরেশ রায়না। ষষ্ঠ উইকেটে রবিন্দ্র জাদেজাকে নিয়ে তিনিই দলকে পৌঁছে দেন জয়ের বন্দরে।

শেষ ২ ওভারে ২৪ রানের প্রয়োজন ছিলো চেন্নাইয়ের। হ্যারি গার্নির করা সে ওভারে টানা ৩ চার মেরে মোট ১৬ রান তুলে নেন জাদেজা। পরে পিয়ুশ চাওলার করা শেষ ওভারের প্রথম বলেই বাউন্ডারি হাঁকিয়ে দলের জয় সহজ করে দেন জাদেজা। ১৭ বলে ৫ চারের মারে ৩১ রানের ঝড় তুলে দলকে জেতান জাদেজা। অন্যদিকে ৪২ বলে ৭ চার ও ১ ছয়ের মারে ৫৮ রানে অপরাজিত থাকেন রায়না।

এর আগে ইনিংসের ১৪তম ওভারে রবিন্দ্র জাদেজাকে পরপর তিন ছক্কা হাঁকিয়ে ক্রিস লিন পৌঁছে যান ৮১ রানে। সে ওভারেই আরও এক রান নেয়ায় ১৪ ওভার শেষে ৫০ বল খেলা লিনের সংগ্রহ ৮২ রান। তখনো ৬ ওভার বাকি থাকায় লিনের সেঞ্চুরি মনে হচ্ছিলো সময়ের ব্যাপার।

কিন্তু তা মানতে রাজি ছিলেন না দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ষীয়ান লেগস্পিনার ইমরান তাহির। পরের ওভারেই আক্রমণে এসে প্রথম বলে সাজঘরে ফেরান ৮২ রান করা লিনকে। সবমিলিয়ে চতুর্থ বোলার হিসেবে আইপিএলে নেন ৪ উইকেট। তার ঘূর্ণিতে দারুণ শুরুর পরেও ১৬১ রানের বেশি করতে পারেনি কলকাতা নাইট রাইডার্স।

ঘরের মাঠে টসে হেরে আগে ব্যাট করতে নামে কলকাতা। উদ্বোধনী জুটিতে ৪.৫ ওভারে ৩৮ রান যোগ করেন লিন এবং সুনিল নারিন। এতে অবশ্য মাত্র ২ রানের অবদান রাখেন নারিন। পঞ্চম ওভারে ২ রান করে আউট হওয়ার আগে তিনি খেলেন ৭ বল।

দ্বিতীয় উইকেটে ৪১ রান যোগ করেন নিতিশ রানা এবং লিন। এগারতম ওভারে বল হাতে আক্রমণে এসে জুটি ভাঙেন তাহির। রানাকে ২১ রানে ফেরানোর পর সে ওভারেই রবিন উথাপ্পাকে খালি হাতেই বিদায় করে দেন তাহির। তবে একপ্রান্ত ধরে ঠিকই খেলতে থাকেন লিন।

রবিন্দ্র জাদেজার ওপরে তোলেন ঝড়। কিন্তু তাহির থামান সেটি। আউট হওয়ার আগে ৭ চার ও ৬ ছক্কার মারে ৫১ বলে ৮২ রান করেন লিন। তাকে সাজঘরে পাঠানোর পর, সে ওভারেই আন্দ্রে রাসেলের কাছে একটি করে চার-ছক্কা হজম করেন তাহির। কিন্তু পঞ্চম বলে ঠিকই রাসেলকে পাঠিয়ে দেন ড্রেসিংরুমে।

পরে কলকাতা অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক ১৪ বলে ১৮ এবং আগের ম্যাচে ফিফটি করা শুভমান গিল ২০ বলে ১৫ রান করলে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৬১ রানে থামে স্বাগতিকদের ইনিংস।

চেন্নাইয়ের পক্ষে বল হাতে ২৭ রান খরচায় ৪ উইকেট নেন তাহির। এছাড়া শার্দুল ঠাকুর ২টি এবং মিচেল স্যান্টনার নেন ১টি উইকেট।