মাধবপুরে সীমানা বিরোধের জেরে বৃদ্ধ খুন

আগের সংবাদ

১৮ হাজার কোটি টাকার সাত প্রকল্প অনুমোদন

পরের সংবাদ

‘দেশে ৭ লাখ কোটি কালো টাকা রয়েছে’

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: এপ্রিল ১০, ২০১৯ , ৩:১৭ অপরাহ্ণ

দেশে এখন ৭ লাখ কোটি টাকার বেশি কালো টাকা আছে জানিয়ে আগামী বাজেটে কালো টাকা উদ্ধারে বিশেষ গুরুত্ব দেয়ার প্রস্তাব করেছেন বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সভাপতি আবুল বারকাত।
গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর সেগুনবাগিচার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) প্রাক-বাজেট আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। এনবিআরের চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে সভায় এ সময় এনবিআরের একাধিক সদস্য ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার পাশাপাশি অর্থনীতিবিদ ও বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
আবুল বারকাত বলেন, বর্তমানে দেশে ৭ লাখ কোটি টাকার বেশি কালো টাকা আছে। যা সরকারের দুটি অর্থবছরের বাজেটের সমান। অর্থাৎ এ টাকা দিয়ে সরকার দুটি অর্থবছরের বাজেট পরিচালনা করতে পারবে। তিনি বলেন, সব কালো টাকা উদ্ধার করে, একসঙ্গে অর্থনীতির মূল স্রোতে আনা সম্ভব নয়। তবে কীভাবে অর্থনীতিতে আনা যায় বাজেটে তার একটি পরিকল্পনা থাকা দরকার। আসছে বাজেটে অন্তত ২৫-৩০ হাজার কোটি টাকা যাতে উদ্ধার করা যায় সেই প্রণোদনা থাকা উচিত বলে মত দেন তিনি।
অর্থনীতিবিদ আবুল বারকাত বলেন, প্রতি বছর ৭০-৮০ হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার হচ্ছে তা রোধ করারও সুস্পষ্ট উদ্যোগ বাজেটে রাখা দরকার। এ ছাড়াও মাদক ও চোরাচালানের বিষয়ে গুরুত্বারোপের সময় এসেছে বলে মনে করেন তিনি।
গবেষণা সংস্থা সেন্টাল ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) সিনিয়র রিসার্চ ফেলো তৌফিকুল ইসলাম খান বলেন, বাজেট ব্যবসাবান্ধব হতে হবে। আগামী বাজেটে ভ্যাট আইন বাস্তবায়ন করবে। ভ্যাট আইন মূলত প্রণয়ন করা হয়েছিল অটোমেশনের ওপর ভর করে। তাই অটোমেশনে দীর্ঘমেয়াদি ছাড় দিলে ভ্যাট আইন বাস্তবায়নে জটিলতা তৈরি হবে।
সিপিডির এই গবেষক বলেন, দেশের অর্থনীতির আকার বাড়ছে। তাই ট্যাক্স জিডিপি ৪০ শতাংশে উন্নীত করতে হবে। যাদের টিআইএন আছে তারা ঠিকমতো রিটার্ন দিচ্ছেন কিনা তা এনবিআর খতিয়ে দেখতে পারে। তাদের চিহ্নিত করে সামাজিক চাপ তৈরি করতে পারে। তবে জোর করে নয়।
তৌফিকুল ইসলাম বলেন, করের আওতা বাড়াতে হবে। এ ক্ষেত্রে প্রপার্টি ট্যাক্সের বিষয়টি এনবিআর বিবেচনা করতে পারে। সেই সঙ্গে রপ্তানির ক্ষেত্রে যাদের সরকার ইনসেনটিভ দেয় সেটা জনসম্মুখে প্রকাশ করার দাবি জানিয়েছে এ গবেষণা সংস্থা।