চয়নিকার নয়া চ্যালেঞ্জ

আগের সংবাদ

বল হাতে আল আমিন ঝলক

পরের সংবাদ

সিদ্দিকুরের শিরোপার হাতছানি

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: এপ্রিল ৬, ২০১৯ , ৪:৫৯ অপরাহ্ণ

বঙ্গবন্ধু কাপ গলফ ওপেনে তৃতীয় রাউন্ড শেষে অস্ট্রেলিয়ার ম্যাভেরিক অ্যান্টক্লিপের সঙ্গে যৌথভাবে তৃতীয় স্থানে আছেন বাংলাদেশের সেরা গলফার সিদ্দিকুর রহমান। তিন রাউন্ড মিলিয়ে কোনো বগি না করে পারের চেয়ে ১১ শট কম খেলেছেন তিনি। সেরা দশে আছেন বাংলাদেশের আরেক গলফার আকবর হোসেনও। তৃতীয় রাউন্ডে তিনটি বার্ডি ও একটি বগি করা আকবর পারের চেয়ে ৯ শট কম খেলে আরো দুজনের সঙ্গে যৌথভাবে সপ্তম স্থানে আছেন। আগের রাউন্ডেও যৌথভাবে সপ্তম স্থানে ছিলেন তিনি। তৃতীয় রাউন্ডে সবার শীর্ষে আছেন থাইল্যান্ডের তরুণ গলফার স্যাডম কায়েকানজানা। তিনি পারের চেয়ে ১৮ শট কম খেলেছেন। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন ভারতের রশিদ খান। অন্যদিকে প্রথম রাউন্ড শেষে দ্বিতীয় স্থানে থাকা বাংলাদেশের মুয়াজ আছেন যৌথভাবে ২৯তম স্থানে।
কুর্মিটোলা গলফ কোর্সে গতকাল তিনটি বার্ডি করেন সিদ্দিকুর। এশিয়ান ট্যুরের দুটি শিরোপা জেতা এই গলফার আগের রাউন্ডে ছিলেন যৌথভাবে চতুর্থ স্থানে। এ ছাড়া স্থানীয় গলফারদের মধ্যে সজীব আলী সব মিলিয়ে পারের চেয়ে পাঁচ শট কম খেলে যৌথভাবে চতুর্দশ, জামাল হোসেন মোল্লা তিন শট কম খেলে যৌথভাবে ২৪তম স্থানে আছেন। বাদল হোসেন পারের চেয়ে এক শট, মোহাম্মদ সাইয়ুম ও মোহাম্মদ শাহ আলম পারের চেয়ে চার শট, শাখাওয়াত হোসেন সোহেল পারের চেয়ে পাঁচ শট এবং নূর জামাল ও দিল মুহাম্মদ পারের চেয়ে ছয় শট বেশি নিয়ে আজ শেষ রাউন্ড শুরু করবেন।
খেলা শেষে সিদ্দিকুর বলেন, আজকের (গতকালের) দিনটা অনেক ভালো ছিল। তিন দিনে মাত্র একটা বগি হয়েছে। যদিও বার্ডি কম হয়েছে কিন্তু তিন দিন দারুণ কেটেছে আমার। সব মিলিয়ে ১১ আন্ডার পার। ১৫ নাম্বার হোলে একটু সমস্যা হচ্ছিল। এখানে খারাপ হয়েছে। পাটিং কিছু ঠিকমতো হচ্ছে, কিছু হচ্ছে না। ঠিক হওয়া শুধু সময়ের ব্যাপার। আশা করি, শেষ দিনে ভালো কিছু হবে। লিডার বোর্ডে নিজের অবস্থান করে নিতে পারব।
১৫ বছর হলো আমি এখানে খেলছি। সত্যি বলতে আগে যেমন একটা চাপ অনুভব করতাম এখন আর সেটি হচ্ছে না। এখন নিজেকে আত্মবিশ্বাসী মনে হয়। তবে জাতীয় ওপেন হওয়ায় কিছু চাপ তো আছেই। কেননা, এই টুর্নামেন্টটা গুরুত্বপূর্ণ এবং আমি এখানে ভালো কিছু করতে চাই।