চারজন ডাক্তার দিয়ে চলছে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

আগের সংবাদ

হোয়াইটওয়াশ এড়াতে পারল না বাংলাদেশ

পরের সংবাদ

একুশে পদকপ্রাপ্ত চারণকবি বিজয় সরকারের ১১৭তম জন্মদিন আজ

প্রকাশিত হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ২০, ২০১৯ , ২:১৭ অপরাহ্ণ | আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২০, ২০১৯, ২:১৭ অপরাহ্ণ

Avatar

একুশে পদকপ্রাপ্ত চারণকবি বিজয় সরকারের ১১৭তম জন্মদিন আজ (২০ ফেব্রেুয়ারি)। এ উপলক্ষ্যে কবির বসতভিটা নড়াইল সদর উপজেলার ডুমদি গ্রামে ২০ থেকে ২৩ ফেব্রুয়ারি চারদিনব্যাপী বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।
কবিয়াল বিজয় সরকার ১৯০৩ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি নড়াইল সদর উপজেলার ডুমদি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বাবা নবকৃষ্ণ অধিকারী ও মা হিমালয়া দেবী। বিজয় সরকার নবমশ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করেছেন, মতান্তরে মেট্রিক পর্যন্ত। তার দুই স্ত্রী বীণাপানি ও প্রমোদা অধিকারীর কেউ বেঁচে নেই। বিজয় একাধারে গীতিকার, সুরকার ও গায়ক ছিলেন। ১৮০০ বেশি গান লিখেছেন তিনি। প্রকৃত নাম বিজয় অধিকারী হলেও সুর, সঙ্গীত ও অসাধারণ গায়কী ঢঙের জন্য ‘সরকার’ উপাধি লাভ করেন। ‘পাগল বিজয়’ হিসেবে সমধিক পরিচিত তিনি। বার্ধ্যকজনিত কারণে ১৯৮৫ সালের ৪ ডিসেম্বর ভারতের হাওড়ার বেলুডে পরলোকগমন করেন। শিল্পকলায় বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ২০১৩ সালে মরণোত্তর একুশে পদকে ভূষিত হন।
বিজয় সরকার গেয়েছেন-‘পোষা পাখি উড়ে যাবে সজনী/ ওরে একদিন ভাবি নাই মনে/ সে আমারে ভুলবে কেমনে…।’ প্রিয়জনের উদ্দেশ্যে লিখেছেন-‘তুমি জানো নারে প্রিয়/ তুমি মোর জীবনের সাধনা…।’
বিজয় সরকার জন্মজয়ন্তী উদ্যাপন পর্ষদের সভাপতি জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা বলেন, জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে চারণকবি বিজয় সরকার ফাউন্ডেশন ও জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আজ বুধবার (২০ ফেব্রুয়ারি) সকালে ডুমদিতে কবির প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ, নগরকীর্ত্তন, মঙ্গলপ্রদীপ প্রজ্জ্বলন, প্রসাদ বিতরণ ও বিজয়গীতি পরিবেশন করা হবে। এছাড়া ২১ ফেব্রুয়ারি সকালে আলোচনা সভা ও দুপুরে বিজয়গীতি, ২২ ফেব্রুয়ারি বিজয়গীতি এবং ২৩ ফেব্রুয়ারি দুপুরে জারিগান ও আলোচনার আয়োজন করা হয়েছে।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা