মেলায় নাটক ও থিয়েটার বিষয়ক বই

আগের সংবাদ

অভ্যন্তীণ ফ্লাইটের ভাড়া কমানোর পরিকল্পনা সরকারের

পরের সংবাদ

রিকন্ডিশন্ড গাড়ি কিনতে…

প্রকাশিত হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০১৯ , ৪:১৬ অপরাহ্ণ | আপডেট: ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০১৯, ৪:১৬ অপরাহ্ণ

Avatar

দেশে বেশির ভাগ রিকন্ডিশন্ড গাড়িই আসে জাপান থেকে। এর মধ্যে টয়োটা, হোন্ডা, মিৎসুবিশি উল্লেখযোগ্য। আমদানিকারকরা মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, ইউরোপ ও আমেরিকা থেকেও বিভিন্ন ব্র্যান্ডের রিকন্ডিশন্ড গাড়ি আনছেন। এগুলোর কেতাবি নাম অবশ্য একটু ভিন্ন। এগুলোকে বলা হচ্ছে প্রি-ওউনড কার। ঢাকার কাকরাইল, পল্টন, ধানমÐি, বারিধারা আর চট্টগ্রামের মুরাদপুর, আগ্রাবাদে রিকন্ডিশন্ড গাড়ির প্রধান বাজার। অনেকে একটু কম দামে পাওয়ার জন্য সমুদ্রবন্দরে বিভিন্ন কারণে নিলামে তোলা রিকন্ডিশন্ড গাড়িও কেনেন। বেশির ভাগ ক্রেতাই গাড়ির বাইরের সৌন্দর্য দেখে মুগ্ধ হন। তবে মনে রাখতে হবে, গাড়ির ভেতরের যন্ত্রপাতির মানই আসল কথা। শোরুম বা সমুদ্রবন্দর যেখান থেকেই হোক, গাড়িটি কেনার সময় কিছু বিষয়ে খেয়াল রাখা গুরুত্বপূর্ণ। গাড়ি সারাই মিস্ত্রির মতো অভিজ্ঞ কাউকে সঙ্গে রাখা ভালো।
* গাড়ির চেসিস ও ইঞ্জিন নম্বর এবং নিবন্ধন নম্বর মিলিয়ে নিন। গাড়িটি উৎপাদনের দিনক্ষণও জেনে নেয়া ভালো।
* কার লোন নেয়া ও নিবন্ধনের জন্য বিষয়টি জরুরি।
* গাড়িটি কত সিসির এবং আসল কালার ঠিক আছে কি না।
* গাড়ির চাকার অ্যালাইনমেন্ট যথাযথ না থাকলে হুইলগুলো স্টিয়ারিংয়ের নির্দেশ মেনে চলবে না, এমনকি নিজেদের মধ্যে সহযোগিতাও করবে না। ফলে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। চাকার অ্যালাইনমেন্ট যথাযথ আছে কি না তা বোঝার জন্য গাড়ির টায়ার ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করুন। এ ক্ষেত্রে চাকার ব্যালান্সিং এবং সাসপেনশন চেক করে নিতে হবে।
* লুব অয়েল, স্পার্ক প্লাগ, এয়ার ফিল্টার, লুব অয়েল ফিল্টার, এসি ফিল্টার যাচাই করে নিতে হবে।
* অটোমেটিক ট্রান্সমিশন অয়েল তাপসহন ক্ষমতা ভিসকোসিটি যাচাই করুন।
* ইঞ্জিন চেক বাতি সব সময় দেখায়, নাকি মাঝেমধ্যে দেখায়, বিষয়টি পরখ করে নেয়া দরকার। ভিভিটিআই ইঞ্জিনের ক্ষেত্রে ট্যাপেড নয়েজ আছে কি না সেটাও দেখুন। ইঞ্জিন কম্প্রশন, ইগনিশন কয়েল, হাই টেনশন লিড, অয়েল ডিস্ট্রিবিউশন চেক করে নিতে পারেন।
* লুকিং গ্লাস, ডোর গ্লাস, সাউন্ড চেক করুন।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা