রোমান্টিক জুটির প্রিয় ভালোবাসার নাটক

আগের সংবাদ

নাটকে ইংরেজি নামের ছড়াছড়ি

পরের সংবাদ

গল্পের বই মনে করেই সে দিন পড়ে ফেলেছিলাম-ফজলুর রহমান বাবু

প্রকাশিত হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০১৯ , ২:৩১ অপরাহ্ণ | আপডেট: ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০১৯, ২:৩১ অপরাহ্ণ

Avatar

স্মৃতিপটে প্রথম বই
প্রথম বইয়ের স্মৃতি আসলে খুব একটা মনে নেই। তবু অল্প কিছু কথা মনে পড়ছে। আমাদের বাসাতেই একটা বই ছিল। মা অথবা ভাই, কেউ একজন সেই বই পড়ার জন্য রেখেছিল। নিমাই ভট্টাচার্যের একটা উপন্যাস। পাঠকপ্রিয় একটা উপন্যাস। ‘মেমসাহেব’ সম্ভবত। আর এই বইটা যে উপন্যাস ছিল তাও বুঝতাম না। গল্পের বই মনে করেই সে দিন পড়ে ফেলেছিলাম।
প্রিয় লেখক
প্রিয় লেখকের তালিকা অনেক লম্বা। অনেকের লেখাই পড়ি। অনেকের লেখা পড়ে রীতিমতো মুগ্ধ হই। কতজনের নাম বলব! শরৎচন্দ্র, মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়, শহিদুল জহির, আকতারুজ্জামান ইলিয়াসের গল্প-উপন্যাস, সমরেশ মজুমদার, সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়সহ আরো অনেকের লেখাই আমার ভীষণ প্রিয়। তাদের লেখা আমাকে টানে। বিশেষ করে শরৎচন্দ্রের লেখা আমার খুবই ভালো লাগে।
কবিতা পড়া
একসময় অনেক কবিদের কবিতাই পড়া হতো, পড়তাম। জীবনানন্দ দাশ, সুভাষ মুখোপাধ্যায়, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, আল মাহমুদ, শামসুর রাহমান বিভিন্ন কবিদের কবিতা পড়তাম। এখনো পড়ি। তবে এখন পড়তে গেলে বেশি পড়ি নির্মলেন্দু গুণ। নতুনদের লেখা খুব বেশি পড়া হয় না। তবে পত্রিকা পড়ার সুবাধে সাহিত্য পাতায় যদি কারো লেখা ভালো লেগে যায় তবে তা পড়ি।
অন্যদেশের সাহিত্য
একটা সময় ছিল আমাদের দেশে প্রচুর রুশ সাহিত্যের বই বের হতো। তখন লিও তলস্কয়, ফিওদর দস্তয়ভস্কি তাদের লেখা পড়তাম। গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেজের গল্প-উপন্যাস, পাবলো নেরুদার কবিতা এসব পড়তাম। দস্তয়ভস্কির ‘বঞ্চিত লাঞ্ছিত’ পড়ে রীতিমতো অবাক হয়েছিলাম।
সাম্প্রতিক পড়াশোনা
এখন বইপড়া থেকে বেশি পড়া হয় নাটক কিংবা সিনেমার স্ক্রিপ্ট। পড়াশোনার জন্য খুব বেশি সময় বের করতে পারি না। তবে সময় পেলে বই পড়ি। সম্প্রতি আমি আলবেয়ার কাম্যুর ‘প্লেগ’ উপন্যাসটা পড়ছি। এর আগেও কাম্যুর ‘আউটসাইডার’ পড়েছিলাম, দারুণ একটা উপন্যাস। বেশ কয়েকবার পড়েছি।
অমর একুশে গ্রন্থমেলা
এক সময় বইমেলা এলে পাগল হয়ে যেতাম; কোন বই কিনব, কার বই কিনব! আর নব্বই দশকের শুরুতে যখন থিয়েটার করতাম তখন বন্ধু-বান্ধব মিলে আড্ডাও দিতাম বইমেলা প্রাঙ্গণে, বাংলা একাডেমির বটতলায়। সেখানে আমরা কজন মিলে আশি সালের দিকে বইমেলার পাশে ‘পথ নাটক’ শুরু করেছিলাম। তা আমার জীবনের উল্লেখযোগ্য এক অধ্যায়। এবার এখনো বইমেলায় যেতে পারিনি তবে যাওয়ার ইচ্ছে আছে।