বড়লেখায় পাহাড়-টিলা কেটে পরিবেশ ধ্বংসে আগ্রসন চলছে

আগের সংবাদ

রেড ভেলভেট

পরের সংবাদ

রাঙ্গামাটি ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের জমি হস্তান্তর

প্রকাশিত হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৯ , ৩:৪৩ অপরাহ্ণ | আপডেট: ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৯, ৩:৪৩ অপরাহ্ণ

Avatar

রাঙ্গামাটি ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের জমি হস্তান্তর করা হয়েছে। গতকাল ১১ এপ্রিল সোমবার রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক এ,কে,এম মামুনুর রশিদ রাঙ্গামাটি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ রিয়াজ মেহেমুদের হাতে জমির কাগজ পত্র হস্তান্তর করেন।
এ সময় রাঙ্গামাটি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) এস,এম নজরুল ইসলাম, রাঙ্গামাটি বিএফডিসি কমান্ডার মোঃ আসাদুজ্জামান, রাঙ্গামাটি রিজিয়নের জি টু আই তানভীর সালেহ্ সহ বিভিন্ন সরকারী বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের প্রধান সাংবাদিক গণ ও গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
হস্তান্তর অনুষ্ঠানে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক এ,কে,এম মকছুদ আহমেদ বলেন, রাঙ্গামাটি ক্যান্ট পাবলিক স্কুল স্থাপিত হলে পার্বত্য অঞ্চলের শিক্ষার মান আরো একধাপ এগিয়ে যাবে। সরকারের পাশাপাশি পার্বত্য অঞ্চলে সেনা বাহিনী শিক্ষার জন্য যে সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছে তা অত্যন্ত প্রশংসার দাবী রাখে। তিনি বলেন, রাঙ্গামাটি ক্যান্ট পাবলিক স্কুল প্রতিষ্ঠার জন্য রিজিয়ন কমান্ডারের আগ্রহ দেখে আমরা ও তার সাথে সাই মিলিয়েছি। খুব দ্রুত এই ক্যান্ট পাবলিক স্কুলের জন্য জায়গা রেজিষ্ট্র করে তাঁর হাতে হস্তান্তর করতে পেরে আমি খুবই গর্বিত।
রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ রিয়াজ মেহেমুদ বলেন, তিন পার্বত্য জেলার মধ্যে প্রথম রাঙ্গামাটিতে ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ করার সিদ্ধান্ত হয়েছিলো। কিন্তু বিভিন্ন জটিলতার কারণে এই কলেজ প্রতিষ্ঠা করা যায়নি। আমার আগের জন্য এই কলেজ প্রতিষ্ঠার জন্য কাজ করে গেছে। আমি আসার পর রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসকের সাথে আলোচনার মাধ্যমে খুব দ্রুত এই জায়গার বন্দোবস্ত সম্পাদন করি। তিনি বলেন, আমি নিজেও কৃতজ্ঞ যে আমার আমলেই এই কলেজের জমি হাতে পেয়েছি। খুব শীর্ঘ্রই এই কলেজের একটি দৃশ্যমান কিছু দেখা যাবে। তিনি বলেন, এই কলেজ প্রতিষ্ঠিত হলে এই এলাকার শিক্ষার মান যেমন বৃদ্ধি পাবে এবং দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্র ছাত্রীরা তাদের লেখাপড়ার করতেও সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়া হবে।
রাঙ্গামাটি শহরের টিভি সেন্টার এলাকায় রাঙ্গামাটি ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের জন্য সাড়ে ১৪ একর সরকারী খাস ও ব্যক্তিমালিকানাধীন জায়গা রেকর্ড ভূক্ত করে দেয়া হয়। এই কলেজ স্থাপিত হলে রাঙ্গামাটি জেলার শিক্ষার গুণগত মান আরো বৃদ্ধি পাবে বলে জানান বক্তারা।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা