চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে আ’লীগের মনোনয়ন পেলেন আতিক : এলাকায় উল্লাস

আগের সংবাদ

সংরক্ষিত নারী আসনে জোহরা আলাউদ্দিন আ'লীগের মনোনয়ন লাভ

পরের সংবাদ

বগুড়ায় শুকনা মরিচ থেকে আয় ৩০০ কোটি টাকা

প্রকাশিত হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯ , ১:১৭ অপরাহ্ণ | আপডেট: ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯, ১:১৭ অপরাহ্ণ

Avatar

বগুড়া জেলার মরিচের খ্যাতি দেশজুড়ে। এবার জেলার চাষিরা আলু ও ধানের লোকসান পুষিয়ে নিতে মরিচ চাষে ঝুঁকে পড়েন। তাই মরিচের চাষ বেশি হয়েছে। কৃষি বিভাগ মনে করছে, এবার শুকনা মরিচ থেকে জেলায় আয় হবে ৩০০ কোটি টাকা। বগুড়ায় এ বছর ১৫ হাজার টন মরিচ উৎপাদন হওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করছে জেলার কৃষি বিভাগ। গুঁড়া মসলা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো লাল টোপা মরিচ সংগ্রহ করে সারিয়াকান্দির চরে শুকিয়ে তাদের ফ্যাক্টরিতে নিয়ে যাচ্ছে। জেলার কৃষি বিভাগ বলছে, এবার আবহাওয়া ভালো থাকায় মরিচের ভালো ফলন হয়েছে। জেলায় এ বছর ৭ হাজার ৬০০ হেক্টর জমিতে মরিচ চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। জমি থেকে চাষিরা লাল পাকা মরিচ সংগ্রহ করছে। শুকনা মরিচ আকারে ফলনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১৩ হাজার টন। এ ব্যাপারে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক নিখিল চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, এবার আবহাওয়া ভালো, তাই ১৫ হাজার টন মরিচ উৎপাদন হতে পারে।
১৫ হাজার টন থেকে কৃষকদের আয় হতে পারে প্রায় ৩০০ কোটি টাকা। এর পাশাপাশি কাঁচা মরিচেও আয় করবে তারা। বগুড়া কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানায়, বগুড়া জেলায় সবচেয়ে বেশি মরিচ চাষ হয় সারিয়াকান্দি, শাজাহানপুর, সোনাতলা, ধুনট, শেরপুর, নন্দীগ্রাম ও শিবগঞ্জ উপজেলায়। বগুড়া সদর, কাহালু, দুপচাঁচিয়া ও আদমদিঘিতেও চাষ হয় মরিচ। তবে চাষের পরিমাণ কম হয়।