সরিষাবাড়ীতে লোকসানের মুখে কপি চাষিরা

আগের সংবাদ

মেলা সফল হয়েছে : বাণিজ্যমন্ত্রী

পরের সংবাদ

ঝিনাইগাতীতে প্রতিপক্ষের বাড়িতে হামলা, অগ্নি সংযোগ ও লুটপাত

খোরশেদ আলম, শেরপুর থেকে :

প্রকাশিত হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯ , ১:৫৩ অপরাহ্ণ

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের বাড়িতে হামলা, ভাংচুর, লুটপাত ও অগ্নি সংযোগের ঘটনা ঘটেছে। চিরস্থায়ী আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে উপজেলা সদর বাজারের সাইদুল ইসলামের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটায় প্রতিপক্ষরা। ঘটনাটি ঘটে ৮ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার রাতে। এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে দুই জনকে গ্রেফতার করে থানা পুলিশ। পুলিশ, সাইদুল ইসলাম ও স্থানীয় বাসিন্দারা জানায়, অসহায় পরিবার সাইদুল ইসলামের ২০ শতাংশ জমির প্রতি লোভ জাগে তার প্রতিবেশী প্রভাবশালী এবিএম সিদ্দিকের। তিনি সাইদুল ইসলামের জমিটি দখলে নিতে দীর্ঘদিন থেকেই নানা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিলেন। এক পর্যায়ে সাইদুল ইসলামের পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করেন তিনি। পরে তাদের কাছ থেকে গ্রাম্য দলীল মুলে কিছু জমি ক্রয় করেন। ওই জমি তিনি ভোগ দখলে ছিলেন। এ নিয়ে সাইদুল ইসলাম আদালতে একটি নিষেধাজ্ঞা মামলা দায়ের করেন। আদালত ঘটনার বিষয়াদী পর্যালোচনা করে উক্ত জমির উপর সাইদুল ইসলামের পক্ষে চিরস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার আদেশ দেন। সাইদুল ইসলাম আদালতের নিষেধাজ্ঞা পেয়ে ওই জমি দখলে নেন। জমির উপর ঘর বাড়ি, ও দোকান পাট নির্মান করে ভাড়া দেয়ার পাশাপাশি ভোগ দখলে রয়েছেন তিনি। শুক্রবার সন্ধ্যার পর ও রাত সাড়ে ১১টার দিকে এবিএম সিদ্দিক দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রসহ শতাধিক লোক নিয়ে সাইদুল ইসলামের বাড়ি ও দোকানে দুই দফায় হামলা, ভাংচুর, লুটপাত ও অগ্নি সংযোগের ঘটনা ঘটায়। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ও দমকল বাহিনী সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রনসহ ও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে দুইজনকে আটক করে।এ ঘটনার পর থেকেই এবিএম সিদ্দিক তার ছেলে ও লোকজন গাঁ ঢাকা দেয়। এ ব্যাপারে গতকাল শনিবার থানায় একটি মামলা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। ঝিনাইগাতী থানার ওসি বিপ্লব কুমার বিশ্বাস ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের বিষয়ে পুলিশি তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।