খোঁজ মিলল বিমানসহ নিখোঁজ আর্জেন্টাইন ফুটবলার সালার মরদেহের

আগের সংবাদ

মাধবপুরে শিশু নির্যাতনের ঘটনা ২০ হাজার টাকায় আপোস

পরের সংবাদ

বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলক উম্মোচন

বান্দরবানে শিক্ষাক্ষেত্রে অভূতপূর্ব উন্নতি আনা হবে : বীর বাহাদুর উশৈসিং

প্রকাশিত হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১৯ , ২:৩০ অপরাহ্ণ | আপডেট: ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১৯, ২:৩০ অপরাহ্ণ

Avatar

বান্দরবান স্বপ্নের সোনার জেলা হিসেবে গড়া উঠার লক্ষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। বান্দরবানবাসীর স্বপ্নে প্রতীক বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয়।স্বপ্ন পূরণে এগিয়ে চলছে বান্দরবান।বান্দরবান জেলা শিক্ষাক্ষেত্রে বাংলাদেশের অনেক জেলার চেয়ে তুলনামূলকভাবে পিছিয়ে ছিল।অনেক পিছিয়ে পড়া অঞ্চল থেকে বান্দরবান এখন বাংলাদেশের শিক্ষায় মূলধারার সাথে যুক্ত,কোন কোন ক্ষেত্রে এগিয়েও আছে। বর্তমান সরকার শিক্ষা উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে শিক্ষা যে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে তা বলার অপেক্ষা রাখেনা।কারণ, শিক্ষিত মানুষই উন্নয়নের চাবিকাঠি।অন্যদিকে শিক্ষা শুধু জ্ঞান বুদ্ধিসম্পন্ন মানুষই সৃষ্টি করে না,সুসভ্য মানুষও তৈরি করে।সুশিক্ষিত,সভ্য এবং সৃষ্টিশীল মানুষ তৈরীর কারখানা হলো বিশ্ববিদ্যালয়।সবমিলিয়ে বান্দরবানবাসীদের ভবিষৎত অত্যন্ত উজ্জল ও অযুত সম্ভাবনাময়।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে বান্দরবান পৌরসভা হিলভিউ কনভেনশন সেন্টার হলে বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয় শুভ উদ্ধোধন অনুষ্ঠিত জনসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পার্বত্য বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি,এ সব কথা বলেন।
বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ মূখ্য নিবার্হী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরুল আবছার সঞ্চালনায় উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে স্বগত বক্তব্য করেন, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠানতা ট্রাস্ট কো- চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা।এসময় তিনি বলেন,আমি অভিনন্দন জানাচ্ছি জননেত্রী শেখ হাসিনাকে।বান্দরবানে আরেকটি হলো শিক্ষাতন্ত্রের উন্নয়ন সূচক।প্রধানমন্ত্রী অসীম দূরদর্শিতায় আজ মাহিরুহে পরির্ণত হয়েছে পার্বত্য বান্দরবান।আমরা যখন কোনো একটি র্কমকে মূল্যায়ন করি তখন আমরা কিছু সূচক দিয়েই কথা বলি।বর্তমান সরকারের বান্দরবান জনমানুষের সাফল্য মূল্যায়নে যে সূচকগুলো সামনে রাখেছেন তা হলো উন্নয়নের সূচক,জীবনযাত্রার মান উন্নয়নের সূচক, শিক্ষা উন্নয়নের সূচক,সামগ্রিকভাবে জীবন যাপনের একটি প্রগতি শীল সূচক।এই চারটি সূচক বর্তমান সরকার বান্দরবানবাসীর জন্য সাফল্য লাভ করেছেন।

এর আগে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও বিশ্ববিদ্যালয় ফলক উম্মোচন করে অনুষ্ঠান উদ্ধোধন করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।পরে বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাঙ্গন থেকে সব শিক্ষার্থী,শিক্ষকমন্ডলী, জেলা পরিষদ ও প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সমন্ময়ে মন্ত্রী বিশাল র‌্যালী বের করা হয়। পরেহিলভিউ কনভেনশন স্টোর হলে এ উপলক্ষ্যে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উদ্ধোধন সভায় অন্যদেও মধ্যে বক্তব্য রাখেন- পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সুদত্ত চাক্ মা, রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য প্রফেসর ড.প্রদানেন্দু বিকাশ চাক্মা, বান্দরবান সেনা রিজিয়ন (জিটুআই) মেজর ইপ্তেখার পিএসসি, বান্দরবান জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ দাউদুল ইসলাম,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ কামরুজ্জামান, বান্দরবান পৌরসভা মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বেবী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর নছুর উল্লাহ্,চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড.এএফ এম আওরাঙ্গ দেব,রাঙ্গুনিয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মো:আবু ইউছুফ, বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয়ের এমবিএ এর নতুন শিক্ষার্থী উম্মে হুজাইফা মিফতা প্রমুখ।অনুষ্ঠান শেষে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠানতা ট্রাস্ট কো- চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর হাতে ক্রেস প্রদান করা হয়।
বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয় ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য প্রফেসর ড.এএইচএম জেহাদুল করীম সভাপতিত্বে উদ্ধোধন অনুষ্ঠানে
আরো উপস্থিত ছিলেন, বান্দরবান জেলা হাসপাতালে সিভিল সার্জন ডা: অংসুই প্রু মারমা,বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি একে এম জাহাঙ্গীর,বান্দরবান জেলা পরিষদের সদস্য ক্যসাপ্রু মারমা, সদস্য লক্ষীপদ দাস,সিয়ং ম্রো,তিংতিংম্রাই মারমা, থোয়াইহ্লামং মারমা,বান্দরবান সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুছ,স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষকরা এবং প্রিন্ট- ইলেকট্রনিক মিডিয়াসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা।