হঠাৎ কেন সংলাপ?

আগের সংবাদ

জামায়াত ইস্যুতে ঐক্যফ্রন্টে ফাটল

পরের সংবাদ

বিজয় সমাবেশ স্মরণীয় করে রাখতে চায় আওয়ামী লীগ

প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ১৪, ২০১৯ , ১০:৪৯ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: জানুয়ারি ১৪, ২০১৯, ১০:৪৯ পূর্বাহ্ণ

Avatar

আগামী ১৯ জানুয়ারি অনুষ্ঠেয় বিজয় সমাবেশকে স্মরণীয় করে রাখতে চায় ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। এ জন্য ওই দিন ‘বিশাল বিজয় সমাবেশ’ করবে দলটি। ‘উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির অব্যাহত অগ্রযাত্রায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অনন্য সাফল্য’স্লোগানকে প্রতিপাদ্য করে ওই দিন দুপুর আড়াইটায় আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এ সমাবেশ শুরু হবে। সমাবেশে অংশ নেবেন আওয়ামী লীগসহ মহাজোটের শরিক বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, শিক্ষক, বুদ্ধিজীবী, আইনজীবী, সাংবাদিক, কবি-সাহিত্যিক, পেশাজীবী, সংস্কৃতি ও বিনোদন জগতের প্রতিনিধি, কৃষক-শ্রমিকসহ নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ।
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের বিশাল বিজয়ের পর দেশব্যাপী কোনো আনন্দ মিছিল ও বিজয় র‌্যালি করেনি আওয়ামী লীগ। তাই স্মরণীয় করে রাখার মতো সমাবেশের মধ্য দিয়েই বিজয় উৎসব পালন করবে দলটি। এ লক্ষ্যে ব্যাপক প্রস্তুতি শুরু করেছে আওয়ামী লীগ। গত শনিবার বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ ও কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের যৌথসভায় দলীয় নেতাদের এ সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ দিক-নির্দেশনা দিয়েছেন দলীয় সভাপতি ও চতুর্থ মেয়াদে নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
সমাবেশ সফল করতে ঢাকা ও এর আশপাশের জেলার সরকারদলীয় সাংসদ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকদের সঙ্গে যৌথসভা করেছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। গতকাল রবিবার সকালে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে ঢাকা, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, গাজীপুর ও নরসিংদী জেলার নেতারা যৌথসভায় অংশ নেন।
যৌথ সভায় ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা বিজয় উদযাপন করতে চাই। মহাসমাবেশে বিশাল উপস্থিতি থাকবে বলে আমরা আশা করছি। আপনারা ব্যানার, ফেস্টুন, ঢাক-ঢোল নিয়ে মহাসমাবেশে আসবেন। মহাসমাবেশে আমাদের দলের সভাপতি আগামী দিনে দল ও সরকার কীভাবে চলবে সেসব বিষয়ে দিক-নির্দেশনা দেবেন।
এদিকে সমাবেশের প্রস্তুতি সম্পর্কে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম ভোরের কাগজকে বলেন, নির্বাচনে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ার পরও দেশের কোথাও কোনো বিজয় র‌্যালি করতে নিষেধ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। ১৯ জানুয়ারি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আমরা কেন্দ্রীয়ভাবে বিজয় উৎসব উদযাপন করব। ওই দিন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বিজয় সমাবেশ করা হবে। এই কর্মসূচিকে সফল করতে আমরা কাজ শুরু করেছি। আওয়ামী লীগকে বিশাল ম্যান্ডেড দেয়ায় সমাবেশ থেকে দেশবাসীকে অভিনন্দন জানানো হবে। সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে সমাবেশে আমন্ত্রণ জানানো হবে। আমাদের নেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা দিক-নির্দেশনামূলক ভাষণ দেবেন। আগামীতে কীভাবে দল ও সরকার পরিচালিত হবে সে দিক-নির্দেশনাও দেবেন। আমরা ওই সমাবেশকে স্মরণীয় করে রাখতে চাই।
জানা গেছে, বিজয় সমাবেশকে সফল করতে ঢাকাকে সাজানো হবে রঙিন সাজে। এরই মধ্যে সমাবেশকে ঘিরে নানা ব্যানার-ফেস্টুন, পোস্টার টানানোর কাজ শুরু হয়েছে। এসব ব্যানার-ফেস্টুন ও পোস্টারে শোভা পাচ্ছে সরকারের নানা উন্নয়নমূলক প্রকল্পের ছবি। শোভা পাচ্ছে নির্বাচনে বিজয়ের বিভিন্ন চিহ্ন। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শুরু হয়েছে বিশাল মঞ্চ নির্মাণের প্রস্তুতি। এরই মধ্যে নিরাপত্তারক্ষীরা সমাবেশস্থল পরিদর্শন করেছেন। পুরো সোহরাওয়ার্দী উদ্যানজুড়ে সাজানো হবে রঙিন সাজে। ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় ক্যাম্পাস, শাহবাগ, দোয়েল চত্বর, শিক্ষা ভবন মোড়, সচিবালয়ের আশপাশ এলাকা, মৎস্য ভবন, কাকরাইল, সমাবেশস্থল থেকে গণভবন পর্যন্ত সড়কেও জ¦লবে লাল-সবুজ বাতি। টানানো হবে নানা রঙের ব্যানার-ফেস্টুন।
এদিকে সমাবেশের মঞ্চ কোন আকৃতির হবে তা চ‚ড়ান্ত করতে গতকাল রাতে দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করার কথা জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। তবে নৌকার বিজয়ে নৌকা আকৃতির মঞ্চেই প্রাধান্য পেতে পারে। সমাবেশে অন্যান্য আয়োজনের সঙ্গে ছোট্ট পরিসরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেরও আয়োজন করা হচ্ছে বলেও জানা গেছে।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা