ব্যাংকিং খাতে নানামুখী চ্যালেঞ্জ নিয়ে বছর শুরু

আগের সংবাদ

বছর শুরুর দিনেই গণধর্ষণের ঘটনায় নিন্দার ঝড়

পরের সংবাদ

ভারতের নাট্যোৎসবে আজ মঞ্চায়ন হবে ‘নীলাখ্যান’

প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ৩, ২০১৯ , ১:১৯ অপরাহ্ণ | আপডেট: জানুয়ারি ৩, ২০১৯, ৪:০৩ অপরাহ্ণ

Avatar

ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের তিনটি নাট্যোৎসবে মহাকাল নাট্য সম্প্রদায় তাদের নিয়মিত নাট্য প্রযোজনা মানবপ্রেমের অমর উপাখ্যান ‘নীলাখ্যান’ মঞ্চায়ন করবে। এরমধ্যে আজ বৃহস্পতিবার ধর্মনগরের বিবেকানন্দ সার্ধ শতবার্ষিকী ভবন মঞ্চে লার্নার্স এডুকেশন সোসাইটি আয়োজিত ৫ম নাট্যমঞ্চ আন্তর্জাতিক নাট্যোৎসবের প্রথম মঞ্চায়ন হবে। আগামীকাল ৪ জানুয়ারি আগরতলার রবীন্দ্র ভবন মঞ্চে নাট্যভ‚মি আয়োজিত ১৩তম নাট্যোৎসবে দ্বিতীয় এবং ৫ জানুয়ারি খোয়াইয়ের নতুন টাউন হল মঞ্চে নাট্যতরঙ্গ ২০১৯-এ এর তৃতীয় মঞ্চায়ন হবে। দলপ্রধান মীর জাহিদ হাসানের নেতৃত্বে ২৫ সদস্যের দল নিয়ে গতকাল সকালে ত্রিপুরার উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছে মহাকাল নাট্য সম্প্রদায়।
দ্রোহ ও প্রেমের কবি কাজী নজরুল ইসলামের ‘সাপুড়ে’ আশ্রয়ে ‘নীলাখ্যান’ নাটকটি রচনা করেছেন আনন জামান এবং নির্দেশনা দিয়েছেন ড. ইউসুফ হাসান অর্ক। কাহিনীর প্রেক্ষাপট বেদে বহর হলেও কবি নজরুল অন্ত স্রোতে এমন একটি সার্বজনীন বীজ ভাসিয়ে দিয়েছেন, যা স্পষ্টতই গোটা মানবকুলের সর্বকালকে ছুঁয়ে যায়। অনতিক্রম্য দুর্মর আকাক্সক্ষা আর বিরাট প্রকৃতির তুলনায় মানুষের অসহায়ত্ব তাই কবিকে এমন প্রেমাখ্যান লিখতে কলম ধরায়। কবি আর নাট্যকার তাদের মন্ময় ও তন্ময়তায় যে জগৎ রচনা করেন তার থেকেও ভিন্ন কোনো ভাষা অনুসন্ধান করতে হলে বাংলা নাটক ও সঙ্গীতের ঐতিহ্যের দ্বারস্থ হতেই হয়। কেননা, সেখানেই অনেক কথা না বলেও বলা হয়ে যায়। ‘নীলাখ্যান’ প্রযোজনাতেও সেই প্রয়াস রয়েছে। শব্দ-সুরের শক্তিতে প্রেম আর মানুষের অসহায়ত্বের মনকথা বলবার জন্যই অভিনেতা-চরিত্ররা অনেকটা গীতলভাবে তাদের প্রকাশ করে। ত্রিপুরায় ‘নীলাখ্যান’-এর ৪৩, ৪৪ ও ৪৫তম প্রদর্শনী হবে। এর নেপথ্য শিল্পীরা হলেন- মঞ্চ পরিকল্পনা, সুর, সঙ্গীত ও আবহসঙ্গীত পরিকল্পনায় ড. ইউসুফ হাসান অর্ক, আলোক পরিকল্পনায় ঠান্ডু রায়হান, পোশাক পরিকল্পনায় ড. সোমা মুমতাজ, কোরিওগ্রাফি জেরিন তাসনিম এশা, প্রপস পরিকল্পনা ও নির্মাণ হাসনাত
রিপন, রূপসজ্জা শিল্পী শুভাশীষ দত্ত তন্ময়, পোস্টার ও স্মরণিকা ডিজাইন পংকজ নিনাদ, মঞ্চ ব্যবস্থাপক জাহিদ কামাল চৌধুরী এবং প্রযোজনা অধিকর্তা মীর জাহিদ হাসান।
অভিনয় শিল্পীরা হলেন- কোনাল আলী সাথী, শাহিনুর প্রিতী, সুরেলা নাজিম, সুমাইয়া তাইয়ুম নিশা, নূর আক্তার মায়া, পিয়াসী জাহান, খলিলুর রহমান সম্রাট, তন্ময় ঘোষ, মনিরুল আলম কাজল, শিবলী সরকার, শাহরিয়ার হোসেন পলিন, তারেকেশ্বর তারোক, আহাদ জাহাঙ্গীর, রাসেল আহমেদ, সবুজ হোসেন, ইকবাল চৌধুরী, আরিফুল স্বপ্নিল, মো. শাহনেওয়াজ এবং মীর জাহিদ হাসান।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা