স্মিথের ভাগ্য নির্ধারণ করবে বিসিবি

আগের সংবাদ

ডিসিদের রিটার্নিং অফিসার নিয়োগ কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট

পরের সংবাদ

যৌনতার কারণে বিপাকে গলফার রেইড

প্রকাশিত হয়েছে: ডিসেম্বর ১২, ২০১৮ , ৩:০৪ অপরাহ্ণ | আপডেট: ডিসেম্বর ১২, ২০১৮, ৩:০৪ অপরাহ্ণ

ক্যারিয়ারে ইউরোপিয়ান নারী গলফ ইভেন্টে ছয়বার শিরোপা জিতেছেন ব্রিটিশ গলফার মেল রেইড। এ কারণে অনেক প্রতিষ্ঠানের স্পন্সরশিপ পেয়েছেন তিনি। পাশাপাশি বেশ কয়েকটি সংস্থার ব্রান্ড অ্যাম্বাসেডর ইংলিশ এ তারকা। মেল সেগুলো হারাতে চান না। এ কারণে নিজের যৌনতা সম্পর্কিত সব ধরনের বিষয়ই আড়ালে রাখতে চান ৩১ বছর বয়সী এ নারী খেলোয়াড়। যৌনতা নিয়ে কোনো তথ্য প্রকাশ পেলে স্পন্সরশিপ হারানোর শঙ্কা দেখা দেবে- এমনটাই তার ধারণা।
সম্প্রতি ব্রিটিশ এক টিভিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে মেল রেইড জানান, কিছুদিন আগে তিনি সমকামিতার প্রতি আকৃষ্ট হয়েছিলেন। সেই তথ্য কিছুটা জনগণের কাছেও পৌঁছেছে। তবে মেল এমনটা চান না।
যৌনতা নিয়ে তার সম্পর্কে কোনো তথ্য প্রকাশিত হলে যে স্পন্সরশিপ হারাতে হতে পারে তাকে! ১৯৮৭ সালে ইংল্যান্ডের ডার্বিতে জন্ম নেয়া এ তারকা কদিন আগে সমকামিতার প্রতি ধাবিত হলেও পূর্বে এটার প্রতি যে আকর্ষণ ছিল তা অতিক্রম করতে সক্ষম হয়েছেন। এ জন্য নিজেকে সৌভাগ্যবান বলে মনে করছেন তিনি। কেননা এখন আর স্পন্সরশিপ হারানোর ভয় নেই তার।
গলফ খেলায় যৌনতা প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে মেল জানান, এখানে সবাই ভালো কাজে আপনাকে স্বাগত জানাবে। প্রত্যেকেই বলতে গেলে মনখোলা টাইপের। ফলে যে কোনো বিষয় নিয়েই আপনি যে কারো সঙ্গে আলোচনা করতে পারেন।
আর এখানে আমার বেশ কয়েকজন ভালো বন্ধু রয়েছে। তাদের সঙ্গে প্রায় সব বিষয় নিয়েই আলোচনা হয়ে থাকে। তবে যৌনতা নিয়ে কোনো ধরনের আলোচনা আমি এখনো করিনি, এমনকি শুনিনিও। তবে একেক দেশের ক্ষেত্রে আমার বক্তব্যে অমিল পাওয়া যেতে পারে। সার্বিকভাবে বিষয়টি আমার কাছে এমনই মনে হয়েছে। মেলের এমন মতামতের পর গলফ ভক্তদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে এ নিয়ে আলোচনার অন্ত নেই! কারো কারো মতে সমকামিতা এড়িয়ে চলার জন্য আদর্শ চরিত্র হিসেবে উপস্থাপিত হচ্ছেন তিনি।
মেল সর্বশেষ ২০১৭ সালে অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়া গলফ ট্যুরের শিরোপা জিতেছেন। এর আগে ২০১৫ সালে জিতেছেন তুর্কিশ এয়ারলাইন্স ওপেনের শিরোপা। ক্যারিয়ারে তিনি সর্বপ্রথম ট্রফি জিতেছেন ২০১০ সালে। সেবার নেদারল্যান্ডসের কিস্ট্রল বোয়েলজনকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো শিরোপার স্বাদ নেন তিনি। এরপর ২০১১ সালে জিতেছেন দুটি শিরোপা, যেটা ছিল তার গলফ ক্যারিয়ারের সেরা সময়। এ ছাড়া ২০১২ সালে প্রাগ গলফ টুর্নামেন্টের শিরোপাও তার হাতে উঠেছে।