হলিউডের ৭ মিউজিক্যাল

আগের সংবাদ

ক্যাসপারস্কি ল্যাবের নতুন পরিবেশক স্মার্ট

পরের সংবাদ

আগামী বিজ্ঞান-প্রযুক্তি নিয়ে হকিংয়ের ৫ ভাবনা

প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ১৮, ২০১৮ , ৪:৪৭ অপরাহ্ণ | আপডেট: নভেম্বর ১৮, ২০১৮, ৪:৪৭ অপরাহ্ণ

Avatar

এলিয়নের সঙ্গে সাক্ষাৎ খুব একটা সুখকর হবে না। আর কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার উত্থানসহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির অগ্রযাত্রা মানুষের অস্তিত্বকে হুমকির মুখে ফেলবে বলে মনে করতেন স্টিফেন হকিং। তার মতে, মহাকাশ গবেষণা যতটা এগোবে মানুষের পৃথিবী ছেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা ততই তৈরি হবে। এ সব বিষয়ের সঙ্গে জলবায়ুর পরিবর্তন পৃথিবী ও মানুষের ভবিষ্যৎকে কোন পথে নিয়ে যাবে তাও ভাবনার বিষয়। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির ভবিষ্যৎ বিষয়ে প্রয়াত প্রখ্যাত এ তত্ত্বীয় পদার্থবিজ্ঞানীর পাঁচ অনুমান নিয়ে এই ফিচার।

জিন এডিটিং : জিন এডিটিং হচ্ছে প্রাণীর ডিএনএতে সংযোজন বিয়োজন করে নিজের মতো করে একটি প্রাণী তৈরি করা। বর্তমানে মানুষের জিন এডিটিংকে সীমা লঙ্ঘন হিসেবে দেখা হয় এবং ৪০ দেশে এ ধরনের বৈজ্ঞানিক পরীক্ষণ নিষিদ্ধ। স্টিফেন হকিং মনে করতেন, একদিন এ পদ্ধতিতে সুপারহিউম্যান তৈরি করা হবে। সম্প্রতি প্রকাশিত তার প্রবন্ধ সংকলন ব্রিফ অ্যান্সার টু দ্য বিগ কোয়েশ্চেনস বইতে তা এ ধারণা তুলে ধরা হয়েছে। তার মতে এ সুপারহিউম্যানরা ক্রমোন্নতি করবে।

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই) : ২০১৭ সালে প্রফেসর হকিং ওয়্যার্ড ম্যাগাজিনকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে বলেন কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার দৈত্য বোতল থেকে বের হয়ে গেছে। তিনি আশংকা প্রকাশ করেন, এআইয়ের এ প্রতিযোগীতা এক ধরনের কৃত্রিম জীবনের জন্ম দেবে যারা মানুষকে ছাড়িয়ে যাবে।
তার অনুমানের সত্যতা ইতিমধ্যেই দেখতে শুরু করেছেন মানুষ। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার উৎকর্ষের সঙ্গে সঙ্গে তার অনুমান সঠিক পথেই যাচ্ছে-এটা বলাই বাহুল্য।
মহাকাশ গবেষণা : হকিং মনে করতেন, মানুষের এখন পৃথিবী ছেড়ে যাওয়ার কথা গুরুত্বের সঙ্গে ভাবা উচিত। নরওয়ের একটি বিজ্ঞান ও শিল্পোৎসবে তিনি বলেন, অন্যান্য গ্রহে ছড়িয়ে পড়লে হয়তো মানুষ নিজেদের হাত থেকে বাঁচতে পারবে। আমি মনে করি মানুষের এখন পৃথিবী ছাড়া উচিত।

জলবায়ু পরিবর্তন : বিখ্যাত এ বিজ্ঞানী জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কড়া সমালোচক ছিলেন। প্যারিস চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্র বেরিয়ে এলে ব্যক্তিগতভাবে তিনি ব্যথিত হন। এ সিদ্ধান্তের ব্যাপকতার তুলে ধরতে গিয়ে হকিং বলেন, ট্রাম্পের হটকারি এ সিদ্ধান্ত বিশ্বকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যাবে।

এলিয়েনের সঙ্গে সাক্ষাতের অভিজ্ঞতা ভালো হবে না : হকিং মনে করতেন কোনো এক সময় এলিয়নের সঙ্গে দেখা হলেও অভিজ্ঞতা খুব একটা সুখকর হবে না। এলিয়েন পৃথিবীতে এলে ঘটনাটি কলম্বাসের আমেরিকা আবিষ্কারের মতো ঘটনা হবে। স্থানীয়দের জন্য বিষয়টি মোটেও স্বস্তিদায়ক হবে না।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা