কঠোর অনুশীলনে মেয়েরা

আগের সংবাদ

বান্দরবানে বুয়েট শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার

পরের সংবাদ

ঢাকায় জিম্বাবুয়ে

প্রকাশিত: অক্টোবর ১৭, ২০১৮ , ৪:৪৪ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ১৭, ২০১৮ , ৪:৪৪ অপরাহ্ণ

প্রায় ৩ বছর পর আবারো বাংলাদেশ সফরে এসেছে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দল। গতকাল ঢাকায় পৌঁছেছে তারা। এবারের সফরে টাইগারদের বিপক্ষে ৩ ম্যাচের একটি ওয়ানডে সিরিজ ও ২ ম্যাচের একটি টেস্ট সিরিজ খেলবে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দল। বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ের মধ্যকার ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ শুরু হবে আগামী রবিবার থেকে এবং ২ ম্যাচের টেস্ট সিরিজের ১ম ম্যাচ মাঠে গড়াবে ৩ নভেম্বর।

জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দল সর্বশেষ বাংলাদেশ সফরে এসেছিল ২০১৫ সালে। ওই সফরে টাইগারদের বিপক্ষে ৩টি ওয়ানডে ও ২টি টি-টোয়েন্টি খেলেছিল তারা। সেবার ওয়ানডে সিরিজে টাইগারদের বিপক্ষে জিম্বাবুয়ে হোয়াইটওয়াশ হলেও টি-টোয়েন্টি সিরিজ শেষ হয়েছিল ১-১ ব্যবধানে। বাংলাদেশের বিপক্ষে আসন্ন ওয়ানডে ও টেস্ট সিরিজের জন্য ইতোমধ্যেই দল ঘোষণা করেছে জিম্বাবুয়ে। ওয়ানডে ও টেস্ট উভয় সিরিজেই জিম্বাবুয়ের নেতৃত্বে আছেন হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। এ ছাড়া ব্র্যান্ডন টেইলর, সলোমন মিরে, ক্রাইগ এরভিন, শেন উইলিয়ামস, এলটন চিগাম্বুরা ও কাইল জার্ভিসের মতো ক্রিকেটাররা রয়েছেন ওয়ানডে সিরিজের দলে। টেস্ট সিরিজের দলেও খুব একটা পারিবর্তন নেই।

২১ অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া ওয়ানডে সিরিজে বাংলাদেশই ফেভারিট। কেননা সাম্প্রতিক সময়ে ওয়ানডেতে জিম্বাবুয়ের উল্লেখযোগ্য কোনো সফলতা নেই। বাংলাদেশ সফরে আসার আগে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে গিয়েছিল জিম্বাবুয়ে। ওই সফরে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে লজ্জাজনকভাবে হোয়াইটওয়াশ হয়েছিল হ্যামিল্টন মাসাকাদজার দল। এ ছাড়া ৩ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজেও প্রোটিয়াদের বিপক্ষে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে জিম্বাবুয়ে। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগে পাকিস্তানের বিপক্ষে নিজেদের মাটিতে ৫ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলেছিল কোচ লালচাঁদ রাজপুতের শিষ্যরা। সেখানেও সরফরাজ আহমেদের দলের বিপক্ষে হোয়াইওয়াশ হয় জিম্বাবুয়ে।

জিম্বাবুয়ে যেখানে তাদের শেষ দুটি ওয়ানডে সিরিজেই হোয়াইটওয়াশ হয়েছে সেখানে নিজেদের শেষ টুর্নামেন্টগুলোতে দারুণ সাফল্য রয়েছে মাশরাফির দলের। গত সেপ্টেম্বরে শেষ হওয়া এশিয়া কাপের ফাইনালে খেলেছে টাইগাররা। এর আগে শক্তিশালী ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তাদেরই মাটিতে ওয়ানডে সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ। তার আগে শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত নিদাহাস ট্রফিতেও ফাইনালে খেলেছেন মাশরাফি-মুশফিকরা। তাই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আসন্ন ওয়ানডে সিরিজে নিশ্চত ফেভারিট বাংলাদেশ। সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল ইনজুরির কারণে দলের বাইরে থাকলেও মাশরাফির নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ দলে আছেন মুশফিক, মাহমুদউল্লাহ, লিটন দাস, মোহাম্মদ মিঠুন, মোস্তাফিজ, রুবেল হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজের মতো ক্রিকেটাররা, যারা ইতোমধ্যেই নিজেদের সামর্থ্য প্রমাণ করেছেন।

র‌্যাঙ্কিংয়েও এগিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। আইসিসি ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ে এখন বাংলাদেশের অবস্থান যেখানে সাত নম্বরে সেখানে র‌্যাঙ্কিংয়ের সেরা দশে নেই জিম্বাবুয়ে। তাদের অবস্থান ১১ নম্বরে। টেস্টেও টাইগারদের চেয়ে পিছিয়ে আছে জিম্বাবুয়ে। আইসিসি টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের অবস্থান নবম স্থানে এবং জিম্বাবুয়ে রয়েছে দশ নম্বরে।

বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে দুদল এখন পর্যন্ত ৬৯টি ওয়ানডেতে মুখোমুখি হয়েছে। যেখানে বাংলাদেশের ৪১টি জয়ের বিপরীতে জিম্বাবুয়ের জয় ২৮টি। অন্যদিকে টেস্টে দুদলের মধ্যে অনুষ্ঠিত ১৪টি ম্যাচে জিম্বাবুয়ের ৬ জয়ের বিপরীতে টাইগারদের জয় ৫টি, ড্র হয়েছে ৩টি ম্যাচ।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়