শামী কাবাব তৈরি করবেন যেভাবে

আগের সংবাদ

খালেদার ন্যায় বিচার পাওয়া নিয়ে সংশয়

পরের সংবাদ

নিরামিষে সুস্থতা…

প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ৭, ২০১৮ , ৪:৫৫ অপরাহ্ণ আপডেট: ফেব্রুয়ারি ৭, ২০১৮ , ৪:৫৫ অপরাহ্ণ

বেশিরভাগ মানুষ নিরামিষের চেয়ে মাছ-মাংস খেতেই বেশি পছন্দ করেন। আমিষভোজী হলে সুবিধাও অনেক, সহজেই শরীরে প্রোটিনের জোগান মেলে। প্রোটিন শরীর গঠনে সাহায্য করে। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নিরামিষাশীদের সুবিধা আরো বেশি। নিরামিষ শরীরের পক্ষেও ভালো।

বিভিন্ন ধরনের ফলমূলে পাওয়া যায় প্রাকৃতিক শর্করা, যা শক্তিবর্ধক। বেশি শক্তি মানেই স্ট্যামিনা বেড়ে যাওয়া। সমীক্ষায় দেখা গেছে, শরীরে রক্ত সঞ্চালন বাড়ায় ফল। নিরামিষ খেলে ত্বক কোমল থাকে। নিরামিষ যারা খান, তাদের খাদ্যতালিকায় ফল বেশি থাকে। ফলে থাকে প্রচুর পানি যা শরীরকে কোমল করে।

অন্যদিকে মাংসে থাকে ফ্যাট, যা ত্বককে করে তোলে তৈলাক্ত। ‘হাই ক্যালোরি ডায়েট’ কোলেস্টেরল বাড়ায়। এর ফলে, ক্যান্সার ও ডায়াবেটিসের মতো মরণব্যাধি হতে পারে। অন্যদিকে, নিরামিষ খাবারে থাকে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন ও খনিজ পদার্থ, যা শরীর ও মনকে সুস্থ রাখে। যারা নিরামিষ খান, তারা সাধারণত পশুপ্রেমী হন। তাদের মনটাও সুন্দর হয়। ফল আর শাকসবজি খেলে শরীর থেকে বেশি করে ‘সেরোটোনিন’ হরমোন নিঃসরণ হয়। এর ফলে, মন খুশিতে ভরপুর থাকে।

আমিষ খেলে শরীরে ‘টক্সিক’ উপাদান ঢোকে। মাংস খেলে শরীর থেকে অ্যামোনিয়ার কটু গন্ধ বের হয়। কিন্তু, নিরামিষাশী হলে সেই সমস্যা নেই। রোমাঞ্চের সময় তা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। মাছ, মাংস, ডিম কোলেস্টেরল-এর মাত্রা বাড়ায়। এসব খাওয়ার কারণে সহজেই ক্লান্ত হয়ে পড়ে শরীর।

তাই, আপনার শরীর ও মনের সুস্থতা যদি চান, তবে নিরামিষের ওপর নির্ভরতা বাড়ান।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়