হজযাত্রায় ভর্তুকি বাতিল করেছে ভারত

আগের সংবাদ

ব্রাজিল ষষ্ঠ বিশ্বকাপ জিতবে : পেলে

পরের সংবাদ

এক মাসের মধ্যে বিএসএমএমইউতে সাধারণ জরুরি বিভাগ

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৬, ২০১৮ , ১০:০৯ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১৬, ২০১৮ , ১০:০৯ অপরাহ্ণ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান বলেছেন, চিকিৎসা শিক্ষা ও রোগীদের সুবিধার্থে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে সাধারণ জরুরি বিভাগ অবশ্যই চালু করা হবে।

মঙ্গলবার ডা. মিল্টন হলে অনুষ্ঠিত সার্জারি অনুষদের রেসিডেন্সি প্রোগ্রাম নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘চিকিৎসা শিক্ষা ও রোগীদের চিকিৎসা সেবা অফিস সময় দিয়ে নির্ধারণ করা যায় না। সুদক্ষ চিকিৎসক তৈরির লক্ষ্য নিয়ে ও হাসাপাতালে সার্বক্ষণিক চিকিৎসকের উপস্থিতি নিশ্চিত করতেই রেসিডেন্সি প্রোগ্রাম চালু করা হয়েছে। বিকেল, সন্ধ্যা, রাত ও গভীর রাতেও রেসিডেন্ট চিকিৎসকসহ সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকদের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে হবে। ইভিনিং লেকচার সম্পূর্ণ বাস্তবায়ন করতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়কে দিন রাত ২৪ ঘণ্টা প্রাণবন্ত রাখতে হবে। সেভাবে রেসিডেন্ট শিক্ষার্থী, চিকিৎসক, শিক্ষকদের রোস্টার-এর আওতাভুক্ত করে দায়িত্ব দিতে হবে। রোগীদের জরুরি সেবা থেকে শুরু করে উন্নত চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে যা যা করণীয় এর সবকিছুই করতে হবে। প্রত্যেকে যদি নিজ নিজ দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করেন তবে এটা নিশ্চিত করা সম্ভব। রেসিডেন্সি প্রোগ্রাম সত্যিকার অর্থেই ফলপ্রসূ ও সার্থক করতে হলে দায়িত্ব ও কাজ যথাযথভাবে পালনকে বড় এবাদত মনে করে রেসিডেন্সি চিকিৎসক (ছাত্রছাত্রী), চিকিৎসক, শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্ট সকলকেই যতটা সম্ভব বিশ্ববিদ্যালয়ে অধিক সময় দিতে হবে।’

সভার সভাপতি ও সার্জারি অনুষদের ডীন অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া জানান, আগামী এক মাসের মধ্যে সাধারণ জরুরি বিভাগ চালু করা সম্ভব হবে। তিনি তাঁর বক্তব্যে সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে রেসিডেন্সি প্রোগ্রাম সার্থক করতে করণীয় দায়িত্ব পালনে সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ করেন।

উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান তাঁর বক্তব্যে সুপারভিশন, মনিটরিং ও ফলোআপ কার্যক্রম আরো জোরদার করার নির্দেশ দেন।

সার্জারি অনুষদের ডিরেক্টর অধ্যাপক ডা. এইচএম তৌহিদুল আলমের সঞ্চালনায় অর্থোপেডিক সার্জারি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. নকুল কুমার দত্ত, ভাসক্যুলার সার্জারি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মোঃ মাহবুবুর রহমান, কার্ডিয়াক সার্জারি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. অসিত বরণ অধিকারী, অধ্যাপক ডা. বেলায়েত হোসেন সিদ্দিকী, অধ্যাপক ডা. সৈয়দ আব্দুল ওয়াদুদ, অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান, অধ্যাপক ডা. সালাউদ্দিন আল আজাদ, অধ্যাপক ডা. তোসাদ্দেক হোসেন সিদ্দিকী উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়